ঢাকা | শুক্রবার | ৩০ জুলাই, ২০২১ | ১৫ শ্রাবণ, ১৪২৮ | ১৯ জিলহজ, ১৪৪২ | English Version | Our App BN | বাংলা কনভার্টার
  • Main Page প্রচ্ছদ
  • করোনাভাইরাস
  • বিদেশ
  • বাংলাদেশ
  • স্বদেশ
  • ভারত
  • অর্থনীতি
  • বিজ্ঞান
  • খেলা
  • বিনোদন
  • ভিডিও ♦
  • ♦ আরও ♦
  • ♦ গুরুত্বপূর্ণ লিংক ♦


  • ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

    মায়ানমারে সেনা অভ্যুত্থানে নিহত কয়েক ডজন শিশু, বন্দি হাজার, জানাল রাষ্ট্রপুঞ্জ
    এনবিএস | Friday, July 16th, 2021 | প্রকাশের সময়: 10:35 pm

    মায়ানমারে সেনা অভ্যুত্থানে নিহত কয়েক ডজন শিশু, বন্দি হাজার, জানাল রাষ্ট্রপুঞ্জ

    এনবিএস ওয়েবডেস্ক – গত ফেব্রুয়ারি মাসে অভ্যুত্থান ঘটিয়ে মায়ানমারে ক্ষমতা দখল করে সেনাবাহিনী। শুক্রবার রাষ্ট্রপুঞ্জের চাইল্ডস রাইটস কমিটি বিবৃতিতে বলে, সেনা অভ্যুত্থানের পর থেকে অন্তত ৭৫ জন শিশু নিহত হয়েছে। আটকে রাখা হয়েছে অন্তত হাজার শিশুকে। বেশিরভাগ শিশুই শিক্ষা ও চিকিৎসা থেকে বঞ্চিত।

    গত এপ্রিলে মায়ানমারে বাড়তে থাকা হিংসার বিরুদ্ধে সরব হয় ভারত। বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র অরিন্দম বাগচি দ্ব্যর্থহীন ভাষায় বলেন, অবিলম্বে সমস্ত ধরনের অরাজকতা দূর করতে হবে। সাধারণ নাগরিকদের স্বার্থে প্রতিষ্ঠিত করতে হবে গণতন্ত্র। শান্তি ফেরাতে অ্যাসোসিয়েশন অব সাউথ-ইস্ট এশিয়ান নেশনস বা এসিয়ান-কে উদ্যোগী হওয়ার পরামর্শ দেন বাগচি। সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি বলেন, এর আগে ভারত মায়ানমারে স্বাভাবিক অবস্থা ফেরাতে আসিয়ান-কে যথাসম্ভব সাহায্য করেছিল। আগামী দিনেও ভারত মানবিক দৃষ্টিতে তাদের পাশে থাকবে।

    মায়ানমারে সেনা অভ্যুত্থানের পরে ছিন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী সালাই লিয়ান লুয়াই পালিয়ে ভারতে আশ্রয় নিয়েছেন। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক সূত্রে এমনই জানানো হয়েছে। ২০১৬ সালে ছিন প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী হন সালাই। কয়েকমাস আগে তিনি সীমান্ত পেরিয়ে মিজোরামের চম্পাই শহরে আশ্রয় নেন। ওই জায়গাটি মিজোরামের রাজধানী আইজল থেকে ১৮৫ কিলোমিটার দূরে।

    মায়ানমারের ছিন রাজ্যের সঙ্গে মিজোরামের সীমান্তরেখা ৫১০ কিলোমিটার বিস্তৃত। ওই সীমান্তে রয়েছে মিজোরামের ছয়টি রাজ্য। সেগুলি হল ছামফাই, সিয়াহা, লাওংটিলাই, সেরছিপ, নাহথিয়াল এবং সাইতুয়াল। মণিপুরের উত্তরাংশ ও বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিম অংশও মায়ানমার সীমান্তে অবস্থিত।

    স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক সূত্রে খবর, আইজলে আশ্রয় নিয়েছেন মায়ানমারের ১৬৩৩ জন। লওনগাটলাই জেলায় আশ্রয় নিয়েছেন ১২৯৭ জন। সিয়াহা জেলায় আশ্রয় নিয়েছেন ৬৩৩ জন। নাহথিয়াল জেলায় আশ্রয় নিয়েছেন ৪৭৮ জন, লুঙ্গলেই জেলায় আছেন ১৬৭ জন। সেরছিপ জেলায় ১৪৩ জন, সাইতুয়াল জেলায় ১১২ জন, কোলাসিব জেলায় ৩৬ জন ও খাওজাওল জেলায় ২৮ জন আশ্রয় নিয়েছেন।

    বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন, ছাত্র ও যুব সংগঠন ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনগুলি উদ্বাস্তুদের আশ্রয় ও খাবার দিচ্ছে। স্থানীয় মানুষও অনেককে আশ্রয় দিয়েছেন। মিজোরামের মুখ্যমন্ত্রী জোরামথাংগা বলেছেন, সরকারও আশ্রিতদের জন্য কিছু পরিমাণ অর্থ বরাদ্দ করবে।

    অন্যদিকে মণিপুর সরকার নির্দেশ দিয়েছে, কোনও সংগঠন বা ব্যক্তি যেন মায়ানমারের উদ্বাস্তুদের খাবার বা আশ্রয় না দেয়। তবে তাঁদের মধ্যে কেউ যদি গুরুতর আহত হন, তাহলে চিকিৎসা করা যেতে পারে।

    মণিপুর সরকার থেকে ইতিমধ্যে চান্ডেল, তেঙ্গনউপাল, কামজং, উখরুল এবং চূড়াচাঁদপুর জেলার ডেপুটি কমিশনারদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, মায়ানমারের লোকজন যদি বেআইনিভাবে ভারতে ঢুকতে চেষ্টা করে, তাদের বিরুদ্ধে উপযুক্ত ব্যবস্থা নিতে হবে। এখবর জানিয়েছে দ্য ওয়াল


    আপনার মন্তব্য লিখুন...

    nbs24new3 © সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
    নিউজ ব্রডকাস্টিং সার্ভিস - এনবিএস
    ২০১৫ - ২০২০

    সিইও : আব্দুল্লাহ আল মাসুম
    সম্পাদক ও প্রকাশক : সুলতানা রাবিয়া
    চট্টগ্রাম ব্যুরো প্রধান : মোঃ রাকিবুর রহমান
    -------------------------------------------
    বংশাল, ঢাকা-১০০০, বাংলাদেশ।
    ফোন : +৮৮ ০১৭১৮ ৫৮০ ৬৮৯
    Email : [email protected], [email protected]

    ইউএসএ অফিস: ৪১-১১, ২৮তম এভিনিউ, স্যুট # ১৫ (৪র্থ তলা), এস্টোরিয়া, নিউইর্য়ক-১১১০৩, 
    ইউনাইটেড স্টেইটস অব আমেরিকা। ফোন : ৯১৭-৩৯৬-৫৭০৫।

    প্রসেনজিৎ দাস, প্রধান সম্পাদক, ভারত।
    যোগাযোগ: সেন্ট্রাল রোড, টাউন প্রতাপগড়, আগরতলা, ত্রিপুরা, ভারত। ফোন +৯১৯৪০২১০৯১৪০।

    Home l About NBS l Contact the NBS l DMCA l Terms of use l Advertising Rate l Sitemap l Live TV l All Radio

    দেশি-বিদেশি দৈনিক পত্রিকা, সংবাদ সংস্থা ও অনলাইন নিউজ পোর্টাল থেকে সংগৃহিত এবং অনুবাদকৃত সংবাদসমূহ পাঠকদের জন্য সাব-এডিটরগণ সম্পাদনা করে
    সূত্রে ওই প্রতিষ্ঠানের নাম দিয়ে প্রকাশ করে থাকেন। এ জাতীয় সংবাদগুলোর জন্য এনবিএস কর্তৃপক্ষ কোনো প্রকার দায়-দায়িত্ব গ্রহণ করবেন না।
    আমাদের নিজস্ব লেখা বা ছবি 'সূত্র এনবিএস' উল্লেখ করে প্রকাশ করতে পারবেন। - Privacy Policy l Terms of Use