১৭ বছরেও দৃশ্যমান হয়নি মুরইছড়া ইকো পার্ক
Breaking News
Home » ৩ শিরোনাম » ১৭ বছরেও দৃশ্যমান হয়নি মুরইছড়া ইকো পার্ক

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

১৭ বছরেও দৃশ্যমান হয়নি মুরইছড়া ইকো পার্ক
এনবিএস | শনিবার, সেপ্টেম্বর ৮, ২০১৮ | প্রকাশের সময়: ১:৪৭ অপরাহ্ণ

১৭ বছরেও দৃশ্যমান হয়নি মুরইছড়া ইকো পার্ক১৭ বছরেও দৃশ্যমান হয়নি মুরইছড়া ইকো পার্ক

মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার কর্মধা ইউনিয়নে অবস্থিত মুরইছড়া ইকো পার্ক বাস্তবায়ন প্রকল্প ১৭ বছর ধরে হলুদ খামের লাল ফিতায় বন্দি রয়েছে। ২০০১ সালের ১৫ এপ্রিল এক আড়ম্বরপূর্ণ অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে ইকো পার্ক বাস্তবায়ন প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন তৎকালীন পরিবেশ ও বন মন্ত্রী সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী। প্রকল্পের প্রাক্কলিত ব্যয় ধরা হয় পাঁচ কোটি দুই লাখ ৩২ হাজার টাকা। সরকারের নিজস্ব তহবিলের অর্থায়নে ইকো পার্ক স্থাপন প্রকল্পের অধীনে এর কার্যক্রম শুরু হয়। কিন্তু শুরুতেই হোঁচট খায় এ প্রকল্প। ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন হলেও স্থানীয় আদিবাসীদের প্রতিবাদ-আন্দোলনের মুখে এর কাজ বন্ধ করে দেওয়া হয়। এরপর গত ১৭ বছরেও প্রকল্পের কাজ এগোয়নি।

মুরইছড়া ইকো পার্কের অবস্থান : কুলাউড়া রেঞ্জের কর্মধা ইউনিয়নের মুরইছড়া বিটের পৃথিমপাশা একোয়ার্ড ফরেস্টের লুথিটিলার পাদদেশে মুরইছড়া জলপ্রপাতকে ঘিরে ইকো পার্কটি অবস্থিত। কুলাউড়া উপজেলা সদর হতে রবির বাজার, বুধপাশা স্কুল বাজার, মুরইছড়া বাজার হয়ে মুরইছড়া ইকো পার্কে যাওয়া যায়। সিলেট থেকে মুরইছড়া ইকো পার্কের দূরত্ব ৮৫ কিলোমিটার। অন্যদিকে মৌলভীবাজার থেকে এর দূরত্ব ৫৭ কিলোমিটার।

মুরইছড়া ইকো পার্কের আয়তন ও সীমানা : মুরইছড়া ইকো পার্কের আয়তন ৮৩০ একর। এখানে লুথিশংখ নামে একটি জলপ্রপাত রয়েছে। এ জলপ্রপাতকে ঘিরেই ইকো পার্কটি গড়ে উঠছে। ইকো পার্কের উত্তরে পৃথিমপাশা একোয়ার্ড ফরেস্ট, দক্ষিণে ভারত, পূর্বে একোয়ার্ড ফরেস্টের বাঁশমহাল এবং পশ্চিমে মুরইছড়া চা বাগান অবস্থিত। মুরইছড়া ইকো পার্কের আশপাশে গারোদের বসবাস। ইকো পার্ক স্থাপনের ফলে তাদের কর্মসংস্থান ও আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন হবে। প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ভরপুর মুরইছড়া ইকো পার্ক সিলেটবাসীসহ দেশ-বিদেশের পর্যটকদের জন্য একটি প্রাকৃতিক চিত্তবিনোদনের কেন্দ্রে পরিণত হবে।

উদ্ভিদ ও বন্য প্রাণী : মুরইছড়া ইকো পার্কে বিভিন্ন ধরনের চিরসবুজ ও পত্রঝরা বৃক্ষ রয়েছে। রামডালা, আউয়াল, রাতা, তুন, কড়ই, হরীতকী, বহেড়া, আমলকী, জারুল, চিকরাশি, মুলিবাঁশ এর মধ্যে অন্যতম। মুরইছড়া ইকো পার্কে বিচরণকারী বন্য প্রাণীদের মধ্যে রয়েছে শিয়াল, বেজি, বন্য শূকর, কাঠবিড়ালী, বন বিড়াল, হরিণ, চিতাবাঘ, হাতি, শিয়াল, বন মোরগ, শকুন, হরিয়াল, ঘুঘু, হুতুমপেঁচা, কাঠঠোকরা, পাহাড়ি ময়না, বাবুই, গুইসাপ, গোখরা, সজারু, হনুমান, বানর প্রভৃতি।

এ ব্যাপারে মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসক তোফায়েল ইসলাম বলেন, ‘ইকো পার্কটি সম্পর্কে আমার জানা নেই। এ বিষয়ে বন বিভাগ কর্তৃপক্ষ ভালো বলতে পারবে।’

কুলাউড়া রেঞ্জের বন বিভাগের কর্মকর্তা মানিক রঞ্জন দে বলেন, ‘মৌখিকভাবে আমি জেনেছি স্থানীয় আধিবাসীদের হস্তক্ষেপের কারণে ইকো পার্কের বাস্তবায়নকাজ দৃশ্যমান হয়নি। এমনকি ইকো পার্ক নিয়ে লিখিত কোনো কাগজাদি আমি পাইনি।’ সূত্র : কালের কন্ঠ

আপনার মন্তব্য লিখুন...

Translate »