ঢাকা | মঙ্গলবার | ২৬ মে, ২০২০ | ১২ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ | ১ শাওয়াল, ১৪৪১ | English Version | Our App BN | বাংলা কনভার্টার

  • Main Page প্রচ্ছদ
  • করোনাভাইরাস
  • বিদেশ
  • বাংলাদেশ
  • স্বদেশ
  • ভারত
  • অর্থনীতি
  • বিজ্ঞান
  • খেলা
  • বিনোদন
  • ভিডিও ♦
  • ♦ আরও ♦
  • ♦ গুরুত্বপূর্ণ লিংক ♦


  • ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

    লীগ পরিবারের দিকেই কেন অভিযোগের তীর?
    এনবিএস | Thursday, April 11th, 2019 | প্রকাশের সময়: 6:34 am

    লীগ পরিবারের দিকেই কেন অভিযোগের তীর?লীগ পরিবারের দিকেই কেন অভিযোগের তীর?

    – বিভুরঞ্জন সরকার –

    দেশে দৃশ্যত কোনো রাজনীতি নেই, বিরোধী দল নেই। সব কিছু আওয়ামী লীগের দখলে, আওয়ামী লীগের নিয়ন্ত্রণে। এগুলো শুধু আওয়ামী লীগ ও সরকারবিরোধী বিএনপির অভিযোগ নয়। কাগজে-কলমে দেশে অনেক রাজনৈতিক দল আছে। রাজনৈতিক নেতাও আছেন অনেক। কিন্তু বাস্তবেও সে রকমই অবস্থা। গত ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনের পর আকস্মিকভাবেই দেশের রাজনীতির চালচিত্র বদলে গেছে। আওয়ামী লীগ ছাড়া আরো কয়েকটি দলের প্রতিনিধিত্ব সংসদে থাকলেও আওয়ামী লীগ এতো বেশি সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছে যে অন্যদের সংখ্যা সেখানে একেবারেই চোখে পড়ার মতো নয়। বিশেষ করে ক্ষমতাপ্রত্যাশী বিএনপি এতোই কম আসন পেয়েছে যা দলটিকে হতাশ ও দিশেহারা করে তুলেছে। সংসদে আওয়ামী লীগের আধিপত্য দেশের গণতান্ত্রিক রাজনীতির জন্য এক বড় ধরনের সংকট তৈরি করেছে। বিরোধী দলগুলোর প্রতি আওয়ামী লীগ ও সরকার খুব উদার নয়। তাদের কার্যক্রমে নানাভাবে বাধা দেয়া হয়। সেজন্য বিরোধী দল অভিযোগ করছে যে, দেশে বস্তুত একদলীয় শাসন এবং নিয়ন্ত্রিত গণতন্ত্র চালু হয়েছে। এ ধরনের অভিযোগ গণতান্ত্রিক রাজনীতির ঐতিহ্যবাহী দল আওয়ামী লীগের জন্য গৌরবের নয়, সুখের নয়। দেশে কীভাবে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়াকে উন্নত, ত্রুটিমুক্ত ও কার্যকর করা যায় তার জন্য চিন্তাভাবনা এবং পরিকল্পনা না করে আওয়ামী লীগ ও সরকার যেভাবে ‘কুছ পরোয়া নেহি’ মনোভাব নিয়ে চলছে তাতে সচেতন সব মানুষের মধ্যেই একধরনের শঙ্কা কাজ করছে। কখন কী হয়ে যায় সে চাপা আতঙ্কও অনেকের মধ্যেই কাজ করছে।

    যেহেতু আওয়ামী লীগ ছাড়া আর কোনো দলের উপস্থিতি বা কার্যক্রম দৃশ্যমান নয় সেহেতু দেশে ভালো-খারাপ যা কিছুই ঘটুক না কেন তার প্রশংসা-নিন্দা আওয়ামী লীগের কপালেই জুটবে। এমনিতেই আমাদের দেশে আওয়ামী লীগের নিন্দা করার লোক বেশি, প্রশংসা করার লোক কম। ‘যা কিছু হারায় গিন্নী বলেন, কেষ্টা বেটাই চোরে’র মতো যা কিছু খারাপ ঘটে তার জন্য আওয়ামী লীগকে দায়ী করতে অনেকেই মুখিয়ে থাকেন। আওয়ামী লীগও বারবার তার সমালোচকদের হাতে সুযোগ তুলে দেয়। দেশের বর্তমান রাজনৈতিক বাস্তবতায় আওয়ামী লীগের উচিত অত্যন্ত সতর্কতার সঙ্গে পথচলা। সরকার ও আওয়ামী লীগের দোষ ধরার জন্য অনেকেই খোলা চোখে অথবা চোখে চশমা এঁটে শকুনদৃষ্টিতে তাকিয়ে আছে। কিন্তু আওয়ামী লীগ ও তার সহযোগী সংগঠনগুলো বিষয়টি বুঝতে পারছে বলে মনে হয় না। যেহেতু সবকিছু তাদের নিয়ন্ত্রণে সেহেতু তারা নিজেরা অনেক ক্ষেত্রেই নিয়ন্ত্রণহীন আচরণ করছে বলে মনে হচ্ছে। আওয়ামী লীগ পরিবারের স্বেচ্ছাচারী সদস্যদের যদি লাগাম টেনে ধরা না য়ায়, তাদের বেপরোয়া আচরণ যদি নিয়ন্ত্রণ করা না যায় তাহলে দল হিসেবে আওয়ামী লীগ যেমন ক্ষতিগ্রস্ত হবে তেমনি সরকারও অহেতুক বিব্রতকর অবস্থায় পড়বে।

    সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়ার ফাজিল মাদ্রাসার শিক্ষার্থী নুসরাত জাহান রাফিকে হত্যাচেষ্টার সঙ্গেও এখন আওয়ামী পরিবারের সংশ্লিষ্টতার খবর গণমাধ্যমে প্রকাশিত হচ্ছে। মাদ্রাসার বহিষ্কৃত অধ্যক্ষ এস এম সিরাজউদদৌলার সঙ্গে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রুহুল আমিনের সুসম্পর্কের জোরেই তিনি নানা ধরনের অপকর্ম করার সাহস অর্জন করেছেন। বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় থাকতে জামায়াতের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত হয়ে সিরাজউদদৌলা বিভিন্ন অপকর্ম করেছেন। ২০১৬ সালে জামায়াত থেকে বহিষ্কৃত হওয়ার পর তিনি ভর করেন রুহুল আমিনের ওপর। তিনি অধ্যক্ষ হয়ে মাদ্রাসার বখাটে শিক্ষার্থীদের দিয়ে নিজস্ব একটি বাহিনী গড়ে তুলেছেন যারা কার্যত তার লাঠিয়াল হিসেবেই কাজ করে। এই বাহিনীতে ছাত্রলীগ-যুবলীগের কয়েকজনের সংশ্লিষ্টতার খবর পত্রিকায় ছাপা হয়েছে। নুসরাতের গায়ে যারা আগুন লাগিয়েছে তাদের মধ্যে আওয়ামী পরিবারের সদস্য হিসেবে পরিচিত কারো কারো নাম শোনা যাচ্ছে। এই অভিযোগগুলো গুরুতর। এগুলো ধামাচাপা না দিয়ে তদন্ত হওয়া প্রয়োজন। সোনাগাজীর ঘটনায় আওয়ামী পরিবারের কারো যদি সত্যিই সংশ্লিষ্টতা থাকে তাহলে তার বিরুদ্ধে কঠোর আইনি ব্যবস্থা নেয়া হোক। অপরাধীদের রাজনৈতিক পরিচয় সামনে না এনে তাদের অপরাধী হিসেবেই দেখা হোক। ময়লা কর্দমাক্ত পথে চলতে গেলে গায়ে আবর্জনা ছিটে আসা অস্বাভাবিক নয়। আবার আবর্জনা গায়ে মেখে নির্বিকার থাকাটাও স্বাভাবিক নয়। ময়লা ধুয়ে ফেলতে হয়, পরিচ্ছন্ন থাকতে হয়। আওয়ামী লীগকেও শরীর থেকে আবর্জনা ধুয়ে ফেলার কার্যকর উদ্যোগ নিতে হবে। সোনাগাজী থেকেই এই উদ্যোগ শুরু হলে দেশের মানুষ খুশি হবে।

    লেখক : গ্রুপ যুগ্ম সম্পাদক, আমাদের নতুন সময়
    [সংকলিত]

    Follow and like us:
    0
    20

    আপনার মন্তব্য লিখুন...

    nbs24new3 © সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
    নিউজ ব্রডকাস্টিং সার্ভিস - এনবিএস
    ২০১৫ - ২০২০

    সিইও : আব্দুল্লাহ আল মাসুম
    সম্পাদক ও প্রকাশক : সুলতানা রাবিয়া
    চট্টগ্রাম ব্যুরো প্রধান : মোঃ রাকিবুর রহমান
    -------------------------------------------
    শাল, ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ।
    ফোন : +৮৮ ০২ , +৮৮ ০১৭১৮ ৫৮০ ৬৮৯
    Email : news@nbs24.org, thenews.nbs@gmail.com

    ইউএসএ অফিস: ৪১-১১, ২৮তম এভিনিউ, স্যুট # ১৫ (৪র্থ তলা), এস্টোরিয়া, নিউইর্য়ক-১১১০৩, 
    ইউনাইটেড স্টেইটস অব আমেরিকা। ফোন : ৯১৭-৩৯৬-৫৭০৫।

    প্রসেনজিৎ দাস, প্রধান সম্পাদক, ভারত।
    যোগাযোগ: সেন্ট্রাল রোড, টাউন প্রতাপগড়, আগরতলা, ত্রিপুরা, ভারত। ফোন +৯১৯৪০২১০৯১৪০।

    Home l About NBS l Contact the NBS l DMCA l Terms of use l Advertising Rate l Sitemap l Live TV l All Radio

    দেশি-বিদেশি দৈনিক পত্রিকা, সংবাদ সংস্থা ও অনলাইন নিউজ পোর্টাল থেকে সংগৃহিত এবং অনুবাদকৃত সংবাদসমূহ পাঠকদের জন্য সাব-এডিটরগণ সম্পাদনা করে
    সূত্রে ওই প্রতিষ্ঠানের নাম দিয়ে প্রকাশ করে থাকেন। এ জাতীয় সংবাদগুলোর জন্য এনবিএস কর্তৃপক্ষ কোনো প্রকার দায়-দায়িত্ব গ্রহণ করবেন না।
    আমাদের নিজস্ব লেখা বা ছবি 'সূত্র এনবিএস' উল্লেখ করে প্রকাশ করতে পারবেন। - Privacy Policy l Terms of Use