ঢাকা, মঙ্গলবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৫:২১ পূর্বাহ্ন
তালিবান ঠেকাতে আফগান সেনার পাশে আমেরিকা! মার্কিন বিমানবাহিনীকে হামলার নির্দেশ খোদ বাইডেনের
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :

তালিবান ঠেকাতে আফগান সেনার পাশে আমেরিকা! মার্কিন বিমানবাহিনীকে হামলার নির্দেশ খোদ বাইডেনের

তালিবানের বিরুদ্ধে সংঘর্ষ তুঙ্গে উঠেছে আফগানিস্তানে। এবার আফগান নিরাপত্তা বাহিনীকে সাহায্য করতে এগিয়ে এল আমেরিকা। জানা গেছে, প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন মার্কিন বিমান বাহিনীকে নির্দেশ দিয়েছেন আফগান সেনার পাশে দাঁড়ানোর জন্য।

আফগান সংবাদমাধ্যম সূত্রের খবর, আফগানিস্তানের গুরুত্বপূর্ণ শহরগুলোকে একে একে দখল করে নেওয়ার উদ্দেশ্যে এগোচ্ছে তালিবান। ইতিমধ্যেই একাধিক শহর-সহ দখল হয়ে গিয়েছে কুন্দুজ শহর। বাইডেনের নির্দেশ অনুযায়ী এবার তালিবান  ঘাঁটিগুলোতে বি-৫২ বোমারু বিমান ও এসি-১৩০ স্পেক্টার গানশিপের মাধ্যমে হামলা চালানো হবে।


শুক্রবার থেকেই তালিবানদের দাপট তুমুল পর্যায়ে পৌঁছেছে। একের পর এক শহর, সরকারি ভবন দখল করছে তারা। শুক্রবারই তারা দক্ষিণ-পশ্চিমের নিমরোজ প্রদেশের রাজধানী জারাঞ্জ দখল করে। ফের শনিবার তাদের দখলে চলে যায় জওজান প্রদেশের শেবেরগান। সেই মে মাস থেকে চলছে তালিবানদের এই আক্রমণ। সেই থেকে শুরু করে আজ অবধি যা যা ঘটেছে, তাতে উত্তরাঞ্চলীয় কুন্দুজ দখলই এযাবৎ সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা।

এলাকাবাসীর দাবি, শহরের বিভিন্ন জায়গায় রাস্তায় রাস্তায় তীব্র লড়াই চলছে। কুন্দুজ কাউন্সিলের এক সদস্য সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, নিরাপত্তা বাহিনীর কিছু সদস্য বিমান বন্দরের দিকে পিছু হটেছেন ইতিমধ্যেই।

মে মাসে আফগানিস্তান থেকে সরে আসতে শুরু করেছিল ন্যাটোবাহিনী। তখন থেকেই নতুন উদ্যমে হামলা শুরু করে তালিবান। অগাস্টের শুরুতে শোনা যায়, আফগানিস্তানের ৯০ শতাংশ এলাকা তাদের দখলে চলে গিয়েছে। এবার তারা হামলা করছে কাবুলে। শহরের গ্রিন জোনের কাছেই শোনা যাচ্ছে বিস্ফোরণের শব্দ। গোলাগুলিও চলছে ওই অঞ্চলে। গ্রিন জোনে আফগানিস্তানের গুরুত্বপূর্ণ সরকারি ভবন ও বিদেশি দূতাবাসগুলি অবস্থিত।

ইতিমধ্যেই মার্কিন বিদেশ দফতর থেকে তাদের নাগরিকদের আফগানিস্তানে যেতে বারণ করা হয়েছে। আফগানিস্তানের ক্ষেত্রে জারি করা হয়েছে লেভেল ফোর ট্রাভেল অ্যাডভাইসারি। যখন কোনও দেশে ভ্রমণ অত্যন্ত বিপজ্জনক হয়ে ওঠে, তখন তার সম্পর্কে লেভেল ফোর ট্রাভেল অ্যাডভাইসারি জারি করা হয়।

মার্কিন দূতাবাস থেকে বলা হয়েছে, কাবুলের বাইরে থেকে এখন খুব কম বিমান ছাড়ছে। ঘনঘন ক্যানসেল হয়ে যাচ্ছে বিভিন্ন ফ্লাইট। হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র জেন সাকি বলেন, “তালিবানের নিয়ন্ত্রণাধীন এলাকায় অনেকের ওপরে প্রতিশোধ নেওয়া হচ্ছে। আমরা আফগানিস্তানের পরিস্থিতির ওপরে নজর রাখছি।”

শুক্রবারই আফগান সরকার জানিয়েছিল, তাদের মিডিয়া ইনফর্মেশন দফতরের প্রধান দাওয়া খান মেনাপাল খুন হয়েছেন। তালিবান হামলা ঠেকাতে সম্প্রতি আফগানিস্তানের নানা জায়গায় বিমান হানা চালায় আমেরিকা। তাতে জঙ্গিদের অনেকে নিহত হয়। তার পরেই তালিবান প্রতিশোধ নেওয়ার কথা ঘোষণা করে।খবর দ্য ওয়ালের /এনবিএস /২০২১/একে 

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *