ঢাকা, শনিবার ২৩ অক্টোবর ২০২১, ০৭:২৩ অপরাহ্ন
2021 সালে অনলাইন থেকে ইনকামের জনপ্রিয় উপায় গুলো জেনে নিন | Techtunes
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :


আসলামুআলাইকুম বন্ধুরা। সকলে কেমন আছেন? আশাকরি ভাল আছেন। আমিও আপনাদের দোয়ায় ভাল আছি। বন্ধুরা অনেকদিন ধরে আপনাদের জন্য নতুন কোন টিউন নিয়ে আসতে পারিনি। যাইহোক আমি আবারও আপনাদের জন্য নিয়ে এসেছি আমরা আরও একটি নতুন টিউন। আজকের টিউনটি হতে পারে আপনার জন্য সবচেয়ে উপকারী একটা টিউন। কারণ আজকের টিউনে আমি অনলাইন থেকে ইনকাম এর কিছু টপিক নিয়ে আলোচনা করবো যেগুলো আপনি আপনার স্মার্ট ফোন দিয়েও করতে পারবেন এবং সেখান থেকে মোটা অঙ্কের টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

বর্তমান যুগ প্রযুক্তির যুগ। আর প্রযুক্তির যুগের এই করোনা কালীন সময়ে বিভিন্ন কার্যপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও থেমে থাকেনি মানুষের রোজগার। কারণ এই পৃথিবী প্রতিনিয়ত এগোচ্ছে ভার্চুয়াল দুনিয়ায়। যার ফলে বিস্তৃত হচ্ছে অনলাইনে ইনকামের পথগুলো। বেকার রা কাজ করছে অনলাইনে। আবার অনকে অনলাইন থেকে ইনকাম করার জন্য ভালো প্লাটপর্ম খুঁজে পাচ্ছেনা। যারা অনলাইন থেকে ইনকামের সঠিক উপায়গুলো খুঁজে পাচ্ছেন না, আজকের আর্টিকেলটি তাদের জন্য। কারণ আমি আমার এই আর্টিকেলে অনলাইন থাকে ইনকামের প্রধান প্রধান উপায়গুলো আপনাদের সামনে তুলে ধরার চেষ্টা করব।
তো বন্ধুরা বেশি কথা বলো না চলুন শুরু করা যাক। কিন্তু তার আগে বলে রাখি যে, আমারে পুরো টিউনটা আপনার ধৈর্য সহকারে পড়বেন এবং টিউন পড়া শেষে অবশ্যই উপকৃত হবেন। তো বন্ধুরা চলুন শুরু করা যাক।

ইউটিউবিং

অনলাইন থেকে ইনকাম এর কথা বলতে গেলে প্রথমেই আসে youtube-এর কথা। কারণ বর্তমানে সবচেয়ে জনপ্রিয় অনলাইন ইনকামের মাধ্যম গুলোর মধ্যে অন্যতম হয়ে উঠেছে ইউটিউবিং। লকডাউন এর মাঝে অনেকে আবার ইউটিউব কে ফুলটাইম জব হিসেবেও নিয়েছে। এর জন্য আপনি চাইলে ইউটিউবিং করে আপনার অনলাইন থেকে ইনকাম এর দ্বার খুলতে পারেন।

তো বন্ধুরা আপনি চাইলে এখনি ইউটিউবিং শুরু করতে পারেন। তবে হ্যাঁ ইউটিউবিং করতে হলে অবশ্যই আপনাকে ধৈর্য ধরতে হবে। কারণ এটি করতে হলে আপনি কিন্তু প্রথমত আপনার ইউটিউব চ্যানেলের যথেষ্ট পরিমাণে ভিউ এবং সাবস্ক্রাইবার পাবেন না। কিন্তু হ্যাঁ এ নিয়ে আমি একটি টিউন করেছি যে টিউনটি পড়লে আপনি আপনার ইউটিউব ভিডিওতে বেশি বেশি ভিউ আনতে পারবেন। তো বন্ধুরা আপনি যদি নিজের পেশা হিসেবে কোন অনলাইন জব কে নিতে চান তাহলে অবশ্যই আমি সাজেস্ট করব আপনি ইউটিউবে বেছে নেবেন।

ব্লগিং

তারপরে যে ওয়ে টার কথা বলব সেটার নাম ব্লগিং। ব্লগিং কি তা হয়তো আপনারা সকলেই জানেন। আপনারা বিভিন্ন ওয়েবসাইটে বিভিন্ন ধরনের ব্লগ পড়ে থাকেন। এ ব্লগগুলো যারা লেখেন তারা হল ব্লগার এবং ওই ব্লগার যে কাজ করে তাকে বলা হয় ওই ব্লগারের ব্লগিং।

আমার নিজস্ব একটি ওয়েবসাইট আছে। যেটার নাম Teach9.xyz। আমি ওইটাতে নিয়মিত টিউন পাবলিশ করি। এখন এক্ষেত্রে আমি ওই ওয়েবসাইটের ব্লগার এবং আমি যে নিয়মিত টিউন গুলো পাবলিশ করি এতে আমার এই কাজটা কে বলা হয় ব্লগিং।

তো আপনি যদি চান তাহলে অবশ্যই আপনি ব্লগিং শুরু করতে পারেন। এই ব্লগিং কাজটা আপনি চাইলে ইনভেস্টমেন্ট করেও করতে পারেন আবার চাইলে ইনভেস্টমেন্ট ছাড়া করতে পারেন। ইনভেস্টমেন্ট করে ব্লগিং করতে হলে আপনি ওয়ার্ডপ্রেস কে বেছে নেবেন এবং ইনভেস্টমেন্ট ছাড়া যদি ব্লগিং করতে চান তাহলে অবশ্যই ব্লগার থেকেই করবেন। ব্লগার ভালো হবে না; ওয়াডপ্রেস ভালো হবে এ নিয়ে আমার একটি টিউন করা আছে। আপনি চাইলে আমার প্রোফাইলে গিয়ে সেটি পরে আসতে পারেন। তবে হ্যাঁ আমি সাজেস্ট করবো একটু খরচ করে ওয়াডপ্রেসে এই ব্লগিং শুরু করবেন।

ফ্রিল্যান্সিং

এরপর যে আর্নিং ওয়ে টার কথা আপনাদের বলব সেটির জনপ্রিয়তা বর্তমানে তেমনটা না থাকলেও এটির মাধ্যমে একদম মোটা অঙ্কের টাকা ইনকাম করা যায়। আজকাল ফ্রিল্যান্সিং করে অনেকে প্রতি মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করছে। আর এজন্য আপনি ফ্রিল্যান্সিং করতে পারেন। কিন্তু হ্যাঁ ফ্রিল্যান্সিং করতে হলে অবশ্যই আপনাকে যথেষ্ট দক্ষতা অর্জন করতে হবে। ফ্রিল্যান্সার হতে হলে আপনাকে অবশ্যই কিছু দক্ষতা নিয়ে এই কাজ শুরু করতে হবে।

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং

এরপর যেটির কথা আপনাদের বলব সেটি জনপ্রিয়তা বর্তমানে আপনাদের বলে বোঝানো যাবে না। কারন আজকাল ছোট-বড় সকলেই অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে থাকে। বর্তমানে অনেকে আবার টেন মিনিট স্কুল এ বিভিন্ন কোর্স এবং বইগুলো নিয়ে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং শুরু করেছে। এছাড়াও অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করার জন্য বাংলাদেশী সবচেয়ে বড় প্রতিষ্ঠান বা ওয়েবসাইট দারাজ। আপনি চাইলে দারাজ কিংবা টেন মিনিট স্কুল কিংবা অন্য কোনো যেকোনো এফিলিয়েট মার্কেটিং প্ল্যাটফর্ম থেকে এফিলিয়েট মার্কেটিং শুরু করতে পারেন।

বিভিন্ন third-party অ্যাপ থেকে ইনকাম

এরপর আসছে বিভিন্ন third-party অ্যাপ থেকে ইনকাম। এই মাধ্যম দ্বারা মোটা অঙ্কের টাকা ইনকাম না-করা গেলেও এর জনপ্রিয়তা বর্তমানে অধিকতর। কারণ এই অনলাইন কাজটি করার জন্য কোন ধরনের বিশেষ যোগ্যতা দরকার হয়না এবং কিছু শিক্ষাগত যোগ্যতাও দরকার হয়না। কারণ এগুলো খুব সহজ হয়। যেমন অ্যাড দেখা, বোনাস পয়েন্ট পাওয়া ইত্যাদি। এরকম অনেকগুলো অ্যাপ প্লে-স্টোরে পাবলিশ করা আছে। আপনারা চাইলে সেই গুলো ইন্সটল করে সেগুলোতে কাজ করে ইনকাম করতে পারেন।

তো বন্ধুরা আমি ওপরে যে আর্নিং ওয়ে বা উপায় গুলোর কথা আপনাদের মাঝে তুলে ধরলাম আপনারা এগুলোর মধ্যে থেকে যেকোনো একটিকে চয়েজ করে ইনকাম শুরু করতে পারেন। তবে হ্যাঁ সব কথার এক কথা এই যে, আপনাকে সর্বপ্রথম ধৈর্য ধরতে হবে। প্রথমেই কাজ শুরু করে হতাশ হলে চলবে না। প্রথমে ধৈর্য ধরেন তারপর কাজ চালিয়ে যান। অবশ্যই একদিন সফলতা পাবেন।

তো বন্ধুরা এই ছিল আজকের টিউন। আশাকরি এই টিউনটি আপনাদের ভাল লেগেছে। যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে অবশ্যই একটি লাইক দেবেন এবং এই টিউনটি আপনার বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করে দেবেন। সকলে ভাল থাকুন, সুস্থ থাকুন এবং টেকটিউনসের সাথে থাকুন, আসলামুআলাইকুম।

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *