ঢাকা, সোমবার ০৬ ডিসেম্বর ২০২১, ১২:১২ পূর্বাহ্ন
উত্তরাখণ্ডে প্রাণ হারালেন পাঁচ বাঙালি ট্রেকার, দেহ ফিরিয়ে আনার আবেদন পরিবারের
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :

উত্তরাখণ্ডে প্রাণ হারালেন পাঁচ বাঙালি ট্রেকার, দেহ ফিরিয়ে আনার আবেদন পরিবারের

 প্রাকৃতিক দুর্যোগ চরম আকার নিয়েছে উত্তরাখণ্ডে (Uttarakhand)। বন্যা, ধসে লণ্ডভণ্ড দেবভূমি। মৃতের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। পশ্চিমবঙ্গের হাওড়া, হুগলি, কলকাতার বিভিন্ন এলাকা থেকে উত্তরাখণ্ডে গিয়ে আটকে পড়েছেন শতাধিক। হাওড়া থেকে যাওয়া একটি ট্রেকারের দলের খোঁজই মিলছে না। তার মধ্যে খবর এসেছে, ধসের কবলে পড়ে এ রাজ্য থেকে ট্রেকিং করতে যাওয়া পাঁচ বাঙালি অভিযাত্রীর মৃত্যু হয়েছে।

জানা গিয়েছে পাঁচ বাঙালি অভিযাত্রীর সঙ্গে একজন গাইড এবং ৪ জন পোর্টার ছিলেন। সেই ৪ পোর্টার ফিরে এলেও, নিখোঁজ গাইড।  মৃতদের মধ্যে তিন জন হাওড়ার বাগনানের বাসিন্দা, একজনের বাড়ি ঠাকুরপুকুরে ও অন্যজন রানাঘাটের বাসিন্দা। ঠাকুরপুকুরের সাধনকুমার বসাক, বাগনানের চন্দ্রশেখর দাস, সরিৎ শেখর দাস, সাগর দে, রানাঘাটের প্রীতম রায়ের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

পরিবার সূত্রে খবর, ১১ অক্টোবর শেষবার তাঁদের সঙ্গে কথা হয়েছিল। তারপর যোগাযোগ করেও ফোনে পাওয়া যায়নি। উত্তরাখণ্ডের বাগেশ্বর কন্ট্রোল রুম থেকে বৃহস্পতিবার ফোন করে পরিবারকে দুঃসংবাদ দেওয়া হয়।  ওই পাঁচ পরিবারের আবেদন, সরকার উদ্যোগ নিয়ে মৃতদেহ ফিরিয়ে আনার ব্যবস্থা করুক।


উত্তরাখণ্ড বিপর্যয় মোকাবিলা দফতর সূত্রে খবর, ১৪ তারিখ ৯ জন ট্রেকারের একটি দল উত্তরাখণ্ডের হরশিল থেকে হিমাচলের ছিটকুলের উদ্দেশে রওনা দিয়েছিলেন। ১৭ তারিখ থেকে আবহাওয়া খারাপ হতে শুরু করে। সেদিনের পর থেকে এই অভিযাত্রী দলের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। ১৮ অক্টোবর ধসের কবলে পড়ে এই অভিযাত্রীদের দল। তারপর থেকেই খোঁজ মিলছিল না তাঁদের।

আমতা থেকে ১৪ জন বাঙালি পর্যটকের একটি দল কাঠগোদামে আটকে রয়েছেন। তাঁদের পরিবার জানিয়েছে, হোটেল খাবার নেই, পানীয় জল নেই, এমনকি বিদ্যুৎ পরিষেবাও বিচ্ছিন্ন। বেশিরভাগ পর্যটকই মোবাইলে চার্জ দিতে পারছেন না, ফলে তাঁরা পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগও করতে পারছেন না। অনেকে মাঝরাস্তায় আটকে রয়েছেন। বাসের ভেতরে দিন কাটাতে হচ্ছে।

সূত্রের খবর, পশ্চিমবঙ্গ থেকে উত্তরাখণ্ডে গিয়ে আটকে পড়েছেন ৭০ জনের বেশি বাঙালি পর্যটক। তাঁদের উদ্ধারের জন্য চেষ্টা করছে রাজ্য সরকার। নবান্ন সূত্রে জানানো হয়েছে, উত্তরাখণ্ড সরকার ও স্থানীয় প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। পর্যটকদের কীভাবে উদ্ধার করে ফিরিয়ে আনা যায় তার চেষ্টা চলছে। হাওড়ার অনেক পর্যটকই আটকে উত্তরাখণ্ডে। অনেকের খোঁজও মিলছে না। তাঁদের কীভাবে উদ্ধার করা যাবে সে প্রসঙ্গে হাওড়া জেলার বিধায়ক তথা রাজ্যের মন্ত্রী পুলক রায় বলেছেন, “আমরা প্রতিনিয়ত যোগাযোগ করার চেষ্টা করছি। বাঙালি পর্যটকদের ফিরিয়ে আনার চেষ্টা চলছে।খবর দ্য ওয়ালের /এনবিএস/২০২১/একে

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি: