ঢাকা, বুধবার ২৭ অক্টোবর ২০২১, ০৭:০২ পূর্বাহ্ন
বিজেপিকে জাতিভিত্তিক জনগণনা নিয়ে এই দ্বিচারিতা বন্ধ করতে হবে: ক্রিস্টিনা সামি
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :

বিজেপিকে জাতিভিত্তিক জনগণনা নিয়ে এই দ্বিচারিতা বন্ধ করতে হবে: ক্রিস্টিনা সামি

সুপ্রিম কোর্টে জমা দেওয়া হলফনামায় প্রতিফলিত জাতিভিত্তিক জনগণনা সম্পর্কে কেন্দ্র সরকারের অবস্থানের নিন্দা করছে স্বরাজ ইন্ডিয়া। অনুমিত অসুবিধার জন্য জাতিভিত্তিক গননা করতে অক্ষমতা ঘোষণা করার সময় সরকার আরও বলেছে যে ভবিষ্যতেও তারা এই গননার বিরুদ্ধে দাঁড়াবে। ২০২০ সালের ২০ জুন, কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী নিত্যানন্দ রাই সংসদে জানিয়েছিলেন যে "সরকারের সিদ্ধান্ত হচ্ছে জনগণনায় এসসি এবং এসটি ছাড়া অন্য জাতিভিত্তিক জনসংখ্যা গণনা না করা"। গত কয়েক মাসে বিজেপির বেশ কয়েকজন নেতা জাতিভিত্তিক জনগণনার বিরুদ্ধে বক্তব্য রেখেছেন।

জাতি ভিত্তিক জনগণনা সম্পর্কে বিজেপি নেতৃত্বাধীন সরকারের অবস্থান অযৌক্তিক এবং দুরভিসন্ধিমূলক। স্বীকৃতি দেওয়া, শ্রেণীভুক্ত করা এবং সংখ্যা নিরুপন করা বর্ণপ্রথা ধ্বংসের প্রথম পদক্ষেপ। এই ধরনের জনগণনার পদ্ধতি "কঠিন" বলে যে অজুহাত দেওয়া হচ্ছে তা সম্পূর্ণ অযৌক্তিক, কারণ ওবিসির গণনা করার জন্য জনগণনার জন্য নির্দিষ্ট সারণিতে শুধুমাত্র আরও একটি বেশি কলাম যুক্ত করতে হবে। যাই হোক না কেন, ভারতের জনগণনায় এর থেকে অনেক বেশি জটিল কাজ করতে হয় এবং প্রক্রিয়াটি সহজ না অসুবিধাজনক তার ভিত্তিতে এই ধরনের একটি গুরুত্বপূর্ণ নীতিগত সিদ্ধান্ত নেওয়া যেতে পারে না। এই ধরনের দুর্বল অজুহাত বর্ণের বিশেষাধিকারের তথ্য গোপন করার জন্য একটি গভীর পরিকল্পনার কথাই প্রকাশ করে। স্বরাজ ইন্ডিয়া বিশ্বাস করে যে ভারতের মানুষ সত্য জানার অধিকারী। "বিজেপিকে অবশ্যই এই দ্বিচারিতা বন্ধ করতে হবে এবং সামাজিক ন্যায়বিচারের বিষয়ে তাদের অবস্থান স্পষ্ট করতে হবে", বলেছেন স্বরাজ ইন্ডিয়ার সভাপতি ক্রিস্টিনা সামি।

গত তিন দশকে প্রতিটি প্রাসঙ্গিক প্রতিষ্ঠান এই তথ্য চেয়েছে। ২০১৮ সালে তৎকালীন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং বলেছিলেন যে ২০২১ সালের জনগণনায় ওবিসি গণনা অন্তর্ভুক্ত হবে। এই দাবি একটি সংসদীয় কমিটি, ন্যাশনাল কমিশন অফ ব্যাকওয়ার্ড ক্লাসেস এবং বেশ কয়েকটি রাজ্য সরকার অনুমোদন করেছে। এটা এখন পরিস্কার যে সরকার এনপিআর পদ্ধতির জন্য ₹৩,৭৬৮ কোটি ব্যয় করতে ইচ্ছুক কিন্তু জাতিভিত্তিক জনগণনা করতে অস্বীকার করছে, যা প্রমান করছে যে সরকার নাগরিকদের প্রকৃত সমস্যাগুলিতে মনোনিবেশ না করে কাল্পনিক বিষয়ের পেছনে দৌড়তে ইচ্ছুক।

আসন্ন দশকীয় জনগণনায় প্রত্যেক ব্যক্তির জাতি লিপিবদ্ধ করার জন্য স্বরাজ ইন্ডিয়া দাবি জানাচ্ছে । জাতিগত জনগণনা করতে অস্বীকার করাকে সামাজিক ন্যায়বিচারের নীতিকে নষ্ট করার এবং সুযোগ –সুবিধা ভোগ করে আসা জাতির জন্য সেই ভোগের ব্যবস্থা পাকাপাকি করার একটি ইচ্ছাকৃত প্রচেষ্টা হিসাবে দেখাই ঠিক হবে।

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *