ঢাকা, সোমবার ২৫ অক্টোবর ২০২১, ১২:১১ পূর্বাহ্ন
কয়েকটি সেটিংস করে নিজের ফোন ম্যালওয়্যার ও ভাইরাস থেকে রক্ষা করুন
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :


বিসমিল্লাহির রহমানির রাহিম, বন্ধুরা সবাই কেমন আছেন? আশাকরি মহান আল্লাহর মেহেরবানিতে সবাই নিজ নিজ স্থানে ভালো ও সুস্থ আছেন।

বন্ধুরা পৃথিবীতে এমন মানুষ খুব কম যারা অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল ব্যবহার করে না। আর যারা অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল ব্যবহার করে তাদের মধ্যে অনেকেই একটা সমস্যার মাঝে পড়ে আছেন, আর সেটি হলো আপনার মোবাইল, স্লো কাজ করে, হ্যাঙ করে, মাঝে মাঝে অফ হয়ে যায়। এগুলো করে বেশির ভাগ ক্ষেত্রে মোবাইলে ভাইরাস আক্রমণের কারণে। বন্ধুরা আপনারা কি জানেন মোবাইলে ভাইরাস কিভাবে ঢুকে? এবং যদি ভাইরাস আক্রমণ করে তাহলে আপনার করণীয় কি। ওসব ব্যাপারে বিস্তারিত বলব আজকের এই টিউনে।

তাহলে চলুন আর দেরি না করে মূল টপিকে চলে যাই।

কিভাবে আপনার মোবাইলে ম্যালওয়্যার বা ভাইরাস ঢুকতে পারে? সেইফ থাকবেন কীভাবে

প্রথমেই বলি কিভাবে আপনার মোবাইলে ম্যালওয়্যার বা ভাইরাস ঢুকতে পারে এবং আপনি কি কি করলে আপনার মোবাইলকে সেভ রাখতে পারবেন।

আমরা এমন কিছু ব্রাউজ ব্যবহার করি যার ফলে ওই ব্রাউজ গুলোতে অনেক উল্টো পাল্টো লিংক থাকে। আর আমরা না বুঝে ওই লিংক গুলোতে ক্লিক করে আর ওই লিংক গুলোতে ক্লিক করার ফলে আরও উল্টো পাল্টো সাইটে নিয়ে যায়। আর এখান থেকে অনেক কিছু ডাউনলোড হয়ে যাচ্ছে আপনি কিছু করার আগেই, আর এগুলোর সাথে ভাইরাস ও ম্যালওয়্যার ঢুকে যাচ্ছে যা আপনি বুঝতেই পারছেন না। এখন এই যে লিংক গুলোতে ক্লিক করে আপনি যে উল্টো পাল্টো সাইটে প্রবেশ করছেন সেগুলোর মধ্যে কোনটি সেভ তা বুঝার একটা সহজ রাস্তা আছে। যে সাইটের Address এ Https আছে সেটি আসলে আপনার জন্য নিরাপদ। আর যেসব সাইটে এই Https নেই সেই সাইট গুলো থেকে আপনাকে দূরে থাকা উচিত।

মোবাইলে ভাইরাস বা ম্যালওয়্যার ঢুকার আরেকটি রাস্তা হলো – আমাদের প্রয়োজনেই কিন্তু আমাদের গুগল প্লে-স্টোর এর বাইরে থেকে বিভিন্ন সফটওয়্যার ডাউনলোড করতে হয়। বন্ধুরা প্লে-স্টোর এর বাইরে থেকে কোন সফটওয়ার ডাউনলোড করলেই যে ভাইরাস ঢুকবে জিনিসটা কিন্তু এরকম না। এমন কোন সাইট যে সাইট আপনি চিনেন না এবং এই সাইট সম্পর্কে আপনার কোন ধারণা নেই এরকম সাইট থেকে সফটওয়্যার ডাউনলোড করে ইন্সটল করলে ওই সফটওয়্যারের সাথে ভাইরাস বা ম্যালওয়্যার ঢুকে যেতে পারে। তারপরেও যদি নিতান্তই কোন অ্যাপস ডাউনলোড করতেই হয় তাহলে সেটা একটু বুঝে শুনে করতে হবে।

আপনি যখন ফেসবুকিং করবেন বা ইউটিউবিং করবেন তখন দেখবেন আপনার সামনে একটা Ads আসবে, যেখানে লেখা থাকবে আপনার ফোনটা ভাইরাসে আক্রান্ত আপনার ফোনটা ক্লিন করতে হবে ক্লিন করতে হলে একটা লিংক দিয়ে বলবে এখানে ক্লিক করুন। আর ওই লিংকে ক্লিক করার পর দেখা যায় ওরা বলছে একটা অ্যাপস ডাউনলোড করার জন্য যার মাধ্যমে নাকি আপনার ফোনটা ক্লিন হবে। এটা আসলে একটা ফাদ অনেকেই এই ব্যাপার জানেন যারা জানেন তারা দেখা যায় ওই ট্যাপ টাই Close করে দেন। কিন্তু যারা জানেন না তার মনে করেন সত্যি আমার ফোনে ভাইরাস ঢুকে গেছে তাই ওই লিংকে ক্লিক করে উল্টো আর ভাইরাস নিয়ে আসেন আপনার ফোনে। তাহলে এই Ads বা মেসেজ থেকে সাবধান এরকম যদি আসে আপনার সামনে তাহলে ওই ট্যাপ Close করে দিবেন।

আপনার ফোনে ভাইরাস ঢুকে যাওয়ার আরেকটি সহজ মাধ্যম হচ্ছে আপনার ফোনের Shareit। অনেক সময় আমরা আমাদের বন্ধু বান্ধব বা পরিচিত কোন ব্যক্তির কাছ থেকে Shareit এর মাধ্যমে কোন ফাইল বা ভিডিও আদান প্রদান করি। তাহলে বন্ধুরা আমাদের একটা ভুল ধারণা আছে আর সেটি হলো আমরা মনে করে Shareit এর মাধ্যমে কিছু আদান প্রদান করলে কিছুই হবে না কারণ আমি তো কোন কিছু আর ডাউনলোড করছি না, তাই আমার ফোনে ভাইরাস ঢুকার কোন রাস্তা নেই। কিন্তু আপনি যে ফোন থেকে যে ফাইল নিচ্ছেন ওই ফাইলেই যদি ভাইরাস থেকে থাকে তাহলে আপনার ফোনেও ওই ফাইলের সাথে ভাইরাস আসবেই।

যদি ভাইরাস ঢুকেই যায় তাহলে কি কি করণীয়?

 

এগুলো গেলো কিভাবে আপনার ফোনে ভাইরাস ঢুকতে পারে এবং কিভাবে ভাইরাস গুলোকে এড়িয়ে চলতে পারবেন। এখন বলব কিভাবে আপনি আপনার ফোনটাকে আরও শক্তিশালী করতে পারে। আর যদি ভাইরাস ঢুকেই যায় তাহলে কি কি করণীয়।

আপনারা যদি প্লে-স্টোরে গিয়ে সার্চ করেন Antivirus Apps তাহলে দেখবেন হাজার হাজার Free Antivirus Apps চলে আসবে আপনার সামনে। এই Free Antivirus ডাউনলোড করে আপনারা Happy থাকেন যে আপনার ফোন সেভ আছে। কিন্তু আপনার ফোনে ডাউনলোড করা Free antivirus আপনার ফোনকে কোন নিরাপত্তা দিতে পারবে না। Free Antivirus আপনার ফোনের জায়গা দখল করে এবং বিভিন্ন কারণে আপনার ফোনকে স্লো করে দেয়।

বন্ধুরা আপনার ফোনে যদি কোন Free Antivirus থাকে তাহলে সেটিকে আপনি ডিলিট করে দিতে পারেন, কারন সেটি আপনার ফোনকে কোন নিরাপত্তা দিচ্ছে না। অনেকেই দেখা যায় যে তাদের ফোনকে রিসেট করে দেয়। সে ক্ষেত্রে আপনার ফোনে থাকা, ছবি, ফাইল, ভিডিও, অডিও ইত্যাদি ডিলিট হয়ে যায়। এটা কিন্তু কোন সমাধান না যে আপনি কয়েক দিন পর পর ফোন রিসেট করবেন আবার সব ইন্সটল করে ঠিক করবেন। তাহলে উপায় কি? আমার মনে দুটি উপায় আছে।

কিভাবে Android এর কিছু সেটিংস চেঞ্জ করে সেইফ থাকবেন

ব্রাউজারের প্রতি একটু সাবধান হতে হবে। আপনি কোন ব্রাউজার টি ব্যবহার করছেন সেটি একটু ভালো করে দেখতে হব। যেমন কিছু ব্রাউজার আছে যেগুলো নিজেরাই আপনার ফোনের তথ্য চুরি করে কিংবা ম্যালওয়্যার ভাইরাস ঢুকিয়ে দেয়। আর ব্রাউজার ব্যবহারের ক্ষেত্রে আমার কাছে মনে হয় Google Chrome অনেকটাই সেভ। আর এই Google Chrome এ যদি কিছু সেটিংস করা হয় তাহলে আরও সেভ থাকা যায়।

তাহলে চলুন বন্ধুরা সেটিংস গুলো দেখে নেই।

১. প্রথমেই চলে যেতে হবে আপনার ফোনের Google chrome এ।

২. Google chrome এর উপরের ডান পাশে যে থ্রি ডট আছে এখানে ক্লিক করবেন।

৩. ক্লিক করার পর এখান থেকে সেটিংসে চলে যাবেন।

৪. তারপর একটু নিচের দিকে পাবেন Privacy এখানে ক্লিক করবেন।

৫. এখানে একটি অপশন দেখতে পাবেন Safe browsing।

৬. এখান থেকে Enhanced protection এটি সিলেক্ট করে নিবেন।

৭. তারপরে একবার আপনার ফোনের বেক বার্টনে ক্লিক করবেন।

৮. একটু নিছে পাবেন Site settings এখানে ক্লিক করবেন।

৯. তারপর একটু নিচে পাবেন Pop-ups and redirect এখানে ক্লিক করবেন।

১০. Pop-ups and redirect এই যে অপশন এটি অফ করে দিবেন।

১১. তারপরে আবারও আপনার ফোনের বেক বার্টনে ক্লিক করবেন।

১২. Pop-ups and redirect এর নিচেই দেখতে পাবেন Ads এর উপরে ক্লিক করবেন।

 

১৩. এই যে Ads যদি Allowed থাকে তাহলে এটি অফ করে দিবেন। তাহলে কিছু সাইটের আজেবাজে যে Ads গুলো আছে সেগুলো আর আপনার ফোনে আসবে না। তাহলে আর আপনি ওই ফালতু লিংক পাবেন না, যার ফলে আপনি অনেকটাই সেভ থাকবেন।

এরপর আপনাকে দ্বিতীয় আরেকটি সেটিংস করে নিতে হবে।

১. দ্বিতীয় সেটিংস করার জন্য আপনাকে চলে যেতে হবে আপনার ফোনের গুগল প্লে-স্টোরে।

২. প্লে-স্টোরে উপরে ডান পাশে যে প্রোফাইলের আইকন আছে এখানে ক্লিক করবেন।

৩. এখানে দেখতে পাবেন Play protect এখানে ক্লিক করবেন।

৪. তারপরে এখানে Scan এখানে ক্লিক করুন, এখানে ক্লিক করলে প্লে-স্টোর থেকে অটো স্ক্যান করে দিবে।

বন্ধুরা এই ছিলো আজকের টপিক, আশাকরি সবার ভালো লেগেছে। আজকের মতো এখানেই বিদায় নিচ্ছি। দেখা হবে আবার নতুন কোন টিউনে নতুন কোন বিষয় নিয়ে। ভালো ও সুস্থ থাকুন সবাই, আল্লাহ হাফেজ।

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *