ঢাকা, মঙ্গলবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:৪৪ পূর্বাহ্ন
ইতালি, গ্রিসে দাবানল গ্রাস করতে আসছে শহর, নিরাপদ জায়গায় সরছেন শত শত মানুষ
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :

ইতালি, গ্রিসে দাবানল গ্রাস করতে আসছে শহর, নিরাপদ জায়গায় সরছেন শত শত মানুষ

ইতালির সমুদ্রতটে অবস্থিত শহর ক্যাম্পোমারিনো লোদি-র কাছে এগিয়ে এসেছে দাবানল। সোমবার বহু বাড়ি ও হোটেল থেকে সরিয়ে আনা হয়েছে মানুষকে। সব মিলিয়ে কয়েকশ মানুষ নিরাপদ জায়গায় আশ্রয় নিয়েছেন। আগুন নেভাতে গিয়েছে দমকল ও হেলিকপ্টার।

কয়েকদিন আগে দাবানলের ভয়ে গ্রিসের রাজধানী এথেন্স থেকেও কয়েক হাজার মানুষকে সরিয়ে আনা হয়। দাবানল এখনও শান্ত হয়নি। প্রবল হাওয়ায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে পারছেন না দমকলকর্মীরা। এক দমকলকর্মী সহ দু’জন মারা গিয়েছেন। গ্রিসের প্রধানমন্ত্রী কাইরিয়াকোস মিতসোতাকিস বলেছেন, জলবায়ুর পরিবর্তনের জন্যই দাবানল এত ভয়ংকর রূপ ধারণ করেছে।


দাবানল নিয়ন্ত্রণে আনার জন্য বিমান থেকে ‘ওয়াটার বম্বিং’ করা হচ্ছে। আগুন নেভাতে সাহায্য করার জন্য ব্রিটেন, ফ্রান্স ও আমেরিকা থেকে পাঠানো হয়েছে ওয়াটার বম্বিং এয়ারক্রাফট। ব্রিটিশ সরকারের স্বরাষ্ট্রসচিব প্রীতি প্যাটেল বলেন, গত সপ্তাহে তাঁরা গ্রিসে অভিজ্ঞ দমকলকর্মীদের পাঠিয়েছেন।

এথেন্সের কাছে এভিয়া দ্বীপেও দেখা দিয়েছে দাবানল। তার কাছেই রয়েছে অলিম্পিয়া। সেখান থেকে প্রাচীনকালে অলিম্পিক গেমসের জন্ম হয়েছিল। গ্রিস সরকারের মন্ত্রী নিকোস হারদালিয়াস জানিয়েছেন, অত্যন্ত বিপজ্জনক পরিস্থিতিতে কাজ করছেন দমকলকর্মীরা। অভুতপূর্ব তীব্রতা নিয়ে ছড়িয়ে পড়েছে দাবানল।


গত কয়েক বছরে বিশ্বের নানা প্রান্তেই দেখা গিয়েছে দাবানল। এই পরিস্থিতিতে সোমবার জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ে রিপোর্ট পেশ করতে চলেছে রাষ্ট্রপুঞ্জের ইন্টার গভর্নমেন্টাল প্যানেল অব ক্লাইমেট চেঞ্জেস (আইপিসিসি)। তাতে জলবায়ু পরিবর্তন তথা বিশ্ব উষ্ণায়ন নিয়ে বিস্তারিত বর্ণনা থাকবে বলে অনেকে আশা করছেন। এর আগে ২০১৪ সালে জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ে রিপোর্ট প্রকাশ করা হয়েছিল। গত দু’সপ্তাহ ধরে বিতর্কের পরে ওই রিপোর্ট অনুমোদন করেছে ১৯৫ টি দেশ।

২০১৪ সালে জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ে রিপোর্ট প্রকাশিত হওয়ার পর পরিস্থিতির অনেক পরিবর্তন হয়েছে। আবহবিদরা এখন অনেক উন্নত মানের যন্ত্রপাতি নিয়ে কাজ করেন। তার ফলে বিশ্ব জুড়ে তাপমাত্রা কী হারে বাড়ছে, আগামী দিনে কীভাবে বাড়বে, তা আরও ভালভাবে নির্ধারণ করা যায়।

পরিবেশবিদরা বলেছেন, ওই রিপোর্টে বিভিন্ন দেশকে বলা হবে, অনিলম্বে সতর্ক হওয়া প্রয়োজন। গ্রিনহাউস গ্যাসের নির্গমন যে করেই হোক কমাতে হবে। না হলে হাতের বাইরে চলে যাবে পরিস্থিতি। রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে, মানুষের কার্যকলাপে কয়েকটি ক্ষেত্রে পরিবেশের এমন ক্ষতি হয়েছে, যা পূরণ হতে কয়েকশ বছর, এমনকি হাজার বছরও লেগে যেতে পারে।খবর  দ্য ওয়ালের /এনবিএস/২০২১/একে


 

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *