ঢাকা | বুধবার | ২০ জুন, ২০১৮ | ৬ আষাঢ়, ১৪২৫ | ৫ শাওয়াল, ১৪৩৯ | দুপুর ১:১৪ | English Version | Our App BN | বাংলা কনভার্টার

  • Main Page প্রচ্ছদ
  • বিদেশ
  • বাংলাদেশ
  • স্বদেশ
  • ভারত
  • অর্থনীতি
  • বিজ্ঞান
  • খেলা
  • বিনোদন
  • চাকরির সংবাদ
  • ♦ আরও ♦
  • ♦ গুরুত্বপূর্ণ লিংক ♦
  • Space For Advertisement (Spot # 2) - Advertising Rate Chart



    ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

    আবারও ঝড় তুললো পর্ণ তারকা সানি লিওন! (ভিডিওটি দেখুন)
    এনবিএস | Tuesday, March 13th, 2018 | প্রকাশের সময়: 10:35 am

    আবারও ঝড় তুললো পর্ণ তারকা সানি লিওন! (ভিডিওটি দেখুন)আবারও ঝড় তুললো পর্ণ তারকা সানি লিওন! (ভিডিওটি দেখুন)

    ভিডিওটি একদম নিচে দেখুন…

    পড়ুন – বির্যপাত বন্ধ রেখে বেশী সময় যৌন মিলন করার সেরা পদ্ধতি 

    পোষ্টটি তাদের জন্য যারা অধিক সময় ধরে মিলন করতে পারেন না। অধিক সময় দরে যৌন মিলন করার জন্য আপনার ডক্টর তিনটি পদ্ধিতর সাথে পরিচয় করিয়ে দিবে। মিলনে পুরুষের অধিক সময় নেওয়া পুরুষত্বের মূল যোগ্যতা হিসেবে গন্য হয়। যেকোন পুরুষ বয়সের সাথে সাথে সহবাসের নানাবিধ উপায় শিখে থাকে।

    এখানে বলে রাখতে চাই-২৫ বছেরের কম বয়সী পুরুষ সাধারনত অধিক সময় নিয়ে সহবাস করতে পারেনা।তবে তারা খুব অল্প সময় ব্যবধানে পুনরায় উত্তেজিত/উত্তপ্ত হতে পারে। ২৫ এরপর বয়স যত বাড়বে সহবাসে পুরুষ তত অধিক সময় নেয়। কিন্তু বয়স বৃদ্ধির সাথে সাথে পুনরায় জাগ্রত (ইরিকশান) হওয়ার ব্যবধানেও বাড়তে থাকে। তাছাড় একা নারী কিংবা এক পুরুষের সাথে বারবার সহবাস করলে যৌন মিলনে অধিক সময় দেখা যায় এবং সহবাসে বেশি তৃপ্তি পাওয়া যায়। কারন স্বরূপ: নিয়মিত সহবাসে একে অপরের শরীর এবং ভালো লাগা/

    মন্দ লাগা, পছন্সই আসনভঙ্গি, সুখ দেয়া নেয়ার পদ্ধতি ইত্যাদি সর্ম্পকে ভালোভাবে অবহিত থাকে। সহবাসে অধিক সময় দেয়ার পদ্ধতি সমূহ নিয়ে আজকের আলোচনা। পদ্ধতিতে আসা যাক।

    পদ্ধতি১: চেপে/টিপে(স্কুইজ)ধরা: অধিক সময় ধরে যৌন মিলন করার এই পদ্ধতিটি আবিষ্কার করেছেন মাষ্টার এবং জনসন নামের দুই ব্যক্তি। চেপে ধরা পদ্ধতি আসলে নাম থেকেই অনুমান করা যায় কিভাবে ধরত হয়? যখন কোন পুরুষ মনে করেন তার বীর্য প্রায় স্থলনের পথে, তখন সে অথবা তার সঙ্গী লিঙ্গের ঠিক গোড়ার দিকে অন্ডকোষের কাছাকাছি লিঙ্গের নিচের দিকে যে রাস্তা দিয়ে বীর্য বহি:র্গামী হয় সে শিরা কয়েক সেকেন্ডের জন্য চেপে ধরবেন।

    চাপ ছেড়ে দেয়ার পর ৩০-৪৫ সেকেন্ডের মত সময় বিরতী নিন। এই সময় লিঙ্গ সঞ্চালন বা কোন প্রকার যৌন কার্যক্রম করা থেকে বিরত থাকুন। এ পদ্ধতির ফলে হয়তো পুরুষ কিছুক্ষনের জন্য লিঙ্গের দৃঢ়তা হারাবেন।

    কিন্তু ৪৫ সেকেন্ড পর পুনরায় কার্যক্রম চালু করলে লিঙ্গ আবার আগের দৃঢ়তা ফিরে পাবে। স্কুইজ পদ্ধতি এক মিলনে আপনি যতবার খুশি ততবার করতে পারেন। মনে রাখবেন সব পদ্ধতির কার্যকারীতা অভ্যাস বা প্রাকটিস এর উপর নির্ভর করে তাই প্রথমবারেই ফল পাওয়ার চিন্তা করা বোকাশীর প্রমাণ ছাড়া আর কিছু নয়।

    পদ্ধতি২: সংকোচন(টেনসিং) অধিক সময় ধরে পোন মিলন করার এ পদ্ধতি সর্ম্পকে বলার আগে আমি আপনাদের কিছু বেসিক ধারনা দেই আমারা প্রসাব করার সময় প্রসাব পুরুপোরি নিঃস্বরনের জন্য অন্ডকোষের নিচ থেকে পায়ুপথ পর্যন্ত অঞ্চলে যে এক প্রকার খিচুনী দিয়ে পুনরায় তলপেট দিয়ে চাপ দেই এখানে বর্ণিত সংকোচন বা টেনসিং পদ্ধতিটি অনেকটা সে রকম।

    তবে পার্থক্য হল এখানে আমারা খিচুনী প্রয়োগ করবো- চাপ নয়। এবার মূল বর্ণনা- মিলনকালে যখন অনুমান করবেন বীর্য প্রায় স্থলনের পথে, তখন আপনার সকল যৌন অঞ্চল কয়েক সেকেন্ডের জন্য প্রচন্ড শক্তিতে খিচে ধরুন। এবার ছেড়ে দিন। পুনরায় কয়েক সেকেন্ডের জন্য খিচুনী দিন।

    এভাবে ২/১ বার করার পর যখন দেখবেন র্বীয স্থলনেরে চাপ/অনুভব চলে গেছে তখন পুনরায় আপনার যৌন কর্ম শুরু করুন। আবারো বলি, সব পদ্ধতির কার্যকারীতা অভ্যাস বা প্রাকটিস এর উপর নির্ভর করে। তাই প্রথমবারেই ফল পাওয়ার চিন্তা করা বোকামী হবে।

    আরও পড়ুন – স্ত্রীর যোনিতে কখন যৌনাঙ্গ প্রবেশ করালে স্ত্রী আনন্দ পাবে? 

    প্রথমে কিছুক্ষণ স্ত্রীর সঙ্গে রোমান্টিক গল্প করুন। তারপর তার সমগ্র শরীরে (ঠোট, মুখ, গলা, ঘাড়, বুক, স্তন, নাভী, পেট, পিঠ, তলপেট, ঊরু, নিতম্ব, যৌনাঙ্গ ইত্যাদি স্থানে) চুম্বন, আলিঙ্গন, ম্যাসাজ করে স্ত্রীকে উত্তেজিত করার চেষ্টা করুন।সঠিকভাবে উত্তেজিত হলে দেখবে তোমার স্ত্রীর যোনি থেকে এক ধরনের পিচ্ছিল রস বের হচ্ছে। ঐ রস বের হলেই বুঝবেন যে তোমার স্ত্রী যৌন সঙ্গমের জন্য প্রস্তুত হয়ে গেছে। ঐ রসের অন্যতম কাজ যোনিপথ পিচ্ছিল করে দেওয়া যাতে যৌনক্রিয়ার সময় ব্যাথা না লাগে (যৌন মিলনকালে নারী ব্যাথা পাওয়ার কারণ)।

    আপনার লিঙ্গে থেকেও ঐ একইরকম পিচ্ছিল রস বের হবে। তারপর আপনি আপনার লিঙ্গ স্ত্রীর যোনিতে প্রবেশ করাতে পারেন। দুজনেই আনন্দ পাবে। মনে রাখবে যৌনসঙ্গম মানে শুধু যোনির মধ্যে লিঙ্গ প্রবেশ করিয়ে নাড়াচাড়া করা নয়, যৌনসঙ্গম হল ভালবাসার অভিব্যক্তি।

    তাই স্ত্রীকে শুধু যৌনক্রিয়ার মেশিন হিসেবে ভাববে না। তাকে আদর করে ধীরে ধীরে সঙ্গম শুরু করবে।তাহলেই আপনার স্ত্রী খুব আনন্দ পাবে এবং আপনাকেও আরও ভালবাসবে। এতসব করা সত্ত্বেও যদি যৌনক্রিয়ার সময় তোমার স্ত্রী ব্যাথা অনুভব করে তাহলে যোনিতে কোন লুব্রিকেটিং জেল নিজের লিঙ্গে লাগিয়ে তারপর সঙ্গম শুরু করুন।কিন্তু প্রথম যৌন সঙ্গমের সময় কিছু মহিলার সামান্য ব্যাথা লাগতে পারে। অনেকে সেই ভয়েই জড়সড় হয়ে থাকে। আপনার স্ত্রীরও এমন হলে তাকে গল্প করতে করতে বোঝান, যে ঐ সামান্য কষ্ট সহ্য করতে পারলে পরে সে অনাবিল আনন্দ পাবে। আর হ্যাঁ, কন্ডম ব্যবহার করতে ভুলবেনা।

    আরও পড়ুন: স্ত্রীর সাথে কোন ধরনের যৌনমিলন জায়েজ নয়? জেনে নিন ইসলাম কী বলে…

    স্ত্রীর সাথে কোন ধরনের- ইসলাম একটি পূর্ণাঙ্গ দ্বীন বা জীবনব্যবস্থা। আধ্যাত্মিক নীতি, স্বরাষ্ট্র নীতি, পররাষ্ট্র নীতি, সমরনীতি, বাণিজ্য নীতিসাংস্কৃতিক নীতি ইত্যাদির মতো মুসলমানদের যৌনজীবনের নির্দেশনাও দেয় ইসলাম।

    ইসলামী যৌনশিক্ষা হচ্ছে মুসলমানদের প্রধান ধর্মগ্রন্থ কুরআন, ইসলামের সর্বশেষ নবী মুহাম্মাদ (দ.) এর হাদিস, ইসলামিক নেতৃবৃন্দ কর্তৃক প্রদত্ত ফতোয়া দ্বারা জায়েজ গণ্য হয় এমন যৌন আচরণ।

    ইসলামী ফিকাহশাস্ত্র যৌনকর্মের সময় স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে পূর্বরাগের (পারস্পারিক উত্তেজনায় অংশ নেয়া) কোনও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে না। কিন্তু যৌনসঙ্গমের একটি ক্ষেত্র যা সাধারণত নিষিদ্ধ, তা হলো পায়ুসঙ্গম।

    অথচ আমাদের দেশের স্কুল-কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে ইসলামী যৌনশিক্ষা সম্পর্কে আলোচনা করা হয় না বলে এবং পাশ্চাত্যের বিভিন্ন পর্ন ভিডিও দেখে অনেক মূর্খ ব্যক্তি স্ত্রীর সাথে নাজায়েজ এই যৌনসঙ্গমে লিপ্ত হন।

    শিয়া-সুন্নি নির্বিশেষে সকল মুসলিম মুজতাহিদ এই বিষয়ে একমত যে, নিজ স্ত্রীর সাথেই একমাত্র সঙ্গম বৈধ এবং পায়ুকাম নিষিদ্ধ। তবে কুরআনের একটি আয়াতের (বাক্বারা-২২৩ ) অপব্যাখ্যার কারণে কিংবা হাদিসশাস্ত্রে জ্ঞান না থাকায় এই বিষয়ে অনেকে ভুল ধারণা পোষণ করে থাকে।

    তাই এই বিষয়ের সাথে সম্পর্কিত যে সকল হাদিস রয়েছে, তা তুলে ধরছি।তাফসিরে বর্ণিত আছে যে, মদিনার ইহুদিরা বলতো যে, ‘কেউ যদি তার স্ত্রীর সাথে পেছন দিক থেকে জরায়ুপথে সঙ্গম করে, তবে তার সন্তান ট্যাড়া চোখ নিয়ে জন্মাবে।’

    সে সময় একদিন ওমর ইবনুল খাত্তাব নবী মুহাম্মাদ (দ) এর কাছে এসে বললেন, “হে আল্লাহর রাসুল! আমি ধ্বংস হয়ে গিয়েছি!” মুহাম্মাদ (সা) প্রশ্ন করলেন, “কি তোমাকে ধ্বংস করেছে?”

    তিনি উত্তরে বললেন, “গত রাতে আমি আমার স্ত্রীকে পেছন দিকে ঘুরিয়ে ফেলেছিলাম।” (অর্থাৎ তিনি পেছন দিক থেকে তার স্ত্রীর সাথে জরায়ুপথে সহবাস করেছিলেন)। নবীজি (দ) তাকে কিছু বললেন না। এরপর এ প্রসঙ্গে নিম্নোক্ত আয়াত অবতীর্ণ হলো-

    “তোমাদের স্ত্রীরা তোমাদের শস্যক্ষেত্র, অতএব তোমরা তোমাদের শস্যক্ষেত্রে যেভাবে ইচ্ছা যেতে পারো।” কুরআন , বাক্বারা, ২২৩

    উক্ত আয়াতে স্ত্রীর সাথে জরায়ুপথে সঙ্গমকে শস্যক্ষেত্রে বীজ বপনের সাথে তুলনা করে এটি নির্দেশ করা হয়েছে যে, ইসলামে ইচ্ছেমতো যেকোন পন্থায় শুধুমাত্র জরায়ুপথেই সঙ্গম করাকে অনুমোদন দেয়া হয়েছে, কারণ শস্যক্ষেত্রে বীজ বপনের ফলে যেমন ফসল উৎপন্ন হয় ঠিক সেভাবে জরায়ুপথে সঙ্গমের ফলেই সন্তানের জন্ম হয়।

    এ আয়াত অবতীর্ণ হওয়ার পর নবী মুহাম্মাদ (দ) ওমর বিন খাত্তাবকে ডেকে উত্তর দেন, “সামনে বা পেছনে যে কোন দিক থেকে (নিজের স্ত্রীর সাথে জরায়ুপথে সংগম কর), কিন্তু পায়ুপথকে পরিহার কর এবং রজস্রাবকালে সঙ্গম থেকে বিরত থাকো।” (আহমাদ এবং তিরমিজী হতে বর্ণিত)

    সুতরাং কুরআন ও হাদিসের বিচারে পায়ুপথে স্ত্রীসঙ্গম ইসলামে সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ।

    ভিডিওটি দেখতে এই লেখার উপরে ক্লিক করুন !!!

       


    আপনার মন্তব্য লিখুন...
    Delicious Save this on Delicious

    nbs24new3 © সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
    নিউজ ব্রডকাস্টিং সার্ভিস - এনবিএস
    ২০১৫ - ২০১৮

    উপদেষ্টা সম্পাদক : এডভোকেট হারুন-অর-রশিদ
    প্রধান সম্পাদক : মোঃ তারিকুল হক, সম্পাদক ও প্রকাশক : সুলতানা রাবিয়া,
    প্রধান প্রতিবেদক : এম.এ. হোসেন, বিশেষ প্রতিবেদক : ম.খ. ইসলাম
    চট্টগ্রাম ব্যুরো প্রধান : মোঃ রাকিবুর রহমান
    ৩৯, আব্দুল হাদি লেন, বংশাল, ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ।
    ফোন : +৮৮ ০২ ৭৩৪৩৬২৩, +৮৮ ০১৭১৮ ৫৮০ ৬৮৯
    Email : nbs.news@hotmail.com, news@nbs24.org

    ইউএসএ অফিস: ৪১-১১, ২৮তম এভিনিউ, স্যুট # ১৫ (৪র্থ তলা), এস্টোরিয়া, নিউইর্য়ক-১১১০৩, 
    ইউনাইটেড স্টেইটস অব আমেরিকা। সেল: ৯১৭-৩৯৬-৫৭০৫।

    Home l About NBS l Contact the NBS l DMCA l Terms of use l Advertising Rate l Sitemap l Live TV l All Paper

    দেশি-বিদেশি দৈনিক পত্রিকা, সংবাদ সংস্থা ও অনলাইন নিউজ পোর্টাল থেকে সংগৃহিত এবং অনুবাদকৃত সংবাদসমূহ পাঠকদের জন্য সাব-এডিটরগণ সম্পাদনা করে
    সূত্রে ওই প্রতিষ্ঠানের নাম দিয়ে প্রকাশ করে থাকেন। এ জাতীয় সংবাদগুলোর জন্য এনবিএস কর্তৃপক্ষ কোনো প্রকার দায়-দায়িত্ব গ্রহণ করবেন না।
    আমাদের নিজস্ব লেখা বা ছবি 'সূত্র এনবিএস' উল্লেখ করে প্রকাশ করতে পারবেন। - Privacy Policy l Webmail