ঢাকা, সোমবার ২৫ অক্টোবর ২০২১, ১২:৩৫ পূর্বাহ্ন
SIM Card Lock না করলে আপনি যে সমস্ত বিপদে পড়তে পারেন
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :


বিসমিল্লাহির রহমানির রাহিম, বন্ধুরা সবাই কেমন আছেন? আশাকরি মহান আল্লাহর অশেষ মেহেরবানিতে সবাই নিজ নিজ স্থানে ভালো ও সুস্থ আছেন।

বন্ধুরা আজ আমি আপনাদের মাঝে নিয়ে এসেছি অনেক মজার ও খুব গুরুত্বপূর্ণ একটি টপিক। তাই আমি আশাকরি আজকের এই টিউন ভালো করে শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত দেখবেন ও পড়বেন।

বন্ধুরা আমি নিশ্চিত যে আপনার হাতে একটি অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল রয়েছে। আর যেহেতু আপনার হাতে একটি অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল রয়েছে তাই নিশ্চয় আপনি কোন না কোন সিম কার্ড ব্যবহার করছেন।
বন্ধুরা আজকের টপিক হলো আপনার হাতে থাকা অ্যান্ড্রয়েড মোবাইলে যে Sim Card রয়েছে সেটি লক না করলে আপনি কি কি বিপদে পড়তে পারেন। Sim pin বা Sim Lock কি এই বিষয় প্রায় সবাই জানেন কিন্তু বেশিরভাগ মানুষের কাছে এই এই বিষয়টি খুব সাধারণ মনে হয়। আর এটা করা না থাকলে আপনি কিন্তু কিছু বিপদের সম্মুখীন হতে পারেন। বন্ধুরা আজ আমি আপনাদের সব বলব সিম লক কিভাবে করবেন, কেন করবেন, আর না করলে কি কি বিপদে পড়তে পারেন। বন্ধুরা প্রথমে আমি আপনাদের বলে দিব কেন সিম কার্ড লক এত জরুরি, তারপর দেখিয়ে দিব কিভাবে সিম কার্ড লক করবেন।

তাহলে চলুন বন্ধুরা আর দেরি না করে মূল টপিকে চলে যাই।

কেন সিম কার্ড লক করবেন।

আমাদের স্মার্ট ফোনে এখন কিন্তু আমাদের যাবতীয় সব কিছু থাকে। আর আমরা স্মার্ট ফোনের সিকিউরিটি নিয়ে অনেক বেশি চিন্তিত থাকি। আর আমরা এই চিন্তা থেকে সবার আগে যা করার চেষ্টা করি সেটা হচ্ছে, আমরা আমাদের স্মার্ট ফোনে সিকিউরিটি, পিন লক, পেটার্ন লক, ফেস লক, ফিঙ্গারপ্রিন্ট, টার্চ লক ইত্যাদি ব্যবহার করে থাকি। বন্ধুরা যদি কোন সময় আমাদের ফোনটা হারিয়ে যায় তাহলে যাতে ফোনটা কেউ অপব্যবহার করতে না পারে। কিন্তু আপনি কি কখনো এটা চিন্তা করেছেন আপনার ফোন হয়ত, পিন লক, পেটার্ন লক, ফেস লক, ফিঙ্গারপ্রিন্ট, টার্চ লক করা আছে কিন্তু আপনার মোবাইল যে চুরি করেছে সে কিন্তু সিম কার্ড খুলে অন্য কোন মোবাইলে ব্যবহার করতে পারে। আর সেক্ষেত্রে আপনার এই নাম্বার দিয়ে যদি, ফেসবুক, ইমু, বিকাশ, নগদ, রকেট ইত্যাদি যদি আপনার সিম নাম্বার দিয়ে খোলা থাকে তাহলে চোর কিন্তু তা ব্যবহার করতে পারবে, জিনিসটা কিন্তু অনেক বিপদ জনক। বন্ধুরা এখন চিন্তা করেন আপনার সিম কার্ড যদি লক করা থাকে তাহলে যে এই সিম কার্ডটি পাবে বা চুরি করবে সে আর এই সিম ব্যবহার করতে পারবে না। কারণ পর পর ৩ বার ভুল পিন দিলে সিম কার্ড লক হয়ে যাবে। ভুল পিন ৩ বার দেওয়ার পরে সিম কার্ড লক হওয়ার পরে আনলক করতে হলে পাক কোড লাগবে। আর পাক কোড নাম্বারের কার্ডটি থাকবে শুধু আপনার কাছে। তাহলে বন্ধুরা এই লক করা সিম কার্ড অন্য মোবাইলে ব্যবহার করা অসম্ভব বলতে পারেন।

তাহলে চলুন বন্ধুরা দেখে নেই কি করে আপনি খুব সহজেই আপনার সিম কার্ড লক করতে পারেন।

একটা কথা মনে রাখবেন একেকটা মোবাইলের সেটিংস সিস্টেম কিন্তু একেক রকম। তাই আপনাকে এই সেটিংস গুলো খুঁজে বের করতে হবে।

১. আপনার সিম কার্ড লক করার জন্য প্রথমে আপনাকে আপনার ফোনের সেটিংসে চলে যেতে হবে।

২. Biometrics of Security এই অপশনে চলে যাবেন।

৩. তারপর একটু নিচে Other Security Settings এখানে ক্লিক করবেন।

৪. তারপর একটু নিচে আসার পরে এখানে দেখুন Set up Sim Card Lock এখানে ক্লিক করবেন। এখানে একটি সিম কার্ড থাকলে একটা দেখাবে আর দুটি থাকলে দুটি দেখাবে।

৫. তারপর এই বার্টনে ক্লিক করবেন।

৬. এই বার্টনে ক্লিক করার পরে পিন কোড চাইবে। একটা কথা আপনি যখন সিম কিনবেন তখন একটা কার্ডে পিন কোড ও আরেকটি কোডে পাক কোড থাকবে।

৭. এখানে পিন কোড দিবেন, পিন কোড দিয়ে ওকে করে দিবেন।

এখন আপনি যখন আপনার মোবাইল রিস্টার্ট করবেন তখন কিন্তু পিন চাইবে। অথবা অন্য কোন মোবাইলে সিম কার্ড কানেক্ট করলে পিন চাইবে। পিন দিয়ে সিম ব্যবহার করতে হবে। বন্ধুরা আমি আগেই বলেছি আমার মতো সবার এই রকম সেটিংস থাকবে না, তবে সবার মোবাইলে আছে। আপনারা শুধু খোঁজে বের করতে হবে।

বন্ধুরা এটা ছিলো কিভাবে আপনি Sim Card Lock করতে পারেন। প্রায় বেশির ভাগের ক্ষেত্রে 1234 পিন কোড থাকে। তাই এটি নিরাপদ নয়। কারণ চোর আপনার সিম চুরি করার পর অবশ্যই 1234 দিয়ে ট্রাই করতে পারে। তাই যদি সে 1234 দেয় তাহলে Lock খুলে যাবে, তাই পিন চেঞ্জ করতে হবে। বন্ধুরা পিন চেঞ্জ করার জন্য আপনাকে যা যা করতে হবে।

৮. Change Sim card pin এখানে ক্লিক করতে হবে।

৯. তারপর এখানে আপনার আগে দেওয়া পিন কোড বসিয়ে ওকে করে দিবেন।

১০. এখানে আপনি নতুন যে পিন কোড দিতে চাচ্ছেন তা বসিয়ে ওকে করে দিবেন।

১১. আবার এখানে উপরে নতুন যে পিন কোড বসিয়ে ছিলেন সেটি আবার দিয়ে কনফার্ম করে ওকে তে ক্লিক দিবেন।

১২. এখানে দেখুন Sim pin Changed successfully দেখাচ্ছে।

তার মানে আপনার কাজ শেষ। এখন যদি আপনি এই সিম অন্য কোন মোবাইলে ব্যবহার করতে চান বা আপনার ফোন রিস্টার্ট করেন তাহলে কিন্তু সিম পিন দিয়ে ব্যবহার করতে হবে। আর পর পর ৩ বার যদি আপনি ভুল পিন দেন তাহলে কিন্তু আপনাকে পাক কোড দিয়ে আনলক করতে হবে। আর পাক কোড কোথায় পাবেন সেটা আগেই বলেছি আমি।

এখন কথা হলো আপনি যদি পর পর ১০ বার ভুল পাক কোড দেন তাহলে কিন্তু আপনার সিম Disable হয়ে যাবে। আর যদি আপনার সিম Disable হয়ে যায় তাহলে করণী কি সেটা এখন বলছি। যদি আপিনার সিম কোন কারনে Disable হয়ে যায় তাহলে ওই সিম কোম্পানির কাস্টমার কেয়ারে কল দিতে হবে। অন্য কারো নাম্বার থেকে দিবেন, কারণ আপনার সিম তো Disable হয়ে আছে। কাস্টমার কেয়ার থেকে ভেরিফাই করার পরে ওরা আপনাকে পাক কোড দিয়ে দিবে যেটা দিয়ে আপনি আপনার সিম আনলক করতে পারবেন।

বন্ধুরা এই ছিলো আজকের টপিক, আশাকরি সবার ভালো লেগেছে। এতক্ষণ ধৈর্য সহকারে আমার এই টিউন দেখার ও পড়ার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ। আশাকরি আজকের এই টিউন সবাই খুব সজেই বুঝতে পেরেছেন। আজকের মতো এখানেই বিদায় নিচ্ছি, দেখা হবে আবার নতুন কোন টিউনে নতুন কোন বিষয় নিয়ে ততক্ষণ সবাই ভালো ও সুস্থ থাকুন আল্লাহ হাফেজ।

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *