ঢাকা, রবিবার ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ১১:২৫ অপরাহ্ন
দুর্যোগে লণ্ডভণ্ড উত্তরাখণ্ড, লামখাগা পাসে ১১ জন ট্রেকারের দেহ উদ্ধার, উদ্ধারে নেমেছে বায়ুসেনা
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :

দুর্যোগে লণ্ডভণ্ড উত্তরাখণ্ড, লামখাগা পাসে ১১ জন ট্রেকারের দেহ উদ্ধার, উদ্ধারে নেমেছে বায়ুসেনা

: বৃষ্টি-বন্যা-তুষারধসে ছিন্নভিন্ন উত্তরাখণ্ড (Uttarakhand)। শুক্রবারই খবর এসেছে পশ্চিমবঙ্গ থেকে যাওয়া একটি ট্রেকার দলের পাঁচজনের দেহ উদ্ধার হয়েছে। মৃতের সংখ্যা ক্রমশই বাড়ছে। বরফে মোড়া লামখাগা পাসে প্রবল তুষারধসে বহু অভিযাত্রীর দেহই তলিয়ে গেছে বলে আশঙ্কা করছে জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা দল। এখনও অবধি লামখাগা থেকে ১১ জনের দেহ উদ্ধার হয়েছে। ১৭ হাজার ফুট উচ্চতায় উদ্ধারকাজ চালাচ্ছে বায়ুসেনা। নামানো হয়েছে অ্যাডভান্সড লাইট হেলিকপ্টার (এএলএইচ)।


উত্তরাখণ্ডের সবচেয়ে দুর্গম এলাকা লামখাগা পাস। সেখানেই ট্রেক করতে গিয়েছিল ১৭ জনের একটি দল। গত ১৮ অক্টোবর থেকে প্রবল দুর্যোগ শুরু হওয়ার পরে ধস নামে সেই এলাকায়। নিখোঁজ হয়ে যায় গোটা দলটিই। বায়ুসেনার এএলএইচ কপ্টার প্রায় ১৯,৫০০ ফুট উচ্চতা অবধি নেমে তল্লাশি চালিয়েছে। গতকাল দুপুরের দিকে, বরফের স্তরে ১১ জনের দেহ পড়ে থাকতে দেখা যায়। এখনও অনেক ট্রেকার, গাইড, পোর্টারের খোঁজ মিলছে না


জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা দল (এনডিআরএফ) জানাচ্ছে, ১৬,৫০০ ফুট উচ্চতায় অনেক অভিযাত্রীরা আটকে আছেন বলে মনে করা হচ্ছে। তাদের উদ্ধারের জন্য বায়ুসেনার বিমান পাঠানো হয়েছে।

এদিকে হিমাচল প্রদেশে এখনও ৮০ জনের বেশি পর্যটক আটকে রয়েছেন বলে খবর। স্থানীয় প্রশাসন জানাচ্ছে, প্রবল তুষারপাতের জেরে লাহুল-স্পিতি জেলার বাতালে আটকে পড়েছেন কমপক্ষে ৮০ জন পর্যটক। তাঁদের মধ্যে ১৬ জন পশ্চিমবঙ্গের বলে জানা গেছে।  বাকিরা দিল্লি, পঞ্জাব-সহ অন্যান্য রাজ্যের বাসিন্দা। যদিও বিষয়টি নিয়ে প্রশাসনের তরফে স্পষ্ট ভাবে কিছু জানানো হয়নি। টানা বৃষ্টিতে ধস নেমে রাজ্য থেকে প্রায় বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে রানিখেত ও আলমোরা। জরুরি পরিষেবাও মিলছে না। বাড়িঘর ধসে পড়েছে, ধ্বংসস্তূপ থেকে উদ্ধারের চেষ্টা চালাচ্ছে এনডিআরএফ। এখনও পর্যন্ত উধম সিংহ নগর ও নৈনিতাল থেকে আটকে পড়া ১৩০০ মানুষকে উদ্ধার করেছে বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী।

পশ্চিমবঙ্গের হাওড়া, হুগলি, কলকাতার বিভিন্ন এলাকা থেকে উত্তরাখণ্ডে গিয়ে আটকে পড়েছেন শতাধিক। হাওড়া থেকে যাওয়া একটি ট্রেকারের দলের খোঁজই মিলছে না। তার মধ্যে খবর এসেছে, ধসের কবলে পড়ে এ রাজ্য থেকে ট্রেকিং করতে যাওয়া পাঁচ বাঙালি অভিযাত্রীর মৃত্যু হয়েছে। মৃতদের মধ্যে তিন জন হাওড়ার বাগনানের বাসিন্দা, একজনের বাড়ি ঠাকুরপুকুরে ও অন্যজন রানাঘাটের বাসিন্দা। ওই পাঁচ পরিবারের আবেদন, সরকার উদ্যোগ নিয়ে মৃতদেহ ফিরিয়ে আনার ব্যবস্থা করুক।খবর দ্য ওয়ালের /এনবিএস/২০২১/একে

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি: