ঢাকা, মঙ্গলবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৩:৩৭ পূর্বাহ্ন
আমাদের না জানিয়েই কাবুলে ড্রোন হানা চালিয়েছে আমেরিকা, অভিযোগ তালিবানের
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :

আমাদের না জানিয়েই কাবুলে ড্রোন হানা চালিয়েছে আমেরিকা, অভিযোগ তালিবানের

 গত রবিবার কাবুলে এক সন্দেহভাজন আত্মঘাতী বোমারুর উদ্দেশে ড্রোন (Drone Attack) হামলা চালায় আমেরিকা। তালিবানের অভিযোগ, তাঁদের না জানিয়েই কাবুলে হামলা চালানো হয়েছে। তাতে কয়েকজন নিরীহ মানুষের মৃত্যু হয়েছে। তালিবানের মুখপাত্র জাবিহুল্লা মুজাহিদ চিনের সরকার নিয়ন্ত্রিত টেলিভিশনে বলেন, বিদেশে আমেরিকার এই আক্রমণ বেআইনি। তাঁর কথায়, “আমেরিকা যদি মনে করে, আফগানিস্তানে তাদের কোনও বিপদের সম্ভাবনা আছে, তাহলে আগে আমাদের জানানো উচিত ছিল। মার্কিন সেনা কাবুলে একতরফা হামলা চালিয়েছে। তাতে নিরীহ মানুষ মারা গিয়েছেন।”

পেন্টাগনের তরফে বলা হয়েছে, “এক আত্মঘাতী জঙ্গি বিস্ফোরকভর্তি গাড়ি নিয়ে কাবুল বিমান বন্দরে হামলার প্রস্তুতি নিচ্ছিল। তার আগেই ওই জঙ্গিকে হত্যা করা গিয়েছে।” মার্কিন সেন্ট্রাল কম্যান্ড থেকে বলা হয়েছে, কোনও নিরীহ মানুষ নিহত হয়েছেন কিনা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। পেন্টাগনের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “আমরা জানি, বিস্ফোরকভর্তি গাড়িটি ধ্বংস হওয়ার সময় বড় ধরনের বিস্ফোরণ হয়েছিল। তাতে কয়েকজনের মৃত্যু হয়ে থাকতে পারে।”


আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সেনাবাহিনী ও মিত্র বাহিনী সেদেশে বসবাসকারী মার্কিন নাগরিকদের বিমানে ফেরানোর তোড়জোড়ের মধ্যেই সোমবার কাবুল বিমানবন্দরে রকেট হামলা হয়। পাঁচটি রকেট ছোঁড়া হয়েছে, তবে সবগুলিই এয়ারপোর্টের ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরোধী সিস্টেমে ধাক্কা খেয়ে ধ্বংস হয়েছে বলে দাবি করেন ঘটনাস্থলে উপস্থিত জনৈক  তালিবান নেতা। কোনও প্রাণহানির খবর নেই।

মার্কিন সেনাকর্তার  দাবি, রকেটগুলি প্রতিহত করা হয়েছে। যদিও  মিডিয়ায় বেরনো  ছবিতে দেখা যাচ্ছে, বিমানবন্দর সংলগ্ন একটি ভবন রকেটের আঘাতে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। স্থানীয় লোকজন আতঙ্কিত, সন্ত্রস্ত। আইসিসের নাশকতায় রক্তে ভেসেছে বিমানবন্দর এলাকা। রক্তে মাখামাখি লাশের ছবি দেখেছে গোটা দুনিয়া। সেই ছবিতে প্রতি মুহূর্তে তীব্র উদ্বেগ, ভীতিতে জীবন কাটছে তাঁদের। বিমানবন্দরের কাছেই থাকেন জনৈক আবদুল্লা। তিনি সংবাদ সংস্থাকে বলেছেন, আমেরিকানরা বিমানবন্দরের দখল নেওয়ার পর থেকে ঠিকমত ঘুমোতে পারছি না । হয় গোলাগুলি, রকেট হানা চলছে। বিশাল প্লেনের বিকট শব্দ, সাইরেনের শব্দে চোখে ঘুম নেই। এখন গুলি, রকেট হামলা চলছে নির্দিষ্ট টার্গেট নিশানা করে। আমাদের জীবন বিপদের মুখে।

এএফপির এক ফটোগ্রাফার লঞ্চার সিস্টেমের আঘাতে ক্ষতিগ্রস্ত একটি গাড়ির ছবি তুলেছেন। দেখা যাচ্ছে, গাড়ির  পিছনের আসনে পড়ে আছে লঞ্চার সিস্টেমটি। বিমানবন্দর থেকে প্রায় ২ কিমি দূরে সন্দেহভাজন মার্কিন ড্রোন আছড়ে পড়েছিল গাড়িটির ওপর। খবর দ্য ওয়ালের /২০২১/এনবিএস/একে

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *