ঢাকা | মঙ্গলবার | ২০ এপ্রিল, ২০২১ | ৭ বৈশাখ, ১৪২৮ | ৭ রমজান, ১৪৪২ | English Version | Our App BN | বাংলা কনভার্টার
  • Main Page প্রচ্ছদ
  • করোনাভাইরাস
  • বিদেশ
  • বাংলাদেশ
  • স্বদেশ
  • ভারত
  • অর্থনীতি
  • বিজ্ঞান
  • খেলা
  • বিনোদন
  • ভিডিও ♦
  • ♦ আরও ♦
  • ♦ গুরুত্বপূর্ণ লিংক ♦
    • NBS » ৪ শিরোনাম » বাইডেনের পদক্ষেপ: জারিফ বলছেন নিঃশর্তভাবে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করতে হবে


    ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

    কুমিল্লা দক্ষিনাঞ্চলে হলুদ-মরিচ গুড়া ভাঙ্গানো মিলে পরিবেশ দূষন পথচারীদের স্বাস্থ্যঝুঁকি বাড়ছে
    এনবিএস | Thursday, March 25th, 2021 | প্রকাশের সময়: 2:57 pm

    কুমিল্লা দক্ষিনাঞ্চলে হলুদ-মরিচ গুড়া ভাঙ্গানো মিলে পরিবেশ দূষন পথচারীদের স্বাস্থ্যঝুঁকি বাড়ছেকুমিল্লা দক্ষিনাঞ্চলে হলুদ-মরিচ গুড়া ভাঙ্গানো মিলে পরিবেশ দূষন পথচারীদের স্বাস্থ্যঝুঁকি বাড়ছে

    মশিউর রহমান সেলিম, লাকসাম : কুমিল্লার দক্ষিনাঞ্চল জুড়ে উপজেলাগুলোর পৌরশহরসহ হাট-বাজারগুলোতে জনচলাচলে এলাকার পরিবেশ দূষন ও মানবদেহে স্বাস্থ্যঝুঁকি বাড়ার অভিযোগ উঠেছে হলুদ-মরিচের গুড়া ভাঙ্গানো মিল মালিকদের বিরুদ্ধে। বিশেষ করে লাকসাম পৌরশহরের পুরাতন দৈনিক বাজার এলাকায় যত্রতত্র ভাবে গড়ে উঠেছে ওইসব মিল। 

    উপজেলাগুলোর স্থানীয় ভাবে ভুক্তভোগীদের একাধিক সূত্র জানায়, এ ব্যাপারে বহুবার স্থানীয় প্রশাসনকে জানানোর পরও কোন পদক্ষেপ এখন পর্যন্ত চোখে পড়েনি। বিশেষ করে উপজেলার গুলোর প্রতিটি হাট-বাজারে ধান ভাঙ্গানোর মিল কিংবা নতুন নতুন প্রযুক্তি নির্ভর নানাহ ব্র্যান্ডের ছোট ছোট মিল বসিয়ে চাউলের গুড়া, হলুদ, মরিচ, ডাল ও মসল্লার গুড়া ভাঙ্গানো হচ্ছে। তবে পৌরশহর দৌলতগঞ্জ পুরাতন দৈনিক বাজারের চর্তুরপাশের ব্যবসায়ীদের প্রতিনিয়ত নাজুক অবস্থার শিকার হতে হচ্ছে। ওইসব মিল চলাকালে বাতাসে হলুদ মরিচের ঝাঁজ উড়ে এসে ব্যবসায়ীদের দোকানে পড়ে এবং পথচারীদের জনচলাচলের ক্ষেত্রে আরও বিপাকে পড়তে হয়। কে শুনে কার কথা, ওইসব মিল মালিকদের দৌরাত্ব প্রতিনিয়ত বেড়েই চলেছে। মহামারী করোনাকালেও তাদের দৌরাত্ব কমাতে পারেনি স্থানীয় প্রশাসন কিংবা কোন সংস্থার লোকজন। 

    সূত্রগুলো আরও জানায়, ওইসব মিলে ভাঙ্গানো হলুদ মরিচের গুড়া বাহিরে বাতাসের সাথে মিশে এলাকার পরিবেশ দূষন এবং এলাকার মানুষকে স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে ফেলেছে। এরফলে এলাকার নারী-পুরুষসহ সকল শ্রেণি পেশার মানুষদের শ^াসকষ্ট, চোখের নানাহ সমস্যা, নিউমনিয়া, ডায়রিয়াসহ নানাহ রোগের আক্রান্ত হওয়ার আশংকা করছেন কেউ কেউ। এছাড়া কিছুদিন পূর্বে ওইসব মিলে ভাঙ্গানো মরিচের গুড়া জনৈক পথচারীর চোখে পড়ে চোখ নষ্ট হওয়ার উপক্রম হয়েছে। জনচলাচলে পথচারী কিংবা ব্যবসায়ীদের এ পরিস্থিতি থেকে মুক্তি পেতে স্থানীয় প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট বিভাগ কর্মকর্তাদের দায়িত্ব ও ভুমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকেই। 

    স্থানায় ব্যবসায়ীদের একাধিক সূত্র জানায়, এ অঞ্চলের হাট-বাজারগুলোতে যত্রতত্র ভাবে গড়ে উঠা ওইসব মিলগুলোর মালিকরা সরকারি কোন নিয়মনীতি মানছে না। সরকারি রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে অবৈধ ভাবে স্থানীয় পেশীশক্তির বদৌলতে তাদের এসব ব্যবসা চালাচ্ছেন তারা। প্রতিনিয়ত ওইসব এলাকার সড়ক দিয়ে হাজার হাজার পথচারী জনচলাচল করলেও ওইসব মিলে নেই কোন সর্তকতা কিংবা নিরাপত্তা ব্যবস্থা। এতে দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে ওইমিল গুলোর পাশ দিয়ে যাওয়া পথচারী ও আশে পাশের ব্যবসায়ীরা। জনসাধারনের এ ভোগান্তিতে যেন কোন সংস্থার মাথাব্যাথা নেই। 

    স্থানীয় একাধিক পরিবেশবিদদের সূত্র জানায়, ওইসব মিল মালিকদের বেপরোয়া দৌড়াত্বে আশে পাশের লোকজন হাঁচি ফেলতে ফেলতে বুকে শ^াসকষ্ট উঠে যায়। ওই মিলে যে সব পন্য ভাঙ্গিয়ে গুড়া করা হয় তাতেই ভেজাল। ইটের গুড়া, কাঠের গুড়া, নি¤œমানের ডালের গুড়া মিশ্রণে ভোক্তারা প্রতারিত হচ্ছেন। পাশাপাশি এলাকার পরিবেশ দূষনসহ মানবদেহের স্বাস্থ্যঝুঁকিতো আছেই যা বলার অপেক্ষা রাখে না। 

    এব্যাপারে জেলা-উপজেলা প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট দপ্তর কর্মকর্তাদের মুঠোফোনে একাধিক বার চেষ্টা করেও তাদের কোন বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি। 
     


    আপনার মন্তব্য লিখুন...

    nbs24new3 © সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
    নিউজ ব্রডকাস্টিং সার্ভিস - এনবিএস
    ২০১৫ - ২০২০

    সিইও : আব্দুল্লাহ আল মাসুম
    সম্পাদক ও প্রকাশক : সুলতানা রাবিয়া
    চট্টগ্রাম ব্যুরো প্রধান : মোঃ রাকিবুর রহমান
    -------------------------------------------
    বংশাল, ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ।
    ফোন : +৮৮ ০১৭১৮ ৫৮০ ৬৮৯
    Email : [email protected], [email protected]

    ইউএসএ অফিস: ৪১-১১, ২৮তম এভিনিউ, স্যুট # ১৫ (৪র্থ তলা), এস্টোরিয়া, নিউইর্য়ক-১১১০৩, 
    ইউনাইটেড স্টেইটস অব আমেরিকা। ফোন : ৯১৭-৩৯৬-৫৭০৫।

    প্রসেনজিৎ দাস, প্রধান সম্পাদক, ভারত।
    যোগাযোগ: সেন্ট্রাল রোড, টাউন প্রতাপগড়, আগরতলা, ত্রিপুরা, ভারত। ফোন +৯১৯৪০২১০৯১৪০।

    Home l About NBS l Contact the NBS l DMCA l Terms of use l Advertising Rate l Sitemap l Live TV l All Radio

    দেশি-বিদেশি দৈনিক পত্রিকা, সংবাদ সংস্থা ও অনলাইন নিউজ পোর্টাল থেকে সংগৃহিত এবং অনুবাদকৃত সংবাদসমূহ পাঠকদের জন্য সাব-এডিটরগণ সম্পাদনা করে
    সূত্রে ওই প্রতিষ্ঠানের নাম দিয়ে প্রকাশ করে থাকেন। এ জাতীয় সংবাদগুলোর জন্য এনবিএস কর্তৃপক্ষ কোনো প্রকার দায়-দায়িত্ব গ্রহণ করবেন না।
    আমাদের নিজস্ব লেখা বা ছবি 'সূত্র এনবিএস' উল্লেখ করে প্রকাশ করতে পারবেন। - Privacy Policy l Terms of Use