ঢাকা, সোমবার ২৫ অক্টোবর ২০২১, ০১:৪২ পূর্বাহ্ন
বায়ুসেনার শক্তি বাড়াতে স্পেন থেকে ৫৬টি ট্রান্সপোর্ট এয়ারক্র্যাফ্ট, ৪০টি তৈরি হবে ভারতে, ছাড়পত্র কেন্দ্রের
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :

বায়ুসেনার শক্তি বাড়াতে স্পেন থেকে ৫৬টি ট্রান্সপোর্ট এয়ারক্র্যাফ্ট, ৪০টি তৈরি হবে ভারতে, ছাড়পত্র কেন্দ্রের 

 ভারতীয় বায়ুসেনার (indian air force) শক্তি বাড়াতে স্পেনের (spain) একটি বেসরকারি সংস্থা  থেকে ৫৬টি সি-২৯৫এম ডব্ল্যু  এয়ারক্র্যাফ্ট (transport aircraft) সংগ্রহে ছাড়ুপত্র দিল কেন্দ্র। সবকটি বিমানেই দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি কাউন্টারমেজার সিস্টেম (ইলেকট্রনিক ওয়ারফেয়ার স্যুট ) থাকবে। নিরাপত্তা সংক্রান্ত ক্যাবিনেট কমিটির বৈঠকে ৫৬টি বিমান জোগাড় করার প্রস্তাব গৃহীত হয়েছে। এতে খরচ হতে পারে ২০ থেকে ২১ হাজার কোটি টাকা, যদিও তা বিনিময় হারের ওপর নির্ভর করবে।


এব্যাপারে চুক্তি স্বাক্ষরিত হওয়ার ৪৮ মাসের মধ্যে ১৬টি বিমান ওড়ার মতো অবস্থায় সরবরাহ করা হবে। ৪০টি বিমান দশ বছরের মধ্যে ভারতেই তৈরি করবে টাটা কনসর্টিয়াম। প্রতিরক্ষা মন্ত্রক সূত্রের খবর। এটা এধরনের প্রথম প্রজেক্ট যেখানে একটি বেসরকারি কোম্পানি ভারতে সামরিক যুদ্ধবিমান তৈরি করবে, জানিয়েছে সরকার।

প্রতিরক্ষামন্ত্রক প্রকাশিত বিবৃতিতে বলা  হয়েছে, সি-২৯৫এম ডব্ল্যু  এয়ারক্র্যাফ্টের ৫-১০ টন বহনের ক্ষমতা আছে, একেবারে সমসাময়িক প্রযুক্তির অধিকারী। এগুলি আনা হচ্ছে ভারতীয় বায়ুসেনার বহু পুরানো, বয়স  হয়ে যাওয়া অ্যাভ্রো এয়ারক্র্যাফ্টের (avro aircraft) বদলে। প্রায় ৬০ বছর আগে বায়ুসেনার অন্তর্ভুক্ত হয়েছিল অ্যাভ্রো এয়ারক্র্যাফ্ট।


সি-২৯৫এম ডব্ল্যু  এয়ারক্র্যাফ্টের একেবারে প্রান্তে এমন দরজা আছে যাতে পরিস্থিতি অনুসারে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া যায়, সেনা জওয়ান, মালপত্র আকাশপথে নীচে ফেলা সম্ভব।

মন্ত্রকের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, এই প্রজেক্টের ফলে ভারতে এয়ারোস্পেস ইকোসিস্টেম বিরাট চাঙ্গা হবে। বিমানের নানা অংশ,  যন্ত্রপাতি নির্মাণে দেশব্যাপী বহু ক্ষুদ্র, মাঝারি শিল্প সংস্থা সামিল হতে পারবে। সরকারের আত্মনির্ভর ভারত অভিযান প্রকল্পও এতে সমৃদ্ধ হবে, কেননা প্রযুক্তিনিবিড় ও চরম প্রতিযোগিতামূলক এভিয়েশন ইন্ডাস্ট্রিতে ভারতীয় বেসরকারি সেক্টরেরও পা রাখার অভিনব সুযোগ মিলবে।

প্রতিরক্ষামন্ত্রক এও বলেছে, ভারতে বিমানের পার্টস তৈরি, যন্ত্রপাতি জোড়া দেওয়া, বড় ধরনের সাজসরঞ্জাম জোড়া দেওয়ার ডিল হলে তা এয়ারোস্পেস ইকোসিস্টেমে কর্মসংস্থানের অনুঘটকের ভূমিকা পালন করবে। সরাসরি ৬০০ বিরাট স্কিলড কাজের সুযোগ তৈরি হবে,  ৩ হাজারের ওপর পরোক্ষ কাজ, অতিরিক্ত ৩ হাজার মাঝারি দক্ষতার কাজের সুযোগও আসবে। ভারতের ডিফেন্স সেক্টর ও এয়ারোস্পেসে ৪২.৫ লাখের ওপর মানুষ-ঘন্টা কাজ সৃষ্টি হবে। খবর দ্য ওয়ালের  /এনবিএস/২০২১/একে

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *