ঢাকা, বুধবার ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ০২:৫২ অপরাহ্ন
স্কুটি করে এসে হেনস্থা! চাকা তুলে, টেনে হিঁচড়ে, ড্রেনে ফেলল অসমের তরুণী
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :

দ্য ওয়াল ব্যুরো: প্রকাশ্যে দিনের আলোয় এক তরুণীকে হেনস্থা করেছিল যুবক। ৩০ জুলাই অসমের গুয়াহাটির এই ঘটনায় রুখে দাঁড়ান তরুণী। অভিযুক্ত যুবকের স্কুটি থামিয়ে, তার পেছনের চাকাটি রীতিমতো চাগিয়ে তুলে ফেলেন তিনি। টেনে হিঁচড়ে সামনের একটি ড্রেনে নিয়ে গিয়ে নামান যুবককে।
ঘটনাটির কথা ফেসবুকে পোস্ট করেন ভাবনা কাশ্যপ নামের ওই তরুণী নিজেই। ঘটনাটি লিখতে গিয়ে রাগ, ক্ষোভ, বিরক্তি উপচে পড়ে তাঁর। অভিযুক্তের নাম ওই পোস্টে জানান তিনি, সেই সঙ্গে একটি ভিডিও-ও শেয়া করেন। তরুণী জানান, রাস্তার দিকনির্দেশ জানতে চেয়ে তাঁর সামনে স্কুটি থামিয়েছিল অভিযুক্ত। এই পোস্টের পরেই অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে পুলিশ। সে কথা টুইটও করা হয়েছে গুয়াহাটি পুলিশের পেজ থেকে।
ভাবনা কাশ্যপের পোস্টে জানা গেছে, গুয়াহাটির জনবহুল রাস্তায় ওই যুবক স্কুটি নিয়ে আসছিল, তাঁর কাছে এসে জিজ্ঞেস করে, সিনাকি পথের রাস্তা কোন দিকে। ভিড়ের মধ্যে তরুণী শুনতে না পেলে, ওই যুবক আরও কাছে এগিয়ে এসে একই প্রশ্ন করে। তরুণী জানান, তিনি জানেন না। অন্য কাউকে জিজ্ঞেস করে নিতে।
অভিযোগ, এর পরেই ওই যুবক কার্যত ঝাঁপিয়ে পড়ে তাঁর উপর। মুহূর্তে থতমত খেয়ে যান তরুণী। তিনি লেখেন, “আচমকা যেন সমস্ত রাগ, যৌন আক্রমণ নিয়ে আমার শরীরের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে ছেলেটি। এক সেকেন্ডের জন্য আমি যেন চেতনা হারিয়ে ফেলি।”
কিন্তু ওই যুবক পালানোর চেষ্টা করতেই রুখে দাঁড়ান তরুণী। তিনি লিখেছেন, “আমি আর এক মুহূর্ত ভাবিনি। শরীরের সর্বোচ্চ শক্তি দিয়ে পরিস্থিতির মোকাবিলা করি। ও যখনই স্কুটির স্পিড বাড়াতে যায়, তখনই ওর পেছনের চাকা তুলে ধরি। ও যত রেস তোলে, আমিও তত চাকা তুলি। ওকে রীতিমতো টেনে হিঁচড়ে ড্রেনে নিয়ে গিয়ে ফেলি। প্রায় হাফ মিনিটের একটা যুদ্ধ যেন। সেদিন ওকে ছেড়ে দিলে ও অন্য মেয়েদের সঙ্গে আরও করত এমন।”
লেখার সঙ্গে পোস্ট করা ভিডিওয় দেখা যায়, লোকজন জড়ো হতো শুরু করেছে ঘটনাস্থলে। অভিযুক্ত যুবক তখন সকলের কাছে সাহায্য চাইছে, স্কুটিটা ড্রেন থেকে তোলার জন্য। কিন্তু কেউ তা তুলতে চাইছে না। কিছু পরে পুলিশ এসে অভিযুক্তকে নিয়ে যায়। পাঞ্জাবাড়ি এলাকার বাসিন্দা ওই যুবকের নাম মধুসানা রাজকুমার।

ভাবনা তাঁর পোস্টে আরও লেখেন, “আমি এটাই বলতে চাই, কোনও মহিলাকেই একা পেয়ে হেনস্থা করা যায় না। এই ধরনের অসুস্থ মানসিকতার লোকজনের বিরুদ্ধে, মহিলাদের নিরাপত্তার দাবিতে সমাজকেও গলা তুলতে হবে, দায়িত্ব নিতে হবে। এসব মানসিক অসুস্থ মানুষদের জন্য প্রতিদিন যেন ‘নির্ভয়া’র জন্ম না হয় এদেশে।”

ভাবনার এই পোস্টে প্রশংসা উপচে পড়েছে। তাঁর সাহস ও দৃঢ়তার প্রশংসা করেছেন সকলে। বলেছেন, এমনটাই হওয়া উচিত প্রতিটি হেনস্থার ঘটনায়।

খবর দ্য ওয়ালের 

এনবিএস ২০২১/একে

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি: