ঢাকা, রবিবার ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ০৪:১৯ পূর্বাহ্ন
ছত্তিসগড়ে বিসর্জনের শোভাযাত্রায় ঢুকে গেল গাড়ি, নিহত ১, আহত বহু
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :

ছত্তিসগড়ে বিসর্জনের শোভাযাত্রায় ঢুকে গেল গাড়ি, নিহত ১, আহত বহু

 বিজয়া দশমীর বিকালে প্রতিমা (Idol) বিসর্জন দেওয়ার জন্য একটি শোভাযাত্রা অগ্রসর হচ্ছিল নদীর দিকে। আচমকাই তার মধ্যে ঢুকে পড়ে একটি মেরুন রং-এর জাইলো গাড়ি। তার ধাক্কায় এক যুবক মারা যান। আহত হন অন্তত ২০ জন। ছত্তিসগড়ের যশপুর জেলার ঘটনা।

পুলিশ জানিয়েছে, মৃত ব্যক্তির নাম গৌরব আগরওয়াল। বয়স ২১। তাঁর বাড়ি ছিল যশপুরের পাথলগাঁওতে। আহতদের পাথলগাঁও সিভিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ব্লক মেডিকেল অফিসার জেমস মিনজ বলেন, আহতদের দু’জনকে ট্রান্সফার করা হয়েছে অন্য হাসপাতালে।

ঘাতক গাড়িতে ছিল মধ্যপ্রদেশের নম্বর। ধাক্কা মারার পর গাড়িটি স্পিড তুলে সুখরাপাড়ার দিকে পালিয়ে যায়। উত্তেজিত জনতা গাড়িটিকে তাড়া করে। ঘটনাস্থল থেকে কিছু দূরে গাড়িটিকে পরিত্যক্ত অবস্থায় পাওয়া যায়। গাড়িটি রাস্তার ধারে খালের মধ্যে পড়ে গিয়েছিল। তার পিছনের দিকের কাঁচ ছিল ভাঙা। ড্রাইভারের পাশের দরজাটি খোলা ছিল। জনতা গাড়িতে আগুন লাগিয়ে দেয়।


পুলিশ সুপার জানিয়েছেন, দুই অভিযুক্ত ধরা পড়েছে। তারা হল বাবলু বিশ্বকর্মা (২১) এবং শিশুপাল সাহু (২৬)। দু’জনেই মধ্যপ্রদেশের সিংরাউলি জেলার বাসিন্দা। ছত্তিসগড়ের মুখ্যমন্ত্রী ভূপেশ বাগেল শোকবার্তা পাঠিয়ে বলেছেন, “অভিযুক্তদের সঙ্গে সঙ্গে গ্রেফতার করা হয়েছে। তদন্ত চলছে। যিনি মারা গিয়েছেন, ঈশ্বর তাঁর আত্মাকে শান্তি দিন।”

গত ৩ অক্টোবর কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী অজয় মিশ্রের ছেলে আশিস মিশ্রের গাড়ি কৃষকদের ওপর দিয়ে চালিয়ে দেওয়া হয়েছিল। উত্তরপ্রদেশ পুলিশ আশ্বাস দেয়, মৃতদের পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত করা হবে। মন্ত্রী অবশ্য দাবি করেছেন, তাঁর ছেলে ঘটনাস্থলে ছিলেন না। তাঁর পাল্টা অভিযোগ, দুষ্কৃতীরা লাঠি ও তলোয়ার নিয়ে বিজেপি কর্মীদের আক্রমণ করেছিল। তাদের হামলায় গাড়ি উল্টে গেলে চারজন মারা যান। কৃষক সংগঠনগুলির যৌথ মঞ্চ সংযুক্ত কিষাণ মোর্চা জানিয়েছে, মৃতরা হলেন লাভপ্রীত সিং (২৪), নাচাত্তার সিং (৬০), দলজিৎ সিং (৩২) এবং গুরবিন্দর সিং (২০)।

অভিযুক্ত আশিস মিশ্রকে ইতিমধ্যে গ্রেফতার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার ঘটনার পুনর্গঠন করার জন্য তাঁকে লখিমপুর-খেরিতে নিয়ে যায় পুলিশ। আশিসের সঙ্গে ছিলেন তাঁর বন্ধু অঙ্কিত দাস। পুলিশের গাড়ির সাহায্যে সেদিনের ঘটনার পুনর্গঠন করা হয়।

সাংবাদিকদের তোলা ভিডিও ছবিতে দেখা যায়, পুলিশের একটি জিপ প্রচণ্ড গতিতে কয়েকটি ডামিকে ধাক্কা মারছে। একটি ছবিতে দেখা যায়, ঘটনাস্থল ঘিরে দিয়েছে পুলিশ। অনেকে প্রশ্ন তোলেন, ঘটনার পরেই পুলিশ এলাকাটি ঘিরে দেয়নি কেন? ৩ অক্টোবরের পরে অন্তত ৪৮ ঘণ্টা ধরে অনেকেই সেখানে গিয়েছেন। খবর দ্য ওয়ালের /এনবিএস/২০২১/একে । 

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি: