ঢাকা, মঙ্গলবার ২৬ অক্টোবর ২০২১, ০১:৫৩ অপরাহ্ন
সমালোচনার মুখে মন্দির থেকে মোদীর আবক্ষ মূর্তি সরিয়ে নিলেন বিজেপি কর্মী
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :

সমালোচনার মুখে মন্দির থেকে মোদীর আবক্ষ মূর্তি সরিয়ে নিলেন বিজেপি কর্মী

পুনের আউন্ধ অঞ্চলের বিজেপি কর্মী ময়ূর মুন্ডে কয়েকদিন আগে একটি মন্দির প্রতিষ্ঠা করেন। তার ভেতরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর আবক্ষ মূর্তি ছিল। মুন্ডে বলেছিলেন, “আমি মোদীর অনুগামী। আমি তাঁকে পুজো করি। তাঁর আশীর্বাদ নিয়ে কাজ করি। অন্যান্য মোদীভক্তের কথা চিন্তা করে এই মন্দির প্রতিষ্ঠা করলাম। এবার থেকে তাঁরাও এই মন্দিরে এসে মোদীর আশীর্বাদ চাইবেন।” বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব অবশ্য মুন্ডের কাজ ভাল চোখে দেখেনি। নেতাদের তিরস্কারে মুন্ডে মন্দির থেকে মোদীর মূর্তি সরাতে বাধ্য হলেন।

মন্দিরে মোদীর মূর্তি প্রতিষ্ঠা করার পরে মুন্ডের ওপরে অসন্তুষ্ট হয়েছিল স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্বও। ওই মন্দির নিয়ে কড়া সমালোচনা করেছিল শিবসেনা এবং এনসিপি। শহরের এনসিপি প্রধান প্রশান্ত জগতাপ বলেছিলেন, “আমরা ওই মন্দিরে গিয়ে পেট্রল, এলপিজি এবং নানা খাদ্যদ্রব্য উৎসর্গ করব। কারণ ওই জিনিসগুলির দাম রেকর্ড বেড়েছে।” পরে তিনি বলেন, তাঁরা ওই মন্দিরে গিয়ে প্রার্থনা করতে চেয়েছিলেন যাতে অত্যাবশ্যকীয় পণ্যের দাম কমে, বেকাররা চাকরি পায় এবং শহরের নানা সমস্যার সমাধান হয়। কিন্তু মন্দির থেকে মোদীর মূর্তি সরানোয় এই সুযোগ তাঁরা আশাহত হয়েছেন।


শহরের শিবসেনা নেতারাও বলেছেন, তাঁরা ওই মন্দিরে গিয়ে প্রার্থনা জানাতে চেয়েছিলেন। কিন্তু তার আগেই মন্দির থেকে মোদীর মূর্তি সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। শিবসেনার এক নেতা বলেন, “মুদ্রাস্ফীতি রেকর্ড ছুঁয়েছে। গরিবদের পক্ষে সংসার চালানোই এখন মুশকিল। আমরা মন্দিরে গিয়ে প্রার্থনা জানাতাম যাতে গরিবদের প্রতি মোদীর দয়া হয়।”

বৃহস্পতিবার রাতে মিডিয়ার সামনে আসেন মুন্ডে। তিনি বলেন, আমার হয়ে কথা বলবেন উকিল মধুকর মুসালে। ওই উকিল বলেন, “অল্পদিন আগে মুন্ডে মন্দির প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। স্থানীয় মানুষ তা উদ্বোধন করেন। প্রধানমন্ত্রী মোদীকে বহু মানুষ শ্রদ্ধা করেন। তাই ওই মন্দিরের কথা সারা দেশে ছড়িয়ে যায়। বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বও মন্দিরের কথা জানতে পারেন। তাঁরা মুন্ডেকে বলেন, মন্দির থেকে যেন মোদীর মূর্তি সরিয়ে নেওয়া হয়।”

মুসালে পরে বলেন, বিজেপির এক কেন্দ্রীয় নেতা জানিয়েছেন, মোদীর মন্দির তৈরি করা বিজেপির নীতির বিরোধী। আমরা জানি, দলের কর্মীরা মোদীকে সম্মান করেন ও ভালবাসেন। কিন্তু এটা তাঁকে সম্মান দেখানোর সঠিক পদ্ধতি নয়। মন্দির থেকে প্রধানমন্ত্রীর আবক্ষ মূর্তি অবশ্যই সরিয়ে ফেলা উচিত। ​খবর দ্য ওয়ালের /এনবিএস/২০২১/এক

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *