ঢাকা, সোমবার ২৫ অক্টোবর ২০২১, ০২:১৪ পূর্বাহ্ন
তালিবানকে একতরফা স্বীকৃতি নয়, ইমরানকে সাফ ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী জনসন
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :

তালিবানকে একতরফা স্বীকৃতি নয়, ইমরানকে সাফ ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী জনসন

তালিবানের পাশে পাকিস্তান, স্পষ্ট বুঝিয়ে দিয়েছেন ইমরান খান। তালিবানের প্রত্যাবর্তনকে ‘গোলামির শৃঙ্খল মোচন’ বলেছেন পাক প্রধানমন্ত্রী। কিন্তু তিনি জঙ্গি গোষ্ঠীকে বৈধতা, স্বীকৃতি দিলেও ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন কার্যতঃ তা নাকচ করে জানিয়ে দিলেন, আফগানিস্তানের নতুন সরকারকে একতরফা স্বীকৃতি নয়। আফগানিস্তানের পরিস্থিতি নিয়ে ব্রিটিশ পার্লামেন্টের হাউস অব কমন্সে সংসদীয় বিতর্কের  প্রাক্কালে জনসনের সঙ্গে ফোনে কথা হয় ইমরানের। আলোচনার ব্যাপারে ১০, ডাউনিং স্ট্রিটের তরফে বলা হয়েছে, প্রধানমন্ত্রী আফগানিস্তান ও বৃহত্তর এলাকায় মানবতার বিপর্যয় এড়াতে আন্তর্জাতিক সঙ্গীদের  সঙ্গে একযোগে কাজ করার দায়বদ্ধতার কথা জোর দিয়ে বলেছেন। প্রধানমন্ত্রী স্পষ্ট করেছেন, আফগানিস্তানের নতুন সরকারকে একতরফা নয় আন্তর্জাতিক বোঝাপড়ার ভিত্তিতে স্বীকৃতি দিতে হবে। ভবিষ্যতের  যে কোনও তালিবানি সরকারের বৈধতা যাচাই করা হবে তারা মানবাধিকার সংক্রান্ত আন্তর্জাতিক স্তরে স্বীকৃত নিয়মরীতি ও সবাইকে সঙ্গে নিয়ে চলার নিয়ম মানছে কিনা, সেই মাপকাঠিতে।

দুই প্রধানমন্ত্রী তালিবানি দখলের পর আফগানিস্তানে আগামী দিনের পরিস্থিতির ব্যাপারে ব্রিটেন, পাক  সরকারের ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ রেখে চলার ব্যাপারে সম্মত  হয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। মঙ্গলবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সঙ্গেও কথা হয় জনসনের। ডাউনিং স্ট্রিট জানিয়েছে, আফগানিস্তান থেকে ব্রিটিশ নাগরিক, বর্তমান, প্রাক্তন কর্মীদের উদ্ধারে সম্প্রতি আমেরিকা ও ব্রিটেনের পারস্পরিক সহযোগিতাকে স্বাগত জানান দুজনেই। তাঁরা আফগানিস্তানে মানবিকতার সঙ্কট রোধে আন্তর্জাতিক মহলের একযোগে কাজ করার প্রয়োজনীয়তার ব্যাপারেও একমত হয়েছেন। ওই এলাকায় মানবিক ত্রাণ বাড়ানো ও উদ্বাস্তুদের  পুনর্বাসন সহ ব্রিটেনের পরিকল্পনা বিস্তারিত জানান জনসন।  ব্রিটেনের আফগান নাগরিকদের পুনর্বাসন স্কিমে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে তালিবানের সামনে সবচেয়ে বিপন্ন বোধ করা মহিলা, মেয়ে, ধর্মীয় ও সংখ্যালঘুদের।


জনসন বলেন, গত ২০ বছরের ওপর আফগানিস্তানকে উন্নত স্থানে পরিণত করতে আমাদের সঙ্গে  কাজ করা সকলের প্রতি আমরা গভীর ভাবে কৃতজ্ঞ। তাঁদের অনেকে, বিশেষ করে মহিলাদের এখন  আমাদের সাহায্য খুব জরুরি। আমি গর্বিত যে  ব্রিটেন তাদের ও তাদের পরিবারবর্গকে নিরাপদে বসবাসে সাহায্য করতে পেরেছে। কয়েক বছরে ব্রিটেন ২০ হাজারের ওপর আফগান উদ্বাস্তুকে পুনর্বাসন দিতে চায় বলে নিশ্চিত করেছেন ব্রিটিশ স্বরাষ্ট্র সচিব প্রীতি পটেল । ওয়ালের /এনবিএস/২০২১/ একে

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *