ঢাকা, শুক্রবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:১১ অপরাহ্ন
সাঁকরাইলে বাইক চক্রের তদন্তে নেমে খুনের কিনারা পুলিশের, গ্রেফতার ২
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :

সাঁকরাইলে বাইক চক্রের তদন্তে নেমে খুনের কিনারা পুলিশের, গ্রেফতার ২

 কেঁচো খুঁড়তে কেউটে। বাইক চুরির তদন্তে নেমে করতে নাবালক খুনের (Murder) কিনারা করল পুলিশ। ঘটনায় দুই যুবককে গ্রেফতার (Arrest) করছে পুলিশ। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়।

ঘটনাটি ঘটেছে সাঁকরাইলে। দীর্ঘদিন ধরে থানায় বাইক চুরির অভিযোগ আসতে থাকে। সেই নিয়েই তদন্তে নেমে পুলিশের জালে আটক হল দুই যুবক। তবে সেটি বাইক চুরির ঘটনায় নয় খুনের ঘটনায়। যা রীতিমতো উত্তেজনা ছড়িয়েছে। মৃতের পরিবার এই ঘটনার সুবিচার দাবি করেছে পুলিশের কাছে।


জানা গেছে, গত ২৩ জানুয়ারি থেকে সাঁকরাইলের কামদেবপুর এলাকার এক নাবালক রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হয়ে যায়। শেখ হাসানের (১৭) নামে নিখোঁজ ডায়েরি করে পরিবার। কিন্তু এতদিন খোঁজ মেলেনি তাঁর। তদন্ত চালাচ্ছিল পুলিশ।

এদিকে, এলাকায় বাইক চুরির ঘটনার তদন্তে নেমে শেখ নিয়ামুল এবং শেখ মুন্নাকে গ্রেফতার করে সাঁকরাইল থানার পুলিশ। জেরার মুখে হাসানের খুনের কথা স্বীকার করেছে বলে জানা যাচ্ছে পুলিশের তরফে।

পুলিশের দাবি, ওই দুই যুবক জেরায় স্বীকার করে নেয় যে হাসানকে তারা খুন করে সারেঙ্গায় এক ইটভাটায় পুঁতে রেখেছে। শুক্রবার বিকালে ওই দুজনকে সঙ্গে নিয়ে সাঁকরাইল থানার পুলিশ ওই ইটভাটায় পৌঁছয়। কড়া নিরাপত্তার মধ্যে মাটি খুঁড়ে মৃতের দেহ উদ্ধার করে।

মৃতের দাদা শেখ শামসের বলেন, “ভাই দর্জির কাজ করত। একই এলাকায় থাকার জন্য সেখ নিয়ামুলের সঙ্গে তার পরিচয় হয়। তাদের সন্দেহ হয় হাসান পুলিশকে তাদের ব্যাপারে খবর দিচ্ছে। তাই ভাইকে খুন করা হয়। তার ভাই নির্দোষ ছিল।”

ছেলের মৃতদেহ দেখে কান্নায় ভেঙে পড়েন হাসানের বাবা আনোয়ার আলি শেখ। তিনি বলেন, “বন্ধুদের সঙ্গে মেশাই কাল হল। তার ছেলে বাইক চুরির ব্যাপারে কিছুই জানত না।” সাঁকরাইল থানার এক তদন্তকারী অফিসারের কথায়, সন্দেহের বশেই হাসানকে নির্জন ইটভাটায় মদ খাইয়ে খুন করে দুই অভিযুক্ত। ঘটনায় অন্য কেউ জড়িত কিনা তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।  । খবর দ্য ওয়ালের  ​/২০২১/এনবিএস/এক

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *