ঢাকা, মঙ্গলবার ২৬ অক্টোবর ২০২১, ০২:৩৯ অপরাহ্ন
কর্নাটকে একই কলেজের ৩২ জন ছাত্রছাত্রী কোভিড পজিটিভ, উদ্বেগ
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :

কর্নাটকে একই কলেজের ৩২ জন ছাত্রছাত্রী কোভিড পজিটিভ, উদ্বেগ

 কর্নাটকের (Karnataka) কোলারে এক নার্সিং কলেজের (Nursing College) ৩২ জন ছাত্রছাত্রী কোভিড পজিটিভ হয়েছেন। তাতে চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে রাজ্য জুড়ে। কর্নাটকের স্বাস্থ্যমন্ত্রী (Health Minister) জানিয়েছেন, তিনি ওই কলেজ পরিদর্শনে যাবেন। কলেজ কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তাঁর কথায়, “কোলার গোল্ড ফিল্ডসে একটি কলেজের ৩২ জন ছাত্রছাত্রী কোভিড পজিটিভ হয়েছেন। আমি ওই কলেজে যাব। কলেজ কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।” মন্ত্রী নির্দিষ্ট তথ্য দিয়ে বলেন, একসময় রাজ্যে দৈনিক প্রায় ৫০ হাজার মানুষ কোভিডে আক্রান্ত হচ্ছিলেন। এখন দৈনিক সংক্রমণ ৭০০-৮০০ তে নেমে এসেছে। অতিমহামারী নিয়ন্ত্রণের জন্য কঠোর পরিশ্রম করেছেন সরকারের কর্তাব্যক্তিরা।

বর্তমানে দেশের মধ্যে কেরলেই দৈনিক সংক্রমণ হচ্ছে সবচেয়ে বেশি। প্রতিদিন কেরল থেকে বহু মানুষ আসেন কর্নাটকের দক্ষিণ কন্নড় ও উদীপি জেলায়। স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, যাঁরা কেরল থেকে আসছেন, তাঁদের মাধ্যমে করোনা ছড়াচ্ছে কিনা, সেদিকে নজর রাখা হবে। পরে মন্ত্রী বলেন, প্রতিটি স্কুলকে বাধ্যতামূলকভাবে কোভিড গাইডলাইন মেনে চলতে হবে। কোনও স্কুলের ছাত্রসংখ্যার দুই শতাংশ কোভিডে আক্রান্ত হলে স্কুল বন্ধ করে দিতে হবে।


এর মধ্যে জানা যায়, কোভিডের ডেল্টা প্রজাতির পরে নতুন ভ্যারিয়ান্টের আবির্ভাব ঘটেছে। নয়া এই প্রজাতিকে ইতিমধ্যেই ‘ভ্যারিয়ান্ট অব কনসার্ন’ বলে উল্লেখ করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু)। ডেল্টার থেকেও এই প্রজাতি আরও বেশি সংক্রামক বলেই অনুমান বিজ্ঞানীদের। দক্ষিণ আফ্রিকায় কোভিডের এই প্রজাতির বাড়বাড়ন্ত। ভারতেও ঢুকেছে কিনা সে নিয়ে উদ্বেগ আরও বাড়ছে। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের অধীনস্থ প্যানেল বলেছে, ভারতে এখনও কোভিডের এই অতি সংক্রামক প্রজাতির দেখা মেলেনি। তবে সতর্কতা জারি হয়েছে। কেরলে এমনিতেও ডেল্টা প্রজাতির সংক্রমণ বাড়ছে, তার মধ্যে এই নয়া প্রজাতি ছড়িয়ে পড়লে পরিস্থিতি আরও বিপজ্জনক হয়ে উঠবে।

সার্স-কভ-২ ভাইরাসের এই নয়া ভ্যারিয়ান্টের নাম সি.১.২ । প্রথম খুঁজে পাওয়া যায় দক্ষিণ আফ্রিকায়। বিজ্ঞানীরা বলছেন, এ বছর মে মাসে দক্ষিণ আফ্রিকায় কোভিডের এই নতুন প্রজাতির দেখা মেলে। এর পরে চিন, কঙ্গো প্রজাতন্ত্র, মরিশাস, ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড, পর্তুগাল ও সুইৎজারল্যান্ডে সি.১.২ প্রজাতি ছড়িয়ে পড়ে।

ভাইরোলজিস্টরা বলছেন, গত বছর মার্চ থেকে করোনার যে প্রজাতি ভারতে ছড়াতে শুরু করেছিল তার এখন অনেক বদলে গিয়েছে। তা এখন সুপার-স্প্রেডার হয়ে উঠেছে। অর্থাৎ সেই ভ্যারিয়ান্ট অনেক দ্রুত মানুষের শরীরে ঢুকে সংক্রমণ ছড়াতে পারে। সার্স-কভ-২ হল আরএনএ (রাইবোনিউক্লিক অ্যাসিড) ভাইরাস। এর শরীর যে প্রোটিন দিয়ে তৈরি তার মধ্যেই নিরন্তর বদল হচ্ছে।। খবর  দ্য ওয়ালের/এনবিএস/২০২১/একে

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *