ঢাকা, শনিবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২:১৯ পূর্বাহ্ন
মার্কিন সেনা সরছে, বাইডেন বললেন, আফগানরা নিজেরাই লড়াই করুক
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :

মার্কিন সেনা সরছে, বাইডেন বললেন, আফগানরা নিজেরাই লড়াই করুক

 মঙ্গলবার সন্ধ্যায় আফগানিস্তানের বাঘলান প্রদেশের পুল ই খুমরি শহরটি দখল করেছে তালিবান। তাদের দাবি, দেশের ৯০ শতাংশ জমি তাদের দখলে। এই অবস্থায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বললেন, আফগানিস্তানের নেতাদেরই এখন তাঁদের মাতৃভূমির জন্য লড়াই করতে হবে।

পুল ই খুমরি শহর তালিবানের হাতে যাওয়ার পরে আফগান সেনা পালাচ্ছে কেলাগি মরুভূমির দিকে। সেখানে আফগান সেনার বড় ঘাঁটি রয়েছে। বাইডেন বলেছেন, মার্কিন সেনা সরিয়ে আনার সিদ্ধান্ত থেকে তিনি সরছেন না। গত ২০ বছরে ওয়াশিংটন আফগানিস্তানে ১ হাজার কোটি ডলারের বেশি খরচ করেছে। হাজার হাজার মার্কিন সেনা নিহত হয়েছেন।


আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট আশরফ গনি বলেন, তিনি আঞ্চলিক গোষ্ঠীপতিদের থেকে সাহায্য চাইবেন। আফগানিস্তানের সাধারণ মানুষের প্রতি তিনি আহ্বান জানিয়েছেন, গণতন্ত্র রক্ষার জন্য লড়াই করুন।

বুধবার জানা যায়, আফগানিস্তানের উত্তরে মাজার ই শরিফ শহরটি ঘিরে ফেলেছে তালিবান। ছত্রভঙ্গ হয়ে গিয়েছে সরকারি সেনাবাহিনী। তাদের ঐক্যবদ্ধ করার জন্য শহরে গেলেন প্রেসিডেন্ট আশরফ গনি। গত শুক্রবার থেকে দেশের মোট ন’টি শহর দখল করেছে তালিবান। মাজার ই শরিফ যাতে জঙ্গিরা দখল না করতে পারে, সেজন্য হাড্ডাহাড্ডি লড়াই চালাচ্ছে আফগান সেনা। আশরফ গনি বিবৃতিতে বলেছেন, দেশের উত্তরাঞ্চলের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা দরকার। সেজন্য আমি মাজার ই শরিফে যাচ্ছি।

বর্তমানে প্রতিদিনই শহরের ওপরে হামলা চালাচ্ছে তালিবান। শহরতলি অঞ্চল ইতিমধ্যে চলে গিয়েছে তাদের দখলে। প্রেসিডেন্ট আশরফ গনি সম্ভবত মাজার ই শরিফে গিয়ে স্থানীয় স্ট্রংম্যান আত্তা মহম্মদ নুরের সঙ্গে কথা বলবেন। এছাড়া কুখ্যাত গোষ্ঠীপতি আবদুল রশিদ দস্তুমের সঙ্গেও তাঁর আলোচনা হতে পারে। তালিবানকে ঠেকানোর জন্য তিনি নুর ও দস্তুমের সাহায্য চাইবেন।

মাজার ই শরিফ যদি তালিবানের দখলে যায়, তাহলে আফগানিস্তানের উত্তরাঞ্চল পুরোপুরি সরকারের হাতছাড়া হয়ে যাবে। একসময় তালিবান বিরোধী মিলিশিয়ার বড় ঘাঁটি ছিল ওই অঞ্চলে। মাজার ই শরিফের পূর্বে বদখশানের রাজধানী ফৈজাবাদ কিছুদিন আগেই হাতছাড়া হয়েছে সরকারের। তালিবান সোশ্যাল মিডিয়ায় জানিয়েছে, ওই শহর এখন তাদের দখলে।

মাজার ই শরিফের অদূরে আইবক শহরটি ইতিমধ্যে দখল করে নিয়েছে তালিবান। শহরে অবস্থিত সরকারি ভবনগুলিতে ঢুকে পড়েছে তারা। শহরে সরকারি ফৌজকে দেখা যাচ্ছে না। স্থানীয় আয়কর অফিসের কর্মী শের মহম্মদ আব্বাস বলেন, শহরবাসীদের অনেকে বাড়ি থেকে বেরোতে সাহস পাচ্ছেন না। কেউ কেউ কাবুলের পথে রওনা হয়েছেন। কিন্তু কাবুলও এখন আর নিরাপদ নয়। ​খবর  দ্য় ওয়ালের  / এনবিএস / ২০২১ / একে

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *