ঢাকা, সোমবার ২৫ অক্টোবর ২০২১, ০১:৪৬ পূর্বাহ্ন
চাকরিতে বদলি নিয়ে অসন্তোষ! গায়ে আগুন দিয়ে আত্মঘাতী সরকারি চিকিৎসক 
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :

চাকরিতে বদলি নিয়ে অসন্তোষ! গায়ে আগুন দিয়ে আত্মঘাতী সরকারি চিকিৎসক 

প্রায় দুসপ্তাহ লড়াই চালানোর পরে মৃত্যু হল সরকারি চিকিৎসক অবন্তিকা ভট্টাচার্যের (Abantika Bhattacharya) । চাকরিতে বদলি (transfer)নীতির প্রতি প্রতিবাদ জানিয়ে সোশ্যাল মিডিয়া পোস্ট করেছিলেন তিনি। এরপর বেহালার বাড়িতে গায়ে আগুন (suicide) দেন তিনি। আশঙ্কাজনক অবস্থায় ভর্তি করা হয়েছিল এসএসকেএম হাসপাতালে। ইস্তফা দিতে চেয়েছিলেন ঘনিষ্ঠ চিকিৎসক মহলের খবর, কমিউনমিটি মেডিসিনের অ্যাসিস্ট্যান্ট অধ্যাপক বছর চল্লিশের অবন্তিকা ভট্টাচার্য ইস্তফা দিতে চেয়েছিলেন।

 প্রসঙ্গত কমিউনিটি মেডিসিনের এই চিকিৎসককে মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজে ছিলেন প্রায় আট বছর। এবার তাঁকে ডায়মন্ডহারবারে বদলি করা হয়। সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রশ্ন ১৬ অগাস্ট অবন্তিকা ভট্টাচার্য সোশ্যাল মিডিয়া পোস্ট করে বলেন, কোথায় তাঁর জন্য শান্তি রয়েছে…ইস্তফায়? আট বছর জেলায় চাকরি করার পরেও আবার একটি জেলায় বদলি, কোনও পদোন্নতি ছাড়াই। যা তিনি কোনওভাবেই মেনে নিতে পারছেন না বলে জানিয়েছিলেন ফেসবুক পোস্টে। বাড়িতেই আত্মহত্যার চেষ্টা সোশ্যাল মিডিয়া পোস্টের বেশ কিছু সময় পরেই অবন্তিকা ভট্টাচার্য বেহালার বাড়িতে গায়ে আগুন ধরান বলে পরিবার সূত্রে খবর। 

এক্ষেত্রে তিনি অ্যালকোহল ব্যবহার করেছিলেন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাঁকে ভর্তি করানো হয়েছিল এসএসকেএম হাসপাতালে। তবে সেখানেই তাঁর মৃত্যু হয়। সরকারের বদলি নীতির জেরেই এই পরিণতি বলে অভিযোগ করেছেন চিকিৎসকরা। এই ঘটনায় চিকিৎসকরা গত ১০ বছর ধরে রাজ্যের চিকিৎসকদের বদলি নীতি নিয়ে সরব হয়েছেন। তাঁরা তুলে ধরেছেন বাম আমলের বদলি নীতির কথা। নির্দিষ্ট সময় জেলায় পরিষেবা দেওয়ার পরে বাড়ির কাছে পোস্টিং দেওয়ার রেওয়াজ ছিল। পাশাপাশি পারিবারিক সমস্যার বিষয়টিও দেখা হত। কিন্তু এখন তার কিছুই দেখা হয় না বলে অভিযোগ।

 এদিকে চিকিৎসক অবন্তিকা ভট্টাচার্যের মৃত্যুর পরে তাঁর ঘনিষ্ঠরা সোশ্যাল মি়ডিয়ায় ক্ষোভ ব্যক্ত করেছেন। রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতরের বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙুল তুলেছেন তাঁরা। তাঁরা স্বজনপোষণের অভিযোগ তোলার পাশাপাশি দফতরের বদলিতে কারও কারও ছরি ঘোরানোর অভিযোগও তুলেছেন। করোনা পরিস্থিতিতে বিধি মেনে এব্যাপারে তাঁদের আন্দোলনে বাধা দেওয়ার অভিযোগ করেছেন চিকিৎসকরা। স্বামী মুর্শিদাবাদে কর্মরত অবন্তিকা ভট্টাচার্যের স্বামী স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞ, তিনি মুর্শিদাবাদে কর্মরত। 

তাঁদের বছরে আটেকের মেয়ে রয়েছে, তবে সে বিশেষ ক্ষমতা সম্পন্ন। যে কারণে বারবার তিনি কলকাতায় বদলির জন্য দরবার করেছিলেন। অভিযোগ তা আর করেনি স্বাস্থ্য দফতরের কর্তারা। ওই চিকিৎসকের ঘনিষ্ঠমহল সূত্রে খবর, পদন্নতি না করে নতুন করে ডায়মন্ড হারবারে বদলি নিয়ে তিনি অবসাদে ভুগতে শুরু করেছিলেন।ওয়ান ইন্ডিয়ার/এনবিএস/২০২১/একে

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *