ঢাকা, মঙ্গলবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:৪২ অপরাহ্ন
আমেরিকার অস্ত্রশস্ত্র দখল করেছে তালিবান ,জানালেন বাইডেনের উপদেষ্টা
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :


আমেরিকার অস্ত্রশস্ত্র দখল করেছে তালিবান ,জানালেন বাইডেনের উপদেষ্টা

তালিবান কাবুল দখল করার পরে দেশে-বিদেশে সমালোচনার মুখে পড়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। অনেকের অভিযোগ, তিনি তাড়াহুড়ো করে সেনা না সরালে এত দ্রুত তালিবান ক্ষমতা দখল করতে পারত না। এই সমালোচনার জবাবে তাঁর নিরাপত্তা উপদেষ্টা জেক সুলিভান বলেন, বাইডেন চান না পাকিস্তান, তাজকিস্তান বা ইরানের কাছে আমাদের সেনা যুদ্ধ চালিয়ে যাক।
গত এপ্রিলে বাইডেন ঘোষণা করেন, চলতি বছরের ১১ সেপ্টেম্বরের মধ্যে আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সেনা সম্পূর্ণ প্রত্যাহার করে নেওয়া হবে। ইতিমধ্যে আফগানিস্তান থেকে বেশিরভাগ মার্কিন সেনা ফিরে এসেছে। যারা রয়ে গিয়েছে, তারাও ফিরে আসবে ৩১ অগাস্টের মধ্যে। জেক সুলিভান বলেন, “আমি যতদূর জানি, বাইডেন মনে করেন, তাজকিস্তানের কাছে আমেরিকার সেনা ঘাঁটি টিকিয়ে রাখার জন্য আমাদের যুদ্ধ করার প্রয়োজন নেই।”
একটি প্রশ্নের জবাবে সুলিভান স্বীকার করেন, আমেরিকার বেশ কিছু অস্ত্রশস্ত্র তালিবানের হাতে গিয়েছে। তাঁর কথায়, “আফগানিস্তানের পুরো ছবিটা এখনও আমাদের কাছে নেই। কিন্তু আমাদের বেশ কিছু অস্ত্রশস্ত্র যে তালিবানের হাতে পড়েছে, তা এখনই বলে দেওয়া যায়। আমরা মনে করি না তারা কাবুল এয়ারপোর্টে এসে সেই অস্ত্র আমাদের ফেরত দেবে।”

মার্কিন নিরাপত্তা উপদেষ্টা ইঙ্গিত দেন, তালিবানের বিরুদ্ধে কী ব্যবস্থা নেওয়া যায়, তা নিয়ে আন্তর্জাতিক মহলের সঙ্গে আলোচনা করছে তাঁর দেশ। তাঁর কথায়, “তালিবানের বিরুদ্ধে ঠিক কী করা হবে, তা এখনই বলা সম্ভব নয়। তবে আন্তর্জাতিক মহল থেকে নিশ্চয় তাদের নিন্দা করা হবে। তাদের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞাও জারি হতে পারে।”

আপাতত কাবুল থেকে মার্কিন নাগরিক ও তাদের কয়েকজন সহযোগীকে নিরাপদে ফিরিয়ে আনাই লক্ষ্য আমেরিকার। সেজন্য তারা তালিবানের সঙ্গে আলোচনা চালাচ্ছে।
রবিবার তালিবান কাবুল দখল করার পরেই বিমানবন্দরে ভিড় করেন বহু মানুষ। আমেরিকার বিমানে চড়ে তাঁরা তালিবানের কবল থেকে পালানোর চেষ্টা করেন। বিমানে অবশ্য সকলকে উঠতে দেওয়া হয়নি। বিমান থেকে পড়েও যেতে দেখা যায় দু’জনকে। সেকথা উল্লেখ করে সুলিভান বলেন, গত কয়েকদিনে কাবুল বিমানবন্দরে যে ছবি দেখা গিয়েছে, তা সত্যিই দুঃখজনক।

একটি প্রশ্নের জবাবে সুলিভান বলেন, “গত কয়েক মাসে আফগানিস্তানে যা ঘটেছে, তাতে বলা যায়, তালিবানকে ঠেকাতে সেখানে আমাদের বিপুল সংখ্যক সেনা মোতায়েন রাখা দরকার ছিল। তাতে আমাদের তরফেও অনেকে হতাহত হত। বাইডেন তা চাননি। খবর দ্য ওয়ালের /এনবিএস/২০২১/একে

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *