ঢাকা, মঙ্গলবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:৩৯ অপরাহ্ন
কোভিড পরিস্থিতি উদ্বেগজনক, কেরলে একাদশ শ্রেণির পরীক্ষা বন্ধ করল সুপ্রিম কোর্ট
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :

কোভিড পরিস্থিতি উদ্বেগজনক, কেরলে একাদশ শ্রেণির পরীক্ষা বন্ধ করল সুপ্রিম কোর্ট

ছোট ছেলেমেয়েদের বিপদে ফেলা উচিত নয়। এই মন্তব্য করে শুক্রবার কেরলে একাদশ শ্রেণির পরীক্ষা স্থগিত রাখল সুপ্রিম কোর্ট (Supreme Court)। আগামী ৬ সেপ্টেম্বর থেকে অফলাইনে ওই পরীক্ষা হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু শীর্ষ আদালত এদিন বলেছে, চোট ছেলেমেয়েরা পরীক্ষা দিতে এসে ভাইরাসে আক্রান্ত হতে পারে। তাই পরীক্ষা এক সপ্তাজ স্থগিত রাখা হল।

বিচারপতি খানউইলকরের নেতৃত্বে এক বেঞ্চ মন্তব্য করে, “কেরলের পরিস্থিতি খুবই উদ্বেগজনক। সেখানে দৈনিক ৩৫ হাজার মানুষ করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন। সারা দেশে যতজন করোনা পজিটিভ হচ্ছেন, তাঁদের ৭০ শতাংশই কেরলের বাসিন্দা।”

ভারতে কোভিড অতিমহামারীর নতুন এপিসেন্টার হয়ে উঠেছে কেরল। গত বৃহস্পতিবার জানা যায়, অতিমহামারী শুরু হওয়ার পরে দক্ষিণের ওই রাজ্যে ৪১ লক্ষ মানুষ কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন। সেখানে টেস্ট পজিটিভিটি রেট ১৮.৪১ শতাংশ। কেরলের পরে আক্রান্তের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি মহারাষ্ট্রে। সেখানে গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ৪৪৫৬ জন।

গত কয়েক দিন ধরে কেরলে দৈনিক ৩০ হাজারের বেশি মানুষ কোভিডে আক্রান্ত হচ্ছেন। রাজ্যে কোভিডে মোট মারা গিয়েছেন ২১ হাজার জন।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যসচিব রাজেশ ভূষণ বলেছেন সামগ্রিকভাবে দেশে পজিটিভিটি রেট কমছে। ৩১ অগাস্ট শেষ হওয়া সপ্তাহে দেশের ৩৯ টি জেলায় পজিটিভিটি রেট ছিল ১০ শতাংশের বেশি। ওই সময় ৩৮ টি জেলায় পজিটিভিটি রেট ছিল পাঁচ থেকে ১০ শতাংশের মধ্যে। গত জুন মাসে দেশের ২৭৯ টি জেলায় দৈনিক ১০০ জন সংক্রমিত হতেন। ৩০ অগাস্ট শেষ হওয়া সপ্তাহে জানা যায়, এখন ৪২ টি জেলায় দৈনিক সংক্রমিত হচ্ছেন ১০০ জন।

রাজেশ ভূষণ বলেন, “একমাত্র কেরলেই এখন কোভিড অ্যাকটিভ কেসের সংখ্যা ১ লক্ষের বেশি। ১০ হাজার থেকে ১ লক্ষের মধ্যে অ্যাকটিভ কেস রয়েছে চারটি রাজ্যে। সেগুলি হল মহারাষ্ট্র, কর্নাটক, তামিলনাড়ু ও অন্ধ্রপ্রদেশ।” অন্যান্য রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিতে অ্যাকটিভ কেসের সংখ্যা ১০ হাজারের কম। স্বাস্থ্যসচিব জানান, এখনও পর্যন্ত সারা দেশে ৩০০ জনের শরীরে কোভিডের ডেল্টা ভ্যারিয়ান্টের অস্তিত্ব ধরা পড়েছে।

কোভিড টাস্ক ফোর্সের প্রধান ভি কে পাল বলেছেন, “গণেশ চতুর্থী, দেওয়ালি ও ইদের মতো উৎসব পালিত হবে কয়েক মাসের মধ্যেই। গত বছরের মতো এবারেও নানা বিধিনিষেধ মেনে উৎসব পালন করতে হবে। আমরা সাধারণ মানুষের উদ্দেশে আহ্বান জানাচ্ছি, বাড়িতে থেকেই উৎসব পালন করুন।”

করোনাভাইরাস নিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রকের সাংবাদিক বৈঠকের সময় ভি কে পাল আবেদন জানান, প্রকাশ্য স্থানে গেলে সকলেই যেন মাস্ক পরেন। আইসিএমআরের ডায়রেক্টর জেনারেল বলরাম ভার্গব বলেন, “কোভিডের দ্বিতীয় ঢেউ এখনও রয়েছে। তাই প্রত্যেক নাগরিকের কাছে আবেদন জানানো হচ্ছে, তাঁরা যেন কোভিড বিধি মেনে চলেন। খবর দ্য ওয়ালের /২০২১/এনবিএস/একে

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *