ঢাকা, রবিবার ১৭ অক্টোবর ২০২১, ০৫:১৯ পূর্বাহ্ন
নিরাপত্তা পরিষদের বিবৃতিতে বাদ পড়ল ‘তালিবান’, UNSC-এর মত পাল্টানোর জল্পনা
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :

নিরাপত্তা পরিষদের বিবৃতিতে বাদ পড়ল 'তালিবান', UNSC-এর মত পাল্টানোর জল্পনা

তালিবান আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখলের পর রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের একটি বিবৃতিতে তাদের সাবধান করা হয়েছিল। মাত্র ১১ দিন পর আরগকটি বিবৃতিআে 'তালিবান' শব্দটাই বাদ দিল UNSC, এবং এই বাদ পড়া ঠিক এমন একটা গুরুত্বপূর্ণ সময়ে হল যখন দায়িত্বে রয়েছেন ভারতের প্রতিনিধি৷ স্বাভাবিকভাবেই এই নিয়ে বিতর্ক তৈরি হয়েছে৷ এমনকি রাষ্ট্রসংঘে ভারতের প্রাক্তন প্রতিনিধিও এ নিয়ে টুইট করেছেন৷

চলতি মাসের ১৬ তারিখে রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের পক্ষ থেকে লেখা হয়েছিল, তালিবান কিংবা কোনও আফগান গোষ্ঠী বা ব্যাক্তির উচিত নয় অন্য কোনও দেশে জঙ্গি কার্যকলাপে সমর্থন জানানো৷ এই বিবৃতিতে সোজাসুজি তালিবানের দিকে আঙুল তোলা হয়োছিল৷ কিন্তু কাবুলে জোড়া বিস্ফোরণের পর আবারও একটি বুবৃতি জারী করেছে UNSC, প্রথমবারের বিবৃতির ঠিক ১১ দিন পর অর্থাৎ ২৭ অগাস্ট প্রকাশিত এই প্রতিবেদনে ইউএনএসসির পক্ষ থেকে লেখা হয়েছে, কোনও আফগান গোষ্ঠী বা সাধারণ মানুষ যেন অন্য কোনও দেশে চলা জঙ্গি কার্যকলাপকে সমর্থন না করে। এই বিবৃতিতে 'তালিবান' শব্দটিকে বাদ দেওয়া হয়েছে৷ কিন্তু প্রশ্ন উঠছে কেন?

আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিশেষজ্ঞদের একাংশের মতে বিবৃতিতে 'তালিবান' এর এই বাদ যাওয়া আসলে ভীষণ অর্থবহ৷ এবার কাবুল দখলের প্রথম থেকেই তালিবানরা নিজেদের জঙ্গিগোষ্ঠি হিসেবে নয় বরং রাষ্ট্রপরিচালক শক্তি হিসেবে তুলে ধরতে মরিয়া ছিল৷ তারা বারবার দাবি করেছে তারা আফগানিস্তানের উন্নয়নের জন্য কাজ করতে চায়৷ কোনও রকম ফতোয়া ও মানুষ হত্যার রাস্তায় তারা হাঁটবে না৷ যদিও তালিবানদের কথায় ও কাজে কোনও মিল নেই সেটা আফগানিস্তানের বর্তমান অবস্থা দেখে পরিস্কার হয়ে গিয়েছে৷ কিন্তু এস সবের পরও নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী সদস্যদের একজন চিন তালিবান সরকারকে সমর্থন জানিয়েছে৷ ভারত ছাড়া এখনও সেরকমভাবে সরাসরি তালিবান বিরোধিতার রাস্তায় হাঁটেনি কোনও দেশ৷ এরপর UNSC-র বিবৃতি নতুন করে জল্পনা তৈরি করেছে যে এবার কি তাহলে তালিবানদের মান্যতা দেওয়ার পথে রাষ্ট্রসংঘ!


রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের বিবৃতি থেকে যখন তালিবান শব্দটি বাদ গিয়েছে কাকতালীয় ভাবে তখন নিরাপত্তা পরিষদে সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন রাষ্ট্রসংঘে ভারতের প্রতিনিধি টি এস তিরুমূর্তি। তাই এ নিয়ে নতুন করে বিতর্ক তৈরি হয়েছে৷ তাহলে কী ভারতও নিজেদের তালিবান বিরোধী অবস্থান থেকে সরে আসছে? এই জল্পনা শুরু হয়েছে৷ প্রসঙ্গত তালিবানরা ক্ষমতা দখলের পর থেকে ভারতের সঙ্গে ভালো সম্পর্ক রাখার ব্যাপারে আগ্রহ প্রকাশ করেছে৷

পাঁচমাস আগেও রাষ্ট্রপুঞ্জে ভারতের স্থায়ী প্রতিনিধি ছিলেন সৈয়দ আকবরুদ্দিন। টুইটে তিনি পুরো বিষয়টি তুলে ধরে তিনি ব্যাঙ্গের সুরে লিখেছেন, 'ত' দিয়ে শুরু একটি শব্দ বাদ গিয়েছে, অবশ্য, ‘কূটনীতিতে এক পক্ষকাল বিরাট সময়। খবর  ওয়ান ইন্ডিয়ার  /এনবিএস/২০২১/একে

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *