ঢাকা, শনিবার ২৭ নভেম্বর ২০২১, ০৮:৪৯ পূর্বাহ্ন
সঙ্কটে আরজি কর, অচলাবস্থা চলছেই, আন্দোলনকারী পড়ুয়াদের কথা শুনতে ডেকে পাঠাল হাইকোর্ট
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :

সঙ্কটে আরজি কর, অচলাবস্থা চলছেই, আন্দোলনকারী পড়ুয়াদের কথা শুনতে ডেকে পাঠাল হাইকোর্ট

 চিকিৎসা সঙ্কট এখনও কাটেনি (R G Kar)। অচলাবস্থা চলছেই। কর্মবিরতিতে জুনিয়র চিকিৎসকরা। দাবিদাওয়া না মানলে আন্দোলন চলবেই তা একরকম স্পষ্ট করে দিয়েছেন বিক্ষোভকারী পড়ুয়ারা।

এদিকে অচলাবস্থার চরম প্রভাব পড়ছে হাসপাতালের পরিষেবাতে। স্বাস্থ্য পরিষেবা যাতে দ্রুত স্বাভাবিক হতে পারে সে জন্যই জনস্বার্থ মামলা দায়ের হয়েছিল কলকাতা হাইকোর্টে। আজ সোমবার বিক্ষোভকারী চিকিৎসক পড়ুয়াদের তলব করেছে আদালত। ছাত্রছাত্রীদের বক্তব্য শুনতে চান বিচারপতি।

ছাত্রাবাস সংস্কার ও অধ্যক্ষের পদত্যাগের দাবিতে অনশন শুরু করেছিল ডাক্তারি পড়ুয়া ও ইন্টার্নরা। গত দু’মাস ধরে বিক্ষোভ চলছে। এর মধ্যেই পড়ুয়া ও ইন্টার্নরা মিলে অধ্যক্ষের ঘরের সামনে অনির্দিষ্ট কালের জন্য অবস্থান বিক্ষোভ শুরু করেন। কাজ বন্ধ করে তাতে যোগ দিয়েছেন কলেজের ইন্টার্নরাও। অধ্যক্ষ পদত্যাগ না করা পর্যন্ত অবস্থান চলবে বলে জানিয়েছেন পড়ুয়ারা। একই সঙ্গে চলছে অনশন আন্দোলনও।


পড়ুয়া বিক্ষোভের জেরে হাসপাতালের পরিষেবা প্রায় বন্ধ হতে বসেছে। মুমূর্ষু রোগীরা এসে ফিরে যাচ্ছেন। আউটডোরেও রোগীরা এসে চিকিৎসা পাচ্ছেন না। রোগীদের ভর্তি করানোর ক্ষেত্রেও সমস্যা হচ্ছে বলে অভিযোগ। দীর্ঘসময় ধরে অনশনের জেরে অনেক পড়ুয়াই অসুস্থ হয়ে পড়ছেন। পড়ুয়াদের বক্তব্য, আগে অনেক বার প্রতিশ্রুতি দিলেও তা পূরণ করা হয়নি। তাঁরা প্রতারিত হয়েছেন। তাঁদের দাবি মেনে নেওয়া হলে আন্দোলন তুলে নেবেন। আন্দোলনকারীরে ইন্টার্নদেরও একই দাবি। ফলে পড়ুয়াদের সঙ্গে কর্তৃপক্ষের আলোচনায় কোনও সমাধানসূত্র বের হয়নি।

আরজি করের অচলাবস্থা কাটাতে হাইকোর্টে তাই মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলাকারীর বক্তব্য, হাসপাতাল চত্বরে অনশন-ধর্নার কারণে রোগীদের চিকিৎসা ব্যাহত হচ্ছে। মামলাকারীর বক্তব্য, পরিষেবা যাতে স্বাভাবিক হয়ে সাধারণ মানুষ চিকিৎসা পেতে পারেন সে জন্য প্রশাসনকে নির্দেশ দিক আদালত।

মামলাকারী আইনজীবী শুভঙ্কর নাগ বলেছেন, চিকিৎসকেরা রোগী দেখছেন কিন্তু ইন্টার্ন বা জুনিয়র ডাক্তাররা কোনও সহযোগিতা করছেন না। অনেক মহিলা ডাক্তারও রয়েছেন।কাজেই পরিষেবা ঠিকমতো দেওয়া যাচ্ছে না। সমস্যায় পড়ছেন সঙ্কটাপন্ন রোগীরাও। তাছাড়া হাসপাতালের ভেতর এমন বিক্ষোভ-আন্দোলন অনভিপ্রেত। আদালত উপযুক্ত ব্যবস্থা নিক।

আইনজীবীর বক্তব্য শুনে হাইকোর্টের বিচারপতি জানিয়েছেন, “অবিলম্বে আন্দোলনকারী জুনিয়র ডাক্তারদের ডেকে পাঠান। আদালতে সশরীরে হাজির হতে না পারলেও ভার্চুয়াল মাধ্যমেও তাঁদের বক্তব্য শোনাতে পারেন। আড়াইটে নাগাদ শুনানি হবে। তার আগেই জুনিয়র চিকিৎসকরা উপস্থিত হলে কোনও অসুবিধা নেই। তাঁদের বক্তব্য শোনা দরকার।। খবর দ্য ওয়ালের/২০২১/এনবিএস/একে

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *