ঢাকা, মঙ্গলবার ২৬ অক্টোবর ২০২১, ০৩:২৬ অপরাহ্ন
এমন অজ্ঞতা কখনও দেখিনি, মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর মন্তব্য নিয়ে তোপ ইমরানের
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :

এমন অজ্ঞতা কখনও দেখিনি, মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর মন্তব্য নিয়ে তোপ ইমরানের

আফগানিস্তানের যুদ্ধে পাকিস্তানেরও স্বার্থ ছিল। গত সোমবার এই মন্তব্য করেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিনকেন। বৃহস্পতিবার সিএনএনের এক সাক্ষাৎকারে ব্লিনকেনের তীব্র সমালোচনা করলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। তিনি বলেন, এমন মূর্খের মতো মন্তব্য আগে কখনও শুনিনি। মার্কিন কংগ্রেসের ফরেন অ্যাফেয়ার্স কমিটির সামনে ব্লিনকেন বলেছিলেন, আফগানিস্তান থেকে সেনা সরিয়ে আনার পরে পাকিস্তানের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের কথা আমাদের নতুন করে ভাবতে হবে। এর পাশাপাশি অন্যান্য মার্কিন কংগ্রেসম্যান অভিযোগ করেন, পাকিস্তান বরাবর জঙ্গিদের আশ্রয় দিয়ে এসেছে। এদিন সেই মন্তব্যের তীব্র বিরোধিতা করেন ইমরান। একইসঙ্গে তালিবান সরকারকে স্বীকৃতি দেওয়ার জন্যও কার্যত তিনি সওয়াল করেন।

তালিবান কাবুল দখল করার পরে এই প্রথমবার কোনও আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমকে সাক্ষাৎকার দিলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, আফগানিস্তানে যদি শান্তি ও স্থিতিশীলতা বজায় রাখতে হয়, তাহলে তালিবানের সঙ্গে সম্পর্ক রাখতে হবে। তাদের উৎসাহ দিতে হবে যাতে তারা সকলকে নিয়ে সরকার গঠন করে। মেয়েদের অধিকার মেনে নেয়।

ইমরানের কথায়, “তালিবান এখন পুরো আফগানিস্তান দখল করে নিয়েছে। তারা যদি যুদ্ধরত সব পক্ষকে নিয়ে সরকার গঠন করে, তাহলে দীর্ঘ ৪০ বছর বাদে আফগানিস্তানে শান্তি ফিরবে। কিন্তু যদি সকলকে নিয়ে সরকার না গড়া হয়, তাহলে সৃষ্টি হবে বিশৃঙ্খলা। বহু শরণার্থী প্রতিবেশী দেশগুলিতে ভিড় করবেন।”

অন্য প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “কেউ যদি ভাবে বাইরে থেকে কেউ আফগান মহিলাদের স্বাধীনতা দেবে, সে ভুল করছে। আফগান মহিলাদের যথেষ্ট ক্ষমতা আছে। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে তাঁরা নিশ্চয় নিজেদের অধিকার আদায় করবেন।”

ইমরান বলেন, মানবাধিকার রক্ষার জন্য তালিবানকে ‘সময়’ দিতে হবে। আফগানিস্তানে ত্রাণ না পাঠালে নৈরাজ্য সৃষ্টি হতে পারে। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী বক্তব্য, অভ্যন্তরীণ সংকট এড়ানোর জন্য তালিবান আন্তর্জাতিক সাহায্য চায়। অন্য প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “আফগানিস্তানের মানুষ কোনও পুতুল সরকারকে সমর্থন করবেন না।” ইমরানের মতে, কীভাবে আমরা ফের আফগানিস্তান দখল করব সেকথা না ভেবে আমাদের উচিত তালিবানকে সাহায্য করা। তালিবান মনে করে, আন্তর্জাতিক সাহায্য ছাড়া তারা দেশকে অশান্তির কবল থেকে বাঁচাতে পারবে না। আমাদের উচিত তাদের সঠিক পথে পরিচালনা করা।

আমেরিকার সঙ্গে পাকিস্তানের সম্পর্ক প্রসঙ্গে ইমরান বলেন, “আমরা ছিলাম ভাড়াটে গুন্ডার মতো। আশা করা হয়েছিল, আমরা আমেরিকাকে আফগানিস্তানের যুদ্ধে জিততে সাহায্য করব। আমরা তা পারিনি।” খবর দ্য ওয়ালের

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *