ঢাকা, বুধবার ২৭ অক্টোবর ২০২১, ০৫:৪৩ পূর্বাহ্ন
চিনা নভশ্চরদের মহাকাশ জয়, তিন মাস কাটিয়ে, শূন্যে হাঁটাহাঁটি করে ফিরলেন পৃথিবীতে
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :

চিনা নভশ্চরদের মহাকাশ জয়, তিন মাস কাটিয়ে, শূন্যে হাঁটাহাঁটি করে ফিরলেন পৃথিবীতে
 চাঁদের মাটি নিয়ে পৃথিবীতে ফিরছে চিনা (China) মহাকাশযান। ওদিকে মঙ্গলেও বিজয় পতাকা উড়িয়েছে চিন। এবার পৃথিবীর কক্ষেও চিনা স্পেস স্টেশন তৈরির কাজ অনেকটাই এগিয়ে গেছে বলে খবর। মহাকাশে (Space) পুরোদস্তুর বাড়ি বানাবে চিন, তার তদারকি করতেই প্রথমবার তিন জন নভশ্চরকে পাঠানো হয়েছিল মহাকাশে। তিন মাস মহাকাশে থেকে, মহাশূন্যে হাঁটাহাঁটি করে সাফল্যের খবর নিয়ে তাঁরা ফিরে আসছেন পৃথিবীতে।


এই অভিযানের সাফল্য চিনকে আরও একধাপ এগিয়ে দিল বলেই মনে করছেন মহাকাশ বিজ্ঞানীরা। আমেরিকা, রাশিয়ার পরে দীর্ঘসময় মহাকাশে থাকার অভিজ্ঞতা অর্জন করল চিন। সেই সঙ্গেই তিন নভশ্চর শূন্য মাধ্যাকর্ষণে (জিরো গ্র্যাভিটি) দু’বার স্পেস ওয়াকও সেরে নিয়েছেন।


চলতি বছর জুন মাসে প্রথম মানুষ নিয়ে মহাকাশ অভিযানে পাড়ি দেয় চিন। মহাকাশ স্টেশনে মানুষ পাঠানোর জন্য এটাই ছিল চিনের প্রথম উদ্যোগ। চিনের গোবি মরুভূমির জিউকুয়াং উৎক্ষেপণ কেন্দ্র থেকে তিন মহাকাশচারীকে নিয়ে উড়ে গিয়েছিল চিনা রকেট শেনঝৌ-১২। তিন নভশ্চরের নাম হাইশেং, লিউ বোমিং এবং তাং হোংবো।

চিনা নভশ্চরদের মহাকাশ পাড়ির অন্যতম উদ্দেশ্য হল স্পেস স্টেশনের কাজের তদারকি করা। পৃথিবীর কক্ষে নিজেদের স্পেস স্টেশন তৈরির জন্য কয়েক বছর ধরেই পরীক্ষা নিরীক্ষা চালাচ্ছে চিন। মহাকাশ স্টেশন বানানোর জন্য পরীক্ষামূলক ভাবে উপগ্রহও পাঠানো হয়েছে যার নাম ‘তিয়াংগং-২’। যা আদতে উপগ্রহ হলেও আগামী দিনে চিনা মহাকাশ স্টেশনেরই একটি প্রোটো-টাইপ। চিনের সরকারি সংবাদ সংস্থা ‘জিন হুয়া’ জানাচ্ছে, এ সবই আদতে পাকাপাকি ভাবে চিনা মহাকাশ স্টেশন গড়ে তোলার প্রস্তুতি। যাতে মহাকাশচারীরা থাকবেন। কোনও মহাকাশযান গিয়ে সেখানে নামতেও পারবে। ২০২২ সালের মধ্যে চিনা স্পেস স্টেশন বানানোর কাজ শেষও হয়ে যাবে বলে শোনা যাচ্ছে। সে ক্ষেত্রে রাশিয়া ও আমেরিকার পরে চিনই হবে তৃতীয় দেশ, যাদের নিজস্ব মহাকাশ স্টেশন থাকবে যার নাম হবে ‘হেভেনলি প্যালেস-২’। দৈর্ঘ্য হবে ১৫ মিটার বা ৪৯ ফুটের কিছু বেশি। মানে প্রায় পাঁচ তলা একটা বাড়ির সমান।


চিন প্রথম মহাকাশযান পাঠায় ২০০১ সালে। আর তার দু’বছরের মধ্যেই প্রথম মহাকাশচারী পাঠায় চিন। চিনের প্রথম মহাকাশচারী ইয়াং লিউই। এ বছর থেকে স্পেস স্টেশনের কাজ শেষ করার জন্য উঠেপড়ে লেগেছেন চিনের মহাকাশ বিজ্ঞানীরা। শুধু তাই নয়, ২০২৪ সালের মধ্যে চাঁদে হাঁটাহাঁটি করার জন্য মহাকাশচারী পাঠানোর কথাও নাকি ভেবে রেখেছে চিন। খবর দ্য ওয়ালের/২০২১/এনবিএস/একে 

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *