ঢাকা, রবিবার ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১১:৫৭ অপরাহ্ন
দূতাবাস কর্মীসহ ২০০-এর বেশি ভারতীয় আটকা পড়েছে কাবুলে
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :

দূতাবাস কর্মীসহ ২০০-এর বেশি ভারতীয় আটকা পড়েছে কাবুলে

আফগানিস্তানে তালেবানের নিয়ন্ত্রণের মধ্যে অনেক ভারতীয় সেখানে আটকা পড়েছে।

আজ (সোমবার) বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল এনডিটিভি হিন্দি ওয়েবসাইট সূত্রে প্রকাশ, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মী এবং তাদের নিরাপত্তার জন্য মোতায়েন আধা সামরিক বাহিনীর জওয়ানসহ দু’শোর বেশি ভারতীয় বর্তমানে কাবুলে আটকা পড়েছে।

এনডিটিভি জানিয়েছে, একটি ভারতীয় বিমান বর্তমানে কাবুল বিমানবন্দরে দাঁড়িয়ে আছে। তালেবানরা শহরে কারফিউ জারি করায় ভারতীয় মিশন প্রাঙ্গণ থেকে কর্মীদের কীভাবে বিমানবন্দরে আনা যায় সেটাই এখন বড় উদ্বেগের বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

তালেবানদের মধ্যে আটকে পড়া ভারতীয়দের মধ্যে রয়েছে আধাসামরিক বাহিনী ইন্দো-তিব্বত সীমান্ত পুলিশের (আইটিবিপি) কমপক্ষে ১০০ জন জওয়ান, যারা আফগানিস্তানে ভারতীয় মিশনের নিরাপত্তার দায়িত্ব রয়েছে। আফগানিস্তানের চলমান পরিস্থিতির মধ্যে কাবুলের আকাশসীমা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। যার ফলে কাবুল বিমানবন্দর থেকে কোনো ফ্লাইট চলাচল করতে পারবে না। কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, কাবুল বিমানবন্দর থেকে আকাশসীমা বন্ধ থাকায় কোনো ফ্লাইট চলাচল করতে পারবে না।

গণমাধ্যমে প্রকাশ, মন্ত্রিপরিষদ সচিব, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে ক্রমাগত আলোচনা করছেন সেখান থেকে বেরোনোর পরিকল্পনা নিয়ে। সেখানে আটকে পড়া ভারতীয়দের যত দ্রুত সম্ভব বের করে আনার চেষ্টা চলছে। কিন্তু কেন তিন/চার দিন আগে ভারতীয় কর্মীদের সরিয়ে নেওয়া হয়নি যখন আফগানিস্তানের পরিস্থিতির দ্রুত অবনতি হচ্ছিল এবং তালেবানরা সেখানে তার দখল বাড়ছিল, এই প্রশ্ন এখন বিভিন্নমহলে উঠছে।

এদিকে, আফগানিস্তানে তালেবানদের ক্ষমতা দখলের বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞ ইমন কল্যাণ লাহিড়ি। তিনি আজ (সোমবার) বলেন, ‘তালেবানদের যে শাসন অতীতে আমরা দেখেছি তা ভারতের পক্ষে কখনওই সুখকর ছিল না। তালেবানদের হাতে এরকম অস্ত্র কীভাবে এসেছে, তাঁরা কীভাবে দখলদারি চালাচ্ছে, কীভাবে আফগানিস্তানের রাষ্ট্রপ্রধান পালিয়ে যাচ্ছেন? এই সামগ্রিক বিষয়টা রয়েছে। একটা যে টেররাইজ জোন হিসেবে আফগানিস্তান পরিচিত ছিল তালেবানদের সময়ে সেটাই কিন্তু পুনর্বহাল হতে চলেছে। সুতরাং সার্বিকভাবে ভারতের যে বিনিয়োগ, ভারতের যে অবস্থান সেটা কিন্তু অনেকটাই বিচ্ছিন হবে।’  

অন্যদিকে, ভারতের সাবেক কেন্দ্রীয় বিজেপি সরকারের পররাষ্ট্র মন্ত্রী যশবন্ত সিনহা বলেছেন, ‘শেষ কয়েকদিন ধরে দোহায় তালিবানের সঙ্গে চলা একটি বৈঠকে অংশ নিয়েছেন বিভিন্ন দেশের প্রতিনিধিরা। ভারতীয় প্রতিনিধিরাও সেখানে রয়েছেন। আমি সরকারকে অনুরোধ করব এই আলোচনা চালিয়ে যেতে। তবে গোপনে নয়, আলোচনা হোক সকলের চোখের সামনে।’

‘মনে রাখতে হবে এখন আফগানিস্তানে ক্ষমতায় তালিবান। তাই তাদের সঙ্গে আলোচনা সকলের চোখের সামনে হওয়ায় উচিত’ বলেও মন্তব্য করেছেন ভারতের সাবেক অটলবিহারী বাজপেয়ী সরকারের পররাষ্ট্র মন্ত্রী যশবন্ত সিনহা ।পার্সটুডে/এনবিএস/২০২১/একে

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *