ঢাকা, সোমবার ২৫ অক্টোবর ২০২১, ০১:৩১ পূর্বাহ্ন
কোভিড ভ্যাকসিন নিতে নারাজ, চাকরি থেকে বরখাস্ত বায়ুসেনার কর্মী
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :

কোভিড ভ্যাকসিন নিতে নারাজ, চাকরি থেকে বরখাস্ত বায়ুসেনার কর্মী
 ভারতীয় বায়ুসেনায় প্রত্যেক কর্মীর কোভিড ভ্যাকসিন নেওয়া বাধ্যতামূলক। এক কর্মী ভ্যাকসিন নিতে রাজি না হওয়ায় তাঁকে বরখাস্ত করা হয়েছে। বুধবার গুজরাত হাইকোর্টে এমনই জানিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। অতিরিক্ত সলিসিটর জেনারেল দেবাং ব্যাস বিচারপতি এ জে দেশাই ও বিচারপতি এ পি থাকেরকে নিয়ে গঠিত ডিভিশন বেঞ্চের সামনে জানান, বায়ুসেনার ন’জন কর্মী ভ্যাকসিন নিতে অস্বীকার করেছিলেন। তাঁদের কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছিল। তাঁদের মধ্যে একজন নোটিশের জবাব দেননি। তাই তাঁকে বরখাস্ত করা হয়েছে।

বায়ুসেনায় ভ্যাকসিন নেওয়া বাধ্যতামূলক করার বিরুদ্ধে গুজরাত হাইকোর্টে আবেদন করেন কর্পোরাল যোগেন্দ্র যাদব। অতিরিক্ত সলিসিটর জেনারেল অবশ্য জানাননি, কাকে বরখাস্ত করা হয়েছে। তিনি বলেন, সারা দেশে মাত্র ন’জন বায়ুসেনার কর্মী ভ্যাকসিন নিতে চাননি। তাঁদের শো-কজ নোটিশ দেওয়া হয়েছিল। একজন তার জবাব দেননি। তাই তাঁকে বরখাস্ত করা হয়েছে।


দেবাং ব্যাস বলেন, সাধারণ নাগরিকরা ইচ্ছা করলে ভ্যাকসিন নাও নিতে পারেন। কিন্তু বায়ুসেনার কর্মীদের ক্ষেত্রে ভ্যাকসিন নেওয়া বাধ্যতামূলক। হাইকোর্টে আবেদনকারী যোগেন্দ্র কুমার ভ্যাকসিন নিতে চাননি। কিন্তু তিনি শো-কজের জবাব দিয়েছিলেন। দেবাং ব্যাস বলেন, আর্মড ফোর্সেস ট্রাইব্যুনাল অ্যাক্ট অনুযায়ী তিনি ওই ট্রাইব্যুনালের সামনে নিজের বক্তব্য জানাতে পারেন। হাইকোর্ট বায়ুসেনাকে বলেছে, যোগেন্দ্র কুমারের বিষয়টি যেন বিবেচনা করা হয়।


২০২১ সালের ১০ মে যোগেন্দ্র কুমারকে শো-কজ নোটিশ দেওয়া হয়। বায়ুসেনা জানতে চায়, ভ্যাকসিন নিতে অস্বীকার করার জন্য তাঁকে বরখাস্ত করা হবে না কেন? এই শো-কজ বাতিল করার জন্য যোগেন্দ্র কুমার হাইকোর্টের শরণাপন্ন হন। তিনি আর্জি জানান, বায়ুসেনায় যেন ভ্যাকসিন নেওয়া বাধ্যতামূলক না করা হয়।

ইতিমধ্যে কেরল সরকারের একটি নির্দেশ নিয়েও হাইকোর্টে মামলা হয়েছে। সরকারি নিয়মা অনুযায়ী যাঁরা দু’সপ্তাহ আগে কোভিড ভ্যাকসিনের অন্তত একটি ডোজ  নিয়েছেন, যাঁদের ৭২ ঘন্টা আগের আরটি-পিসিআর নেগেটিভ সার্টিফিকেট আছে শুধু তাঁরাই দোকানপাটে যেতে পারবেন, জনসমক্ষে চলাফেরা করতে পারবেন। ভ্যাকসিনের একটি ডোজও নেননি, এমন কেউ  পারবেন না।

সরকারি আদেশের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়ে কেরল হাইকোর্টে পিটিশন দিয়েছেন জনৈক ব্যক্তি, যিনি একটিও ভ্যাকসিন নেননি এখনও। পওলি ভাডাক্কান নামে ওই ব্যক্তি তাঁর কৌঁসুলি জোমি কে জোসের মাধ্যমে আদালতে সওয়াল করেছেন, তিনি একা থাকেন, মুদি দোকান থেকে নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী কিনে আনার কেউ বাড়িতে নেই।  তিনি তাহলে কী করবেন?  তাঁর ও তাঁর মতো এখনও একটিও ভ্যাকসিন না পাওয়া নাগরিকদের কার্যত গৃহবন্দি করে রাখা হয়েছে বলে সওয়াল করেছেন পওলি। খবর দ্য ওয়ালের / এনবিএস/২০২১/একে

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *