ঢাকা, শনিবার ২৭ নভেম্বর ২০২১, ০৮:৫২ পূর্বাহ্ন
রৌহা ইউপি নির্বাচনে আ.লীগের মনোনয়ন বঞ্চিত ফরিদা ইয়াসমিন ভোটারগণের দাবিতে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী
সালাহ উদ্দীন খান রুবেল

রৌহা ইউপি নির্বাচনে আ.লীগের মনোনয়ন বঞ্চিত ফরিদা ইয়াসমিন ভোটারগণের দাবিতে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী

আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নেত্রকোণা সদর উপজেলার রৌহা ইউনিয়নে বিগত ইউপি নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনয়নে নৌকা প্রতীকে প্রতিদ্বন্ধিতাকারী এবার আওয়ামীলীগের মনোনয়ন বঞ্চিত তবুও চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবেন বলে জানান জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সদস্য ফরিদা ইয়াসমিন। তিনি নেত্রকোণা সরকারি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সম্পাদিকা ছিলেন।

উপমহাদেশের প্রখ্যাত বংশীবাদক ও বরেণ্য সংগীত শিল্পী প্রয়াত বারী সিদ্দিকী’র সহধর্মিনী ফরিদা ইয়াসমিন বলেন- আমার বাবা মরহুম নূরুল হুদা ভাষাসৈনিক ও বীরমুক্তিযোদ্ধা এবং আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠাতা সংগঠক হিসেবে বিভিন্ন সময়ে ধারাবাহিকভাবে সাধারণ সম্পাদক, সভাপতির দায়িত্বে ছিলেন সেই সঙ্গে এই রৌহা ইউনিয়নের বারবারের চেয়ারম্যান ছিলেন। ১৯৭৫এ ১৫ই আগস্টে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সহ স্বপরিবার কুচক্রীমহলের ষড়যন্ত্রে সামরিক জান্তার কর্র্তৃক খুন হওয়ার প্রতিবাদ করতে গিয়ে আমার বাবা ভাষাসৈনিক ও বীরমুক্তিযোদ্ধা মরহুম নূরুল হুদা দীর্ঘদিন কারাবরণ করেছেন। 

এসময় সামরিক শাসক জিয়ার সমর্থকদের অত্যাচারে মা-বোন-ভাই নিয়ে ফেরারী জীবন-ঝাপন করেছি আত্মীয় স্বজনের বাসা-বাড়ীতে। আমার বড় ভাই অধ্যাপক ওমর ফারুক এরশাদ বিরোধী আন্দোলন করতে গিয়ে কারাবরণ করেছেন, জামায়াত-বিএনপি জোট সরকারের আমল, ফখরুদ্দীন-মঈনুদ্দীনের অবৈধ ত্বত্তাবধায়কের তথাকথিত ১/১১ আমলে কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সকল কর্মসূচী বাস্তবায়ন করতে বিভিন্ন সময় হামলা-মামলার স্বীকার হয়েছে, এছাড়াও তখনকার সময়ে জননেত্রী শেখ হাসিনা কে অবৈধভাবে গ্রেফতারের প্রতিবাদ ও মুক্তির দাবিতে ২লক্ষ গণস্বাক্ষরপ্রত্র কেন্দ্রে প্রেরণ করেন। আমি পরিক্ষীত আওয়ামীলীগ পরিবারের সন্তান হিসেবে বিগত ইউপি নির্বাচনে কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী দেশরতœ শেখ হাসিনা দানে আওয়ামীলীগের মনোনয়নে নৌকা প্রতীকে মনোনীত হয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করি। কিন্তু দুঃখের বিষয় বিগত ইউপি নির্বাচনে স্থানীয় ২/১জন স্বার্থান্বেষী নেতার পরামর্শে জেলা আওয়ামীলীগের একটি মহলের যোগসাজশে ২৩ভোটের ব্যবধানে আমাকে পরাজিত করা হয়। এবারও স্থানীয় আওয়ামীলীগের শীর্ষ-পর্যায়ের হাতেগনা ২/৪জন নেতা-কর্মীর ষড়যন্ত্রের স্বীকার হয়ে আমি নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন পায়নি, তবে আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে রৌহা ইউনিয়নের নারী-পুরুষ ও সর্বস্তরের ভোটারগণের দাবিতে এবারও চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছি।

তিনি আরও বলেন, বর্তমান আওয়ামীলীগ সরকারের ঘোষিত নারীর ৩০ভাগ কোটা বাস্তবায়ন করে, নারী নেতৃত্ব এগিয়ে নিতে চাই। তাছাড়াও স্থানীয় বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনের মাধ্যমে অসাম্প্রদায়িক চেতনায় রৌহা ইউনিয়নকে মডেল হিসেবে গড়তে চাই।

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *