ঢাকা, সোমবার ০৬ ডিসেম্বর ২০২১, ০৪:৩৫ পূর্বাহ্ন
কঙ্কালীতলায় ৫১ কন্যা পূর্ণ করেন খন্ডিত সতীকে, এই কুমারীপুজোয় জড়িয়ে প্রাচীন কাহিনি
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :

কঙ্কালীতলায় ৫১ কন্যা পূর্ণ করেন খন্ডিত সতীকে, এই কুমারীপুজোয় জড়িয়ে প্রাচীন কাহিনি

 গতবার করোনা আবহে প্রতীকীভাবে একজন কুমারীর পুজো হয়েছিল কঙ্কালীতলায় (Birbhum)। এবছর ত্রয়োদশী তিথিতে ফের রীতি মেনে ৫১ জন কুমারীকেই পুজো দেওয়া হল।

বীরভূমের কঙ্কালীতলার পঞ্চবটিতলায় গত ৪৭ বছর ধরে সেই কুমারীপুজো হয়ে আসছে। কুমারীদের ৭ বছর থেকে ৯ বছরের মধ্যে হতে হয়, সেটাই রীতি। দুর্গাপুজো শেষ হতেই আশেপাশের গ্রামের কুমারী মেয়েদের নিয়ে হাজির হন পরিবারের মানুষ। এরপর কুমারী নির্বাচন করা হয়। তাঁরাই দেবীরূপে পুজো পান।


৫১ জন কুমারীর পুজো কীভাবে শুরু হয় সে নিয়ে জনশ্রুতি রয়েছে। ৮২ বছরের বৃদ্ধ সেবায়েত লালবাবা জানান, স্বপ্নাদেশ থেকেই কুমারী পুজোর সূচনা। শোনা যায়, সতীর দেহের ৫১ খন্ডের মধ্যে কঙ্কালীতলায় পড়েছিল দেবীর কাঁকাল। কিন্তু শুধু কাঁকাল পুজো করলে তো একটা খণ্ডের পুজো করা হয়। তাই বছরের এই একটা দিন ৫১ জন কুমারীর মধ্যে দিয়ে দেবীর ৫১ অংশকে সমবেত করে সংকল্পের মধ্যে দিয়ে পূর্ণাঙ্গ রূপ দেওয়া হয়।

পুজো পেয়ে খুশি শিশু কন্যারাও। কেউ বলছে দুগ্গা ঠাকুরের মতো সেজেছি, কেউ আবার পুজো শেষ হলেও কিছুতেই শাড়ি খুলবে না। কারও আবার মিষ্টি, ফল খেতে খুব ভাল লেগেছে।

শারদ উৎসবের পরই এ যেন আরেক খুশির মরশুম। সে খুশি ছড়িয়ে যায় কন্যাদের পরিবারে। দশমী শেষে উমা বিদায় নিলেও কুমারীদের মধ্যেই বেড়ে ওঠেন আসল মা দুর্গা। খবর দ্য ওয়ালের /এনবিএস২০২১/একে

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি: