ঢাকা, বুধবার ২৭ অক্টোবর ২০২১, ০৭:২১ অপরাহ্ন
কাশ্মীরি মুসলিমদের হয়ে বলার অধিকার আছে আমাদের, দাবি করল তালিবান
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :

কাশ্মীরি মুসলিমদের হয়ে বলার অধিকার আছে আমাদের, দাবি করল তালিবান

 এতদিন কাশ্মীর (Kashmir) নিয়ে বিশেষ মাথা ঘামায়নি তালিবান। কিন্তু বৃহস্পতিবার আচমকাই তালিবানের মুখপাত্র বললেন, কাশ্মীর সহ বিশ্বের যে কোনও মুসলমানদের নিয়ে সরব হওয়ার অধিকার আমাদের আছে। তবে একইসঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, তাঁরা কোনও দেশের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করতে চান না। বিবিসি উর্দুর এক সাক্ষাৎকারে তালিবান মুখপাত্র সুহেইল শাহিন বলেন, “মুসলিম হিসাবে আমরা ভারত, কাশ্মীর সহ বিশ্বের যে কোনও দেশের মুসলিমদের নিয়ে সরব হতেই পারি। আমাদের সেই অধিকার আছে।”

পরে জিও নিউজে সাক্ষাৎকারে সুহেইল বলেন, “আমরা বলব, মুসলিমরা তোমাদেরই দেশের নাগরিক। তোমাদের আইন অনুযায়ী তারা সমান অধিকার পেতে পারে।”


১৫ অগাস্ট কাবুল দখল করার পরে তালিবান বলেছিল, “কাশ্মীর হল ভারত ও পাকিস্তানের দ্বিপাক্ষিক সমস্যা।” কয়েকদিনের মধ্যে তারা সেই অবস্থান থেকে সরে এসেছে। বৃহস্পতিবার ভারতের বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র অরিন্দম বাগচি বলেন, আমরা চাই, জঙ্গিরা যেন আফগানিস্তানের মাটিকে ব্যবহার না করতে পারে।


তালিবান জানিয়েছে, ন’য়ের দশকে ক্ষমতায় এসে তারা যেসব নিয়ম-কানুন চালু করেছিল, এবার তা করবে না। বাস্তবে সেই প্রতিশ্রুতি তারা কতদূর রক্ষা করে, সেদিকে নজর রাখছে ভারত। আফগানিস্তানে তালিবানের ক্ষমতা দখলের কোনও প্রভাব কাশ্মীর উপত্যকায় পড়ছে কিনা, সেদিকেও লক্ষ রাখা হচ্ছে। একটি সূত্রে জানা গিয়েছে, প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা পেরিয়ে কাশ্মীরে অনুপ্রবেশের সংখ্যা বেড়েছে। সীমান্তের ওপারে যেসব লঞ্চপ্যাড থেকে জঙ্গিরা ভারতে ঢোকে, সেগুলি ফের সক্রিয় করে তোলা হচ্ছে।

তালিবান নিজে কখনও কাশ্মীর নিয়ে আগ্রহ না দেখালেও কাশ্মীরে সক্রিয় জঙ্গি গোষ্ঠীগুলি অনেক সময় আফগানিস্তানে ঘাঁটি বানিয়েছে। তালিবানের থেকে প্রশিক্ষণও নিয়েছে। সেই গোষ্ঠীগুলির মধ্যে আছে হরকত উল আনসার ও জয়েশ ই মহম্মদ।

গত মঙ্গলবার তালিবান নেতা শের মহম্মদ আব্বাসের সঙ্গে কাতারে আলোচনায় বসেন ভারতের দূত দীপক মিত্তাল। তিনি তালিবান প্রতিনিধিকে স্পষ্ট জানিয়ে দেন, ভারত চায় না আফগানিস্তানের মাটিতে জঙ্গিদের ঘাঁটি হোক।

এর আগে গত সোমবার মার্কিন সেনা আফগানিস্তান ছাড়ার পরে একটি বিবৃতি দেয় জঙ্গি সংগঠন আল কায়েদা আফগান যুদ্ধে জয়লাভের জন্য তালিবানকে অভিনন্দন জানানোর পাশাপাশি বিবৃতিতে বলা হয়, এবার বিশ্ব জুড়ে জেহাদ ছড়িয়ে দিতে হবে। মুক্ত করতে হবে কাশ্মীরকেও। বৃহস্পতিবার ভারত সরকার জানায়, পাকিস্তানের গুপ্তচর সংস্থা আইএসআইয়ের পরামর্শেই কাশ্মীরে জেহাদ চালানোর কথা বলেছে আল কায়েদা। রাশিয়ার চেচনিয়া এবং চিনের শিনজিয়াং প্রদেশেও ইসলামি জঙ্গিরা সক্রিয়। কিন্তু যেহেতু ওই দুই দেশ তালিবানের বন্ধু তাই তাদের জমিতে জেহাদ চালানোর কথা বলা হয়নি।

সরকারি সূত্রে জানানো হয়েছে, “আল কায়েদা যেভাবে বিশ্ব জুড়ে জেহাদ চালানোর আহ্বান জানিয়েছে, তা উদ্বেগের বিষয়। তাদের বিবৃতিতে কাশ্মীরের কথা আছে। তালিবান আগে কখনও কাশ্মীর নিয়ে মাথা ঘামায়নি। আল কায়েদার ওই বিবৃতির পিছনে আছে আইএসআই।” সরকারের মতে, ওই বিবৃতিতে লস্কর ই তৈবা এবং জয়েশ ই মহম্মদের মতো পাকিস্তানের মদতপুষ্ট জঙ্গি গোষ্ঠীগুলি উৎসাহিত হবে । খবর  দ্য ওয়ালের / এনবিএস/২০২১/একে

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *