ঢাকা, বুধবার ২৭ অক্টোবর ২০২১, ০৮:১৭ অপরাহ্ন
কাবুল দখল করার পরে তালিবানের প্রশংসা করে বিবৃতি আল কায়েদার
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :

কাবুল দখল করার পরে তালিবানের প্রশংসা করে বিবৃতি আল কায়েদার

আল কায়েদা জঙ্গিদের আশ্রয় দেওয়ার জন্যই ২০০১ সালে আফগানিস্তানে আক্রমণ করেছিল আমেরিকা। তখন ক্ষমতাচ্যুত হয় তালিবান। গত রবিবার ফের তালিবান কাবুল দখল করেছে। এরপর তাদের অকুণ্ঠ প্রশংসা করল আল কায়েদার একটি শাখা। আল কায়েদা ইন আরবিয়ান পেনিনসুলা নামে ওই শাখা সংগঠন বাদে আরও কয়েকটি জঙ্গি সংগঠন তালিবানকে অভিনন্দন জানিয়েছে।

সিরিয়ার হায়াত তাহরির অল শাম (এইচটিএস) নামে এক জঙ্গি সংগঠন বলেছে, তালিবান আমাদের প্রেরণা। পশ্চিম চিন থেকে তুর্কিস্তান ইসলামিক পার্টি বিবৃতি দিয়ে তালিবানের জয়ে আনন্দ প্রকাশ করেছে। তহরিক ই তালিবান পাকিস্তান নামে সংগঠনটিও বলেছে, তারা আফগানিস্তানের তালিবান নেতাদের মেনে চলবে। একই সঙ্গে তারা জানিয়ে দিয়েছে, আগামী দিনে পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর ওপরে আক্রমণ চালিয়ে যাবে।

এইচটিএস বলেছে, তালিবান যেভাবে আফগানিস্তান দখল করল, তা বহু পুরানো ইতিহাসের কথা মনে করিয়ে দেয়। তাদের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, দেরিতে হলেও শেষপর্যন্ত ন্যায়ের জয় হয়। বিদেশি হানাদাররা বেশিদিন রাজত্ব করতে পারে না।

এইচটিএসের আশা সিরিয়াতেও একসময় বশির অল আসাদের সরকারের পতন ঘটবে। তালিবানের অভিজ্ঞতা থেকে শিক্ষা নিয়ে ওই দেশ দখল করবে তারা। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “আমরা তালিবান ভাইদের এবং সেই সঙ্গে আফগানিস্তানের সাধারণ মানুষকে অভিনন্দন জানাই। একদিন ঈশ্বর সিরিয়ার বিপ্লবকেও জয়ী করবেন।”

মে মাসে আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সেনা অপসারণের পর থেকেই তালিবান যোদ্ধাদের অগ্রগতি শুরু হয়। এক মাসের মধ্যে তারা দখল করে নেয় কয়েকটি প্রাদেশিক রাজধানী। এইসময় আমেরিকার যোদ্ধাদের ফেলে যাওয়া বেশ কিছু পরিমাণ অস্ত্র দখল করেছে জঙ্গিরা। সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে দেখা গিয়েছে, তালিবান যোদ্ধারা এম ফোর এবং এম এইটটিন অ্যাসল্ট রাইফেল ও এফ টোয়েন্টি ফোর স্নাইপার রাইফেল নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে। গত দুই দশকে ওই অস্ত্রগুলি দিয়েই আফগানিস্তানে লড়াই করেছে আমেরিকা। বিখ্যাত মার্কিন হামভিতে চড়েও ঘুরতে দেখা গিয়েছে জঙ্গিদের। একটি ছবিতে দেখা গিয়েছে, আমেরিকার স্পেশাল ফোর্সের ট্যাকটিকাল ইউনিফর্ম পরেছে তালিবান যোদ্ধারা।

পর্যবেক্ষকদের ধারণা, এই অস্ত্রগুলি কেড়ে নেওয়া হয়েছে আফগান সেনাবাহিনীর থেকে। দুই দশক ধরে তাদের প্রশিক্ষণ দিয়েছে আমেরিকা। কয়েকশ কোটি ডলারের অস্ত্রও দিয়েছে তাদের। কিন্তু গত সপ্তাহের শেষে তারা বিনা লড়াইয়ে কাবুল ছেড়ে পালিয়ে গিয়েছে।

মঙ্গলবার আমেরিকার নিরাপত্তা উপদেষ্টা জেক সুলিভান বলেন, “আফগানিস্তানের পুরো ছবিটা এখনও আমাদের সামনে নেই। কিন্ত্য আমরা নিশ্চিত যে আমাদের কিছু প্রতিরক্ষার সরঞ্জাম হাতছাড়া হয়েছে। খবর দ্য ওয়ালের/এনবিএস/২০২১/একে
 

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *