ঢাকা, সোমবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:৩৫ অপরাহ্ন
নেত্রকোণায় আজ আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা
সালাহ উদ্দীন খান রুবেল

নেত্রকোণায় আজ আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা

কবে সম্মেলন হবে জেলার ৩টি উপজেলা ও নেত্রকোণা সদর আওয়মী লীগের পৌরসভার সম্মেলন নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া। ত্যাগী-নির্যাতীত-নিপীড়িত, পোঢ় খাওয়া ও তৃণমূলের নেতা-কর্মীদের মাঝে রয়েছে সমঝোতার ঘাটতির। মাঠ পর্যায়ের আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের মন্তব্য প্রস্তুতি নিতে হবে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনসহ সাংগঠনিক কার্যক্রমের গতি বাড়ানোর। এনিয়েই আজ রোববার বিকেলে নেত্রকোণা সদর উপজেলা শাখা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে নেত্রকোণা পাবলিক হল মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে বর্ধিত সভা।

এতে নেত্রকোণা সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জি.এম. খান পাঠান বিমলের সঞ্চালনায় এস.এম বজলুর কাদের শাহ্জাহানের সভাপতিত্বে বর্ধিত সভায় বক্তব্য রাখেন-   বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক (ময়মনসিংহ বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত) শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল এম.পি, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সদস্য মারুফা আক্তার পপি, সদস্য উপাধ্যক্ষ রেমন্ড আরেং, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ¦ মোঃ মতিয়র রহমান খান, সাধারণ সম্পাদক বীর মক্তিযোদ্ধা মোঃ আশরাফ আলী খান খসরু এম.পি ও প্রতিমন্ত্রী সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়।

এছাড়াও জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট আমিরুল ইসলাম, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মোঃ নজরুল ইসলাম খান, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক প্রশান্ত কুমার রায়, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক নূর খান মিঠু, সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যাপক ভজন সরকার, সম্মানিত সদস্য অধ্যাপক ওমর ফারুক, সম্মানিত সদস্য খায়রুল কবীর খোকন সহ জেলা-উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ।  
  
দলীয় একাধিক সূত্রে জানা যায়, সেই দেড় যুগ আগে নেত্রকোণা জেলার ৩টি উপজেলার সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছিলো এবং জেলার সদর পৌরসভা অর্ধযুগ গত হয়েছে ৯ সদস্য বিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটি দিয়ে, তবুও হচ্ছে না নতুন কমিটি। এনিয়ে জেলায় আওয়ামী লীগের তৃণমূল রাজনীতিতে দীর্ঘকাল যাবৎ চলছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া। জানা যায়, ২০০৩ সালে নেত্রকোণা সদর উপজেলা, বারহাট্রা উপজেলা ও পূর্বধলা উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

ওই তিনটি সম্মেলনে নেত্রকোণা সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এস.এম.বজলুর কাদের শাহজাহান, সাধারণ সম্পাদক জি.এম. খান পাঠান বিমল, বারহাট্রা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোঃ আজিজুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা কাজি মোঃ আব্দুল ওয়াহেদ, পূর্বধলা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর প্রতিক ওয়ারেসাত হোসেন বেলাল এমপি, সাধারণ সম্পাদক এরশাদ হোসেন মালু। এদিকে ২০১৫ সালের বর্তমান পৌর আওয়ামী লীগে ৯ সদস্য বিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটি দিয়ে চলছে দলীয় কার্যক্রম, এতে করে প্রত্যেকটি ওয়ার্ডের সাংগঠনিক কর্মকান্ড ঢিলেঢালাভাবে চলছে, তবে সম্প্রতিকালে ১টি ওর্য়াডের সম্মেলন সম্পন্ন হয়। তাছাড়া বারহাট্রা উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্তমান কমিটি নিয়ে রয়েছে বিভিন্ন ধরনের মন্তব্য। ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের অভিযোগ, বারহাট্রার ৭টি ইউনিয়নের প্রত্যেকটি ওর্য়াডে একাধিক কমিটি রয়েছে। এছাড়া নেত্রকোণা সদর উপজেলার ১২টি ইউনিয়নের মধ্যে ৩টি ইউনিয়ন কমিটি সম্মেলন হয়েছে, এগুলো হলো- রৌহা, মৌগাতী, সম্প্রতি সময়ে কে-গাতী, অন্যান্য ইউনিয়ন কমিটি অনেক আগেই সম্মেলন হয়েছিলো। তবে নেত্রকোণা সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ বর্তমান সময়ে ওর্য়াড কমিটির সম্মেলন চলমান করেছিলো, এরমধ্যে দলীয় সূত্রে জানা যায়, ৪টি ইউনিয়নের ৮টি ওর্য়াডের সম্মেলন রয়ে গেছে।

পূর্বধলা উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা আবুল কালাম তালুকদার বলেন, খুবই দুঃখজনক বিষয় হলো ২০০৩সালে আমাদের উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন হয়, তার পর পরেই নেত্রকোণা জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এতে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি পদে নির্বাচিত হন বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ শামছুজ্জোহা, সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আশরাফ আলী খান খসরু এমপি। পুনরায় জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়, তাতে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি পদে মোঃ মতিয়র রহমান খান, আবারও সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আশরাফ আলী খান খসরু এমপি। তবুও পূর্বধলা উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন বা কমিটি হচ্ছে না।  দীর্ঘকাল যাবৎ পূর্বধলা উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটি না হওয়ায়, এনিয়ে উপজেলার সকল মহলে বিরূপ আলোচনা-সমালোচনা প্রতিনিয়তও রয়েছে।

 বারহাট্রা উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা হাসমত আলী মোল্লাহ্ মুঠোফোনে জানান, বারহাট্রা পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে ২০০৩সালে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। তবে দুঃখের বিষয় হলো অধ্যবদি বারহাট্রা উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্তমান কমিটি বিভিন্ন সময়ে সাংগঠনিক কর্মকান্ডে ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছেন। তিনি আরও জানান, বারহাট্রা উপজেলা আওয়ামী লীগের চলতি কমিটিতে আনুমানিক ১৬/১৭জন মারা গেছেন, ২জন বিএনপিতে যোগদান করেছেন, ১জন প্রবাসীতে অবস্থান করছেন। বারহাট্রা উপজেলা আওয়ামী লীগের গ্রাম-পাড়া-মহল্লাসহ সর্বত্র আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ এই অবস্থার পরিত্রাণ চায় সেই সঙ্গে অতিদ্রুত সময়ের মধ্যেই বারহাট্রা উপজেলা আওয়ামী লীগের নতুন কমিটি চায়। আরও উদ্বেকজনক বিষয় হলো-বারহাট্রার প্রত্যেকটি ওয়ার্ডে ডাবল করে কমিটি রয়েছে।

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *