ঢাকা, মঙ্গলবার ২৬ অক্টোবর ২০২১, ০৩:৪৮ অপরাহ্ন
পঞ্জশির প্রতিরোধের দুই নেতা মাসুদ, আমরুল্লা পালিয়েছেন তাজিকিস্তানে, দাবি তালিবানের
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :


পঞ্জশির প্রতিরোধের দুই নেতা মাসুদ, আমরুল্লা পালিয়েছেন তাজিকিস্তানে, দাবি তালিবানের

 প্রতিরোধের কেন্দ্রবিন্দু পঞ্জশির উপত্যকা (panjshir valley) পুরোপুরি দখলের দাবি করেছে আগেই। তাদের  পঞ্জশির দখলে পথের কাঁটা হয়ে ওঠা দুই নেতা আহমেদ মাসুদ (ahmed masood) ও প্রাক্তন  ভাইস প্রেসিডেন্ট আমরুল্লা সালে (amrullah saleh) পালিয়ে পড়শী দেশ তাজিকিস্তানে(tajikistan) চলে গিয়েছেন বলেও এবার জানালেন তালিবান (taliban) মুখপাত্র জাবিউল্লাহ মুজাহিদ। মাসুদের নেতৃত্বে ন্যাশনাল রেজিস্ট্যান্স ফ্রন্ট অব আফগানিস্তান (এনআরএফএ) তালিবানের সামনে প্রতিরোধের প্রাচীর গড়ে তুলেছে। গত কয়েকদিন ধরে তালিবান ও প্রতিরোধ বাহিনীর রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে দুপক্ষের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয় বলে খবর। তার মধ্যেই জাবিউল্লাহের দাবি, তাঁকে বলা হয়েছে যে, মাসুদ, সালে পালিয়ে তাজিকিস্তানে আশ্রয় নিয়েছেন।

এদিন রয়টার্স জানায়, সোস্যাল মিডিয়ায় প্রতিরোধ বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষের পর তালিবান জঙ্গিদের পঞ্জশির প্রাদেশিক গভর্নরের কম্পাউন্ডের দরজায় দাঁড়িয়ে থাকার ছবি বেরিয়েছে। যদিও প্রতিরোধ  বাহিনীর বিদেশ সংক্রান্ত শাখার প্রধান আলি মইসাম নাজারি তালিবানের পঞ্জশির বিজয়ের দাবি পুরোপুরি মিথ্যা, বিরোধী বাহিনী লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন। তিনি নিজের ফেসবুক পেজে লিখেছেন, এনআরএফ বাহিনী লড়াই অব্যাহত রাখতে  উপত্যকা জুড়ে কৌশলগত দিক থেকে গুরুত্বপূর্ণ সব জায়গায় উপস্থিত রয়েছে। মাসুদ নিজে ট্যুইট করে নিরাপদে থাকার কথা জানিয়েছেন, তবে বিস্তারিত কিছু লেখেননি।


এর মধ্যেই তালিবান বিদেশি সাহায্য নেওয়ার উদ্যোগ চালাচ্ছে। জাবিউল্লাহ জার্মানির বিল্ড সংবাদপত্রকে বলেছেন, তালিবান আফগানিস্তানে জার্মান বিনিয়োগ ও মানবিক ত্রাণ, স্বাস্থ্য পরিষেবা, শিক্ষা, পরিকাঠামো সহ নানা ক্ষেত্রে তাদের সাহায্য স্বাগত জানাবে। জার্মানি ইউরোপীয় ইউনিয়নের সঙ্গে তাল রেখে শর্ত দিয়েছে, কাবুলে তারা ফের কূটনৈতিক শাখা খুলবে, উন্নয়ন খাতে বন্ধ রাখা অর্থসাহায্য ফের চালু করবে, তবে তালিবানকেও মানবাধিকারকে, বিশেষতঃ মহিলাদের অধিকারগুলির স্বীকৃতি, সম্মান দিতে হবে। তালিবান মুখপাত্র বলেছেন, জার্মান সরকার আমাদের দেশে তাদের শিল্পোদ্যোগীদের এসে বিনিয়োগে উত্সাহ দিতে পারে।

তালিবান মুখপাত্র আফগানিস্তানে যুদ্ধের অবসান হয়েছে বলে জানিয়ে আশা প্রকাশ করেছেন, আফগানিস্তান একটি স্থিতিশীল দেশ হয়ে উঠবে বলে তাদের আশা। তাঁর সংযোজন, গত ২০ বছর ধরে নানা ক্ষেত্রে প্রশিক্ষণ পাওয়া  নিরাপত্তা ও প্রতিরক্ষাকর্মীদের দেশের নিরাপত্তা ও প্রতিরক্ষা সংক্রান্ত প্রতিষ্ঠানগুলিতে তালিবানের পাশাপাশি নিয়োগ করা হবে।

সরকার গঠন নিয়ে তালিবানের মধ্যে মতভেদের জল্পনাও উড়িয়ে দিয়েছেন জাবিউল্লাহ। বলেছেন, শীঘ্রই নতুন সরকার ঘোষণা করা হবে। তবে তার দিনক্ষণ জানাননি তিনি। আরও বলেছেন, মহিলারা স্বাস্থ্য ও শিক্ষাক্ষেত্রে রাজে ফিরেছেন, তাদের জন্য একবার গোটা সিস্টেম প্রতিষ্ঠা হয়ে গেলে অন্য ক্ষেত্রগুলিতেও একে একে তাঁরা ফিরবেন। খবর দ্য ওয়ালের/২০২১ / এনবিএস/একে 

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *