ঢাকা, শনিবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:৪৯ পূর্বাহ্ন
রেকর্ড! ১ কোটির বেশি ভ্যাকসিন, প্রায় ২ মাসে ফের দৈনিক সর্বোচ্চ কোভিড সংক্রমণ
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :

রেকর্ড! ১ কোটির বেশি ভ্যাকসিন, প্রায় ২ মাসে ফের দৈনিক সর্বোচ্চ কোভিড সংক্রমণ

 কোভিড ১৯ মোকাবিলায় ভ্যাকসিন প্রদান কর্মসূচিতে একটি বড় মাইল ফলক পেরল ভারত। রেকর্ড গড়ে শুক্রবার দেশে এক কোটির বেশি মানুষকে ভ্যাকসিন দেওয়া হল। ভ্যাকসিন দেওয়া শুরু হওয়ার পর থেকে এমন সাফল্য এই প্রথম এল, যাতে উচ্ছ্বসিত প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ট্যুইট করে দেশবাসীকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। লিখেছেন, আজ ভ্যাকসিনেশন নম্বরে রেকর্ড হল। ১ কোটি ছাড়িয়ে যাওয়া একটা বড় সাফল্য। যাঁরা ভ্যাকসিন নিয়েছেন, যাঁরা এই কর্মসূচিকে সফল করলেন, তাঁদের অভিনন্দন। কোউইন পোর্টালের পরিসংখ্যান বলছে, গতকাল ভ্যাকসিন ডোজ দেওয়া হয়েছে ১ কোটি ২ লাখ ৬৪৭৫টি।

স্বাস্থ্যকর্মীদের কঠোর পরিশ্রম, সবার জন্য প্রধানমন্ত্রীর বিনামূল্যে ভ্যাকসিনের উদ্যোগে ফল পাওয়া যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী মনসুখ মান্ডবিয়া।

দেশে ৬২কোটি ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে বলে গতকাল সকালে ট্যুইট করেছিল কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রক। কোউইন পোর্টালের হিসেব, দেশে ১৪ কোটির বেশি মানুষ কোভিড ভ্যাকসিনের দুটি ডোজই পেয়েছেন। সবচেয়ে বেশি ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে উত্তরপ্রদেশে, ২৮.৬২ লাখ। তারপর কর্নাটকে। ১০.৭৯ লাখ।

গত জুনে কেন্দ্র নীতি বদলে ১৮র ওপর সবাইকে বিনামূল্যে ভ্যাকসিন দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়, ভ্যাকসিন কর্মসূচির নিয়ন্ত্রণও রাজ্যগুলির হাত থেকে নিজের নিয়ন্ত্রণে নেয়। তারপরই দেশে ভ্যাকসিন দেওয়ার প্রক্রিয়া জোর গতি পায়। কোম্পানিগুলির তৈরি ৭৫ শতাংশ ভ্যাকসিন নিজে কেনা শুরু করে, রাজ্যগুলিকেও ২৫ শতাংশ কেনার ভার দেওয়া হয়। বাকি ২৫ শতাংশ বেসরকারি হাসপাতালগুলিকে কিনতে বলা হয়, যেখান থেকে লোকে পয়সা দিয়ে ভ্যাকসিন নিতে আগ্রহী। ভ্যাকসিন প্রদান কর্মসূচিতে বাধা হয়ে ওঠা কোউইন পোর্টালের যান্ত্রিক গলদ ও ডিজিটাল বিভাজনের কথা মাথায় রেখে ভ্যাকসিনেশন প্রক্রিয়ায় গতি আনতে ওয়াক-ইন রেজিস্ট্রেশনও শুরু হয়।

কোভিডের তৃতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কায় দেশে চলতি বছর শেষ হওয়ার মধ্যেই সব প্রাপ্তবয়স্ক মানুষকে ভ্যাকসিন দেওয়ার লক্ষ্য পূরণে এগিয়ে চলেছে ভারত।

তবে তার মধ্যেই উদ্বেগ, আশঙ্কার মেঘ। শনিবার দেশে নতুন করোনা সংক্রমণ কেস ৪ শতাংশের ওপর বেড়েছে। শনিবার ৪৬৭৫৯টি নতুন সংক্রমণের খবর মিলেছে, যা গত প্রায় ২ মাসে সর্বোচ্চ। মারা গিয়েছেন ৫০৯ জন। কেরলে লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমণ। গত ২৪ ঘন্টায় রাজ্যে নতুন সংক্রমণ ধরা পড়েছে ৩২৮০১টি। গত টানা তিনদিন ধরে ৩০ হাজারের বেশি সংক্রমণ ধরা পড়েছে সেখানে। ২৬ আগস্ট সেখানে পজিটিভিটি রেট ছিল ১৮.০৩ শতাংশ। তা বেড়ে হয়েছে ১৯.২২ শতাংশ। রাজ্য মোট সংক্রমিত হয়েছেন ৩৮ লাখ ১৪ হাজার ৩০৫ জন। মহারাষ্ট্রেও নতুন সংক্রমণের সংখ্যা ৪৬৫৪টি। ২৪ ঘন্টায় মারা গিয়েছে ১৭০ জন। রাজ্যে কোভিড থেকে সেরে ওঠার হার ৯৭.০২ শতাংশ। মৃত্যুর হার ২.১২ শতাংশ। শুক্রবার দিল্লি থেকে নতুন সংক্রমণের খবর আসেনি।  খবর দ্য ওয়ালের/এনবিএস/২০২১/একে

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *