ঢাকা, শনিবার ২৭ নভেম্বর ২০২১, ০৯:০২ পূর্বাহ্ন
অনাহারে আফগানিস্তান, ৫০ হাজার মেট্রিক টন গম, ওষুধ পাঠাতে চায় ভারত, পাকিস্তান কি অনুমতি দেবে?
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :


অনাহারে আফগানিস্তান, ৫০ হাজার মেট্রিক টন গম, ওষুধ পাঠাতে চায় ভারত, পাকিস্তান কি অনুমতি দেবে?

তালিবানশাসিত আফগানিস্তানে (afghanistan) ভয়াবহ  খাদ্যসঙ্কট (food crisis) চলছে। অনাহারের (starvation) মুখে অসংখ্য মানুষ। এই পরিস্থিতিতে ৫০ হাজার মেট্রিক টন গম (wheat) ও ওষুধপত্র (medicines) পাঠিয়ে আফগানিস্তানের পাশে দাঁড়ানোর ভাবনাচিন্তা  করছে কেন্দ্রের নরেন্দ্র মোদী সরকার (india)। তবে এক্ষেত্রে আফগানিস্তানে যে কোনও ধরনের খাদ্য সামগ্রী পাঠানোর জন্য উপযুক্ত পরিকাঠামো না থাকার চ্যালেঞ্জের মোকাবিলাও করতে হবে সরকারকে।  আফগানিস্তানে মানবিক  ত্রাণসহায়তা পাঠানোয় জড়িত সংস্থাগুলির বাধাহীন সুযোগ থাকা প্রয়োজন বলে মনে করে ভারত। একমাত্র  রাষ্ট্রপুঞ্জই এ ব্যাপারে নজরদারি চালাতে পারে বলে বিশ্বাস নয়াদিল্লির। গত মাসেই  রাষ্ট্রপুঞ্জে দেওয়া ভাষণে বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর বলেন,আফগান সমাজের সব অংশের কাছে যাতে কোনও বাছবিচার না করে মানবিক ত্রাণ বন্টন করা যায়, সেটা দেখা জরুরি।  এমন ইতিবাচক পরিবেশ থাকবে কিনা, তার ওপরই ভারতের ত্রাণ পাঠানো নির্ভর করছে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

এ মাসেই রাষ্ট্রপুঞ্জের বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচি জানিয়েছিল, তারা আফগানিস্তানের জন্য ভারত থেকে গম সংগ্রহের ব্যাপারে ভারতীয় কর্তৃপক্ষের সঙ্গে  যোগাযোগ রাখছে।  গত বছর আফগানিস্তানে ৭৫ হাজার মেট্রিক টন গম  পাঠিয়েছিল ভারত। সেই গম গিয়েছিল চাবাহার বন্দর রুটে যা অত্যন্ত দীর্ঘ, ঘুরপথে যেতে হয়। ভারত বরাবরই আফগানিস্তানের  কাছে গমের বড় উত্স।  গত ১০ বছরে দশ লাখ মেট্রিক টনের ওপর গম  পাঠিয়েছে ভারত।

পাকিস্তানের (pakistan) সঙ্গে আত্তারি-ওয়াগা সীমান্ত দিয়ে স্থলপথে আফগানিস্তানে গম পাঠানো যায় কিনা, ভেবে দেখছে ভারত। কিন্তু তাতে জটিল প্রক্রিয়ার সম্মুখীন হতে হবে কেননা পাকিস্তান ওই সীমান্ত দিয়ে ভারত, আফগানিস্তানকে  টু ওয়ে অর্থাত্ দুদেশকেই পণ্য আদানপ্রদানের অনুমতি দেয় না। তারা শুধু আফগানিস্তানকেই ওই রাস্তায় ভারতকে পণ্য রপ্তানির অনুমতি দেয়। সুতরাং ভারতের ভাবনাচিন্তা মতো এগতে হলে রাষ্ট্রপুঞ্জকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালনে আসরে নামতে হবে।
গত সপ্তাহে জি-২০ মঞ্চে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও তাঁর ভাষণে আফগান জনগণের জন্য বিনা বাধায় জরুরি ভিত্তিতে মানবিক সাহায্য পাঠানোর কথা বলেছেন। ভারতও বলেছে, তালিবানের সঙ্গে তার যে সম্পর্কই থাকুক, আফগান জনগণের সঙ্গে তার বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের ধারা বহাল থাকবে, সেই অনুসারেই ভারতের অবস্থান চালিত হবে।


আগামী মাসে দিল্লিতে ভারত যে আন্তর্জাতিক সম্মেলনের আয়োজনের প্রস্তাব দিয়েছে, তাতে মূল আলোচনার বিষয় হবে খাদ্য ত্রাণ সহ মানবিক সহায়তা পাঠানো। রাশিয়া, পাকিস্তান  সহ একাধিক  দেশকে ডেকেছে ভারত। খবর দ্য ওয়ালের/এনবিএস/২০২১/একে

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *