ঢাকা, মঙ্গলবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:৫৪ অপরাহ্ন
ধর্ষণকারী যাজককে বিয়ে করতে চান, সুপ্রিম কোর্টে কেরলের ধর্ষিতা
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :

 

ধর্ষণকারী যাজককে বিয়ে করতে চান। সুপ্রিম কোর্টের অনুমতি প্রার্থনা করে আবেদন নিগৃহীতার! সোমবার ধর্ষিতার পিটিশন সর্বোচ্চ আদালতে উঠবে। তিনি ধর্ষণে দোষী সাব্যস্ত ৫৩ বছর বয়সি কেরলের ক্যাথলিক যাজক রবিন ভাদাক্কুমচেরির জামিনের আবেদনও করেছেন যাতে তাঁদের বিয়েটা হতে পারে। ওই যাজকের ২০ বছরের কারাবাস হয়েছে। ভ্যাটিকান তাঁর সন্ত মর্যাদাও বাতিল করেছে।

ধর্ষিতা নিজের সিদ্ধান্তেই পিটিশন দাখিল করেছেন বলে জানিয়েছেন। উল্লেখ্য, ধর্ষিতাকে বিয়ের অনুমতি চেয়ে কেরল হাইকোর্টে আবেদন করেছিলেন ভাদাক্কুমচেরিও। যদিও তা খারিজ হয়ে যায়।

কান্নুরের কাছে প্যারিসের ভিকার পদে ছিলেন ভাদাক্কুমচেরি। গির্জার অর্থে চলা একটি স্কুলের ম্যানেজারও ছিলেন। সেই স্কুলেই ১১ ক্লাসে পড়তেন নিগৃহীতা। ভাদাক্কুমচেরির বিরুদ্ধে তাঁকে ধর্ষণের অভিযোগ দায়ের  করে স্কুলের বাচ্চাদের নিয়ে কাজ করা একটি চাইল্ড লাইন এজেন্সি। ২০১৭র ৭ ফেব্রুয়ারি ধর্ষিতা হাসপাতালে একটি বাচ্চার জন্ম দেন। ২৭ ফেব্রুয়ারি ভাদাক্কুমচেরিকে কোচি বিমানবন্দরের কাছে গ্রেফতার  করে পুলিশ। তিনি বিমান ধরে দেশ ছেড়ে পালানোর তোড়জোড় করছিলেন। শিশু কিশোর যৌন  নির্যাতন রোধ আইনে (পকসো) আইনে বিচার করে তাঁকে ২০১৯ এর ১৭ ফেব্রুয়ারি দোষী ঘোষণা করে থালাসেরির আদালত। জেল  হয় তাঁর।

বিচারপর্বে অবশ্য ধর্ষিতা ও তাঁর মা বেঁকে বসেন। উল্টো কথা বলেন। তা সত্ত্বেও ইতিমধ্যেই সংগৃহীত তথ্যের ভিত্তিতে বিচার অব্যাহত রেখে যাজককে দোষী ঘোষণা করে আদালত। পুলিশের চার্জশিটে চারজন নান, আরেকজন যাজক, কনভেন্টের সঙ্গে যুক্ত আরও এক মহিলাকে সহ অভিযুক্ত করা হয়েছিল। কিন্তু পর্যাপ্ত প্রমাণের অভাবে তাঁরা ছাড়া পেয়ে যান ।

খবর দ্য ওয়ালের

এনবিএস/২০২১/একে

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *