ঢাকা, শনিবার ২৭ নভেম্বর ২০২১, ০৫:০৭ পূর্বাহ্ন
‘আঁতুড়ঘরে’ ফের করোনা হানা, উহানে ১ কোটি বাসিন্দার টেস্ট করাবে চিন
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :

‘আঁতুড়ঘরে’ ফের করোনা হানা, উহানে ১ কোটি বাসিন্দার টেস্ট করাবে চিন

করোনাভাইরাসের আঁতুড়ঘরে ফের মাথাচাড়া দিচ্ছে কোভিড-১৯? চিনের উহান শহর কর্তৃপক্ষ গত এক বছরের বেশি সময়কালে প্রথম স্থানীয় স্তরে সংক্রমণের খবরে নড়েচড়ে বসেছে। সিদ্ধান্ত হয়েছে, শহরের সব বাসিন্দার কোভিড পরীক্ষা করানো হবে। উহানে ১ কোটি ১০ লাখ লোকের বাস। শহরের পদস্থ প্রশাসনিক কর্তা লি তাও বলেছেন, উহান কর্তৃপক্ষ দ্রুত সব বাসিন্দার সার্বিক নিউক্লিক অ্যাসিড টেস্টিং করাবে।

২০২০র শুরুর দিকে কঠোর লকডাউন জারি করে করোনাভাইরাসের প্রারম্ভিক সংক্রমণ রুখে দিতে পেরেছিল চিন। তারপর সেখানে দীর্ঘ প্রায় এক বছর ঘরোয়া সংক্রমণের কথা শোনাই যায়নি। কিন্তু সম্প্রতি উহানে পরিযায়ী শ্রমিকদের মধ্যে সাতটি স্থানীয় সংক্রমণের কেস ধরা পড়ে।

উহানে কোভিড ১৯ সংক্রমণ প্রথম ধরা পড়ে  ২০১৯ এর ডিসেম্বর। তবে সরকারি ভাবে করোনাভাইরাস সংক্রমণের কথা স্বীকার করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে চিন দেরি করে ফেলায় দুনিয়াব্যাপী এক অভাবনীয় স্বাস্থ্য সঙ্কট ছড়িয়ে পড়েছে যা আজও পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়নি।

উহানের অপথালমোলজিস্ট ডঃ লি ওয়েনলিয়াং চিন সরকারিভাবে কোভিড ১৯ এর অস্তিত্ব স্বীকার করার আগেই সতর্কবার্তা দিয়েছিলেন। কিন্তু বিপদ ঘন্টা বাজানো মানুষটি গত বছর ফেব্রুয়ারি  নিজেই ভাইরাসের বলি হন, যাকে কেন্দ্র করে চিনা শাসকদের বিরুদ্ধে ব্যাপক অসন্তোষ পুঞ্জীভূত হয় আমজনতার মনে।

চিনে এখনও পর্যন্ত ৯৩,১৯৩টি কোভিড ১৯ সংক্রমণ কেস ৪৬৩৬টি মৃত্যু ও ৮৭,৪০০ জনের সুস্থ হয়ে ওঠার খবর মিলেছে। তবে সরকারি পরিসংখ্যানের চেয়ে বাস্তবে সংক্রমণ, মৃত্যু সংখ্যা অনেক বেশিই হবে হয়তো। চিনের ন্যাশনাল হেলথ কমিশনের তথ্য,

মঙ্গলবার ৯০টি নতুন কোভিড সংক্রমণের খবর এসেছে। তার আগেরদিন সংক্রমণ সংখ্যা ছিল ৯৮। মঙ্গলবার যতগুলি কেস এসেছে, তার মধ্যে ৬১টি স্থানীয় স্তরে সংক্রমণের ঘটনা।

সম্প্রতি ডেল্টা ভ্যারিয়্যান্টের হানাও চিনের সামনে বিরাট চ্যালেঞ্জ হাজির করেছে। চিনের কঠোর কোভিড মোকাবিলা সিস্টেমে গণ হারে  টেস্টিং, জোরকদমে সংক্রমিত ব্যক্তির সংস্পর্শে আসা লোকজনকে খুঁজে বের করা, কোয়ারান্টিন করা, নির্দিষ্ট এলাকাভিত্তিক লকডাউনের বিধি রয়েছে।  কিন্তু ডেল্টা ভ্যারিয়্যান্টের সামনে সিস্টেম কতটা কাজে দেবে, সেটাও এবার দেখার। 

জনৈক শীর্ষস্থানীয় অর্থনীতিবিদ জুলিয়ান ইভান্স-প্রিটচার্ড সংবাদ সংস্থাকে বলেছেন, গত বছর প্রাথমিক সংক্রমণ মাথাচাড়া দেওয়ার পর ডেল্টা ভ্যারিয়্যান্ট চিনকে সবচেয়ে কঠিন পরীক্ষায় ফেলেছে। তবে পরিস্থিতি হাতের বাইরে চলে যাওয়ার আগে চিন সংক্রমণের রাশ পুরো টেনে ধরতে পারবে বলেও আশা প্রকাশ করেছেন তিনি। খবর দ্য ওয়ালরে / এনবিএস/২০২১/একে

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *