ঢাকা, রবিবার ১৭ অক্টোবর ২০২১, ০৫:৩০ পূর্বাহ্ন
সিবিআইয়ের নজিরবিহীন তৎপরতা, হিংসা মামলায় তদন্তে চার জয়েন্ট ডিরেক্টর
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :


সিবিআইয়ের নজিরবিহীন তৎপরতা, হিংসা মামলায় তদন্তে চার জয়েন্ট ডিরেক্টর

 বাংলায় ভোট পরবর্তী হিংসার বড় ঘটনাগুলির তদন্ত ভার কলকাতা হাইকোর্ট দিয়েছে সিবিআইয়ের কাঁধে। তারপর গতকাল থেকেই দৌত্য শুরু করেছে সিবিআই। রাজ্য পুলিশের ডিজি বীরেন্দ্রকে চিঠি পাঠিয়ে ভোট পরবর্তী হিংসার ঘটনার সমস্ত তথ্য চেয়েছে কেন্দ্রীয় এজেন্সি। সোমবারই রাজ্যে এসে পৌঁছবে সিবিআই টিম।

সূত্রের খবর, চারটি জোনে ভাগ করে এই তদন্ত করবেন তাঁরা। প্রতিটি জোনের দায়িত্বে নিয়োগ করা হচ্ছে একজন করে জয়েন্ট ডিরেক্টর পদমর্যাদার অফিসারকে।


প্রসঙ্গত, অতীতে কোনও মামলায় বাংলায় চার জয়েন্ট ডিরেক্টর পদমর্যাদার অফিসারকে সিবিআই একসঙ্গে নিয়োগ করেছে এমনটা হয়নি। রিজওয়ান রহমানের মৃত্যুর ঘটনার তদন্তে দু’জন জয়েন্ট ডিরেক্টরকে পাঠিয়েছিল সিবিআই। অনেকের মতে, এই অফিসারদের র‍্যাঙ্ক ও সংখ্যা দেখেই ঠাওর করা যাচ্ছে বাংলার ভোট পরবর্তী হিংসার মামলাকে কতটা গুরুত্ব দিতে চাইছে কেন্দ্রীয় তদন্ত এজেন্সি।

সিবিআই সূত্রে খবর, উত্তরবঙ্গ, দুই বর্ধমান-নদিয়া-বীরভূম-মুর্শবাদ-হুগলি, পশ্চিমাঞ্চল এবং কলকাতা ও সংলগ্ন এলাকা—এই চারটি জোনে ভাগ করেছে সিবিআই।
প্রাথমিক ভাবে যা জানা গিয়েছে, তাতে বলা হচ্ছে প্রতিটি খুন, ধর্ষণ ও অস্বাভাবিক মৃত্যুর ঘটনার জন্য আলাদা আলাদা এফআইআর দায়ের করবে সিবিআই। তারপর তার তদন্ত শুরু করবে। আক্রান্ত পরিবারগুলির থেকে বয়ান নেবেন গোয়েন্দারা। জানবেন, কী ঘটনা ঘটেছে, তারপর স্থানীয় প্রশাসন কী পক্ষেপ করেছে ইত্যাদি প্রভৃতি।

সিবিআই সূত্রে আরও, জানা গিয়েছে যেহেতু ধর্ষণের ঘটনাগুলি তাদের তদন্তের আওতায় রাখা হয়েছে তাই প্রত্যেক তদন্ত টিমে একজন করে এসপি পদমর্যাদার মহিলা অফিসার কে রাখা হচ্ছে বৃহস্পতিবার কলকাতা হাইকোর্ট ভোট-পরবর্তী হিংসা মামলায় খুন ও ধর্ষণের ঘটনা গুলি তদন্তভার কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থার হাতে সঁপেছি দেখবার মতো হল অপেক্ষা না করে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার মধ্যেই আদালতের নির্দেশ কার্যকর করতে নেমে পড়েছে।কলকাতায় সিবিআইয়ের পূর্বাঞ্চলের অফিস থেকে দিল্লির কর্তাদের হাইকোর্টের রায় সম্পর্কে অবহিত করা হয়। সেই আলোচনায় ঠিক হয় পূর্বাঞ্চলের অফিসারদের হাতে এই মুহূর্তে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ মামলা রয়েছে তারমধ্যে সারোদা, নারদ তো আছেই সেই কারণে ভিন রাজ্যের অফিসারদের নিয়ে টিম গঠনের সিদ্ধান্ত হয়।

যদিও সিবিআই তদন্ত বা টিম কলকাতায় আসার খবর নিয়ে তারা উদ্বিগ্ন নয় বলে দাবি করেছে তৃণমূল। শুক্রবার তৃণমূলের মুখপত্র জাগোবাংলার সম্পাদকীয়তে স্পষ্ট করে লেখা হয়েছে, তারা উদ্বিগ্ন নয়। কেন? তৃণমূল জাগোবাংলায় লিখেছে, “যেখানে ২১টি মৃত্যুর ঘটনার ১৬টিই তৃণমূলকর্মীর, কেন উদ্বিগ্ন হব আমরা? হোক তদন্ত।” শুধু তাই নয়, জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের রিপোর্টকে বিজেপির ইস্তেহার বলেও উল্লেখ করেছে তৃণমূল। খবর দ্য ওয়ালের /এনবিএস/২০২১/একে 

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *