ঢাকা, বুধবার ২৭ অক্টোবর ২০২১, ০৮:১২ অপরাহ্ন
১১টা বাচ্চার জন্য দেশে ফিরতে চান, কিন্তু আফগান নাগরিককে ভারত ছাড়ার অনুমতি নয় কোর্টের
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :

১১টা বাচ্চার জন্য দেশে ফিরতে চান, কিন্তু আফগান নাগরিককে ভারত ছাড়ার অনুমতি নয় কোর্টের

: আফগানিস্তানের (afghan citizen) নাগরিক রুহুল্লা আমিনের (ruhulla amin) দেশে ফেরার আর্জি খারিজ করে দিল দিল্লি হাইকোর্ট (delhi high court)। গত জানুয়ারিতে বেআইনি ভাবে কিছু ওষুধপত্র (drugs) সঙ্গে রাখায় ইন্দিরা গাঁধী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে  শুল্ক দপ্তরের (customs) লোকজনের হাতে ধরা পড়েন রুহুল্লা। তাঁর  হেফাজত থেকে বাজেয়াপ্ত হওয়া সামগ্রীর অর্থমূল্য ছিল প্রায় ১০ লাখ টাকা। এজন্য দোষী সাব্যস্ত হন তিনি। জরিমানা হয় ১৩ লাখ টাকা। পাশাপাশি ৯ লাখ টাকা রিডেম্পশন ফাইনও হয়। ফেব্রুয়ারিতে মোট ২২ লাখ টাকা পরিশোধ দেওয়ার মতো শর্তে রুহুল্লাকে দেশে ফেরার অনুমোদন দেয় মেট্রপলিটান কোর্ট। জুনে দায়রা আদালতে রুহুল্লা সেই আদেশ চ্যালেঞ্জ করেন। কিন্তু দায়রা আদালত মেট্রপলিটান ম্যাজিস্ট্রেটের  রায়ে হস্তক্ষেপ করতে অস্বীকার করে।


হাইকোর্টে রুহুল্লা জানান, ১১টি বাচ্চার  দেখাশোনা করতে হবে তাঁকে, প্রথম স্ত্রীকে মেরে ফেলেছে তালিবান। তাই তাঁকে আফগানিস্তান ফেরার অনুমতি দেওয়া হোক। রুহুল্লার আইনজীবী হাইকোর্টে আবেদন করেন, মোট জরিমানার ২০ শতাংশ আদায় করে রুহুল্লাকে দেশে ফিরে যেতে দেওয়া হোক। পাশাপাশি তিনি সওয়াল করেন, যেহেতু রুহুল্লা তাঁর বাজেয়াপ্ত সামগ্রী ফেরত চান না, তাই রিডেম্পশন ফাইন দেওয়ার দরকার নেই, শুধু জরিমানার টাকাই নেওয়া হোক।

কিন্তু হাইকোর্টের অভিমত, আফগানিস্তানের চলতি পরিস্থিতিতে একবার দেশে চলে  গেলে রুহুল্লার ভারতে ফেরার সম্ভাবনা খুবই ক্ষীণ। আফগান নাগরিকের পাসপোর্ট রিলিজ ও তাঁকে ১৩ লাখ টাকা জরিমানা না দিয়েই ভারত ছাড়ার অনুমতি দিতে রাজি হয়নি হাইকোর্ট। আদালত জানায়, অতিরিক্ত  শুল্ক  কমিশনারের আদেশই চূড়ান্ত কেননা তার বিরুদ্ধে আবেদন পেশ হয়নি।  হাইকোর্ট আরও  জানায়, রুহুল্লা আফগান নাগরিক, ভারতে তাঁর কোনও সম্পত্তি নেই। সুতরাং কাস্টমস আইনে কোনও অর্থই উদ্ধার হওয়ার সম্ভাবনা নেই।  বিচারপতি মুক্তা গুপ্তা নিম্ন আদালতের রায় বহাল রাখেন।খবর দ্য ওয়ালের  /এনবিএস/২০২১/একে

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *