ঢাকা, শনিবার ২৭ নভেম্বর ২০২১, ০৪:৫২ পূর্বাহ্ন
ক্ষমতাশালী রাজনীতিকের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থার অভিযোগ তোলার পরে নিখোঁজ চিনের টেনিস তারকা
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :

ক্ষমতাশালী রাজনীতিকের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থার অভিযোগ তোলার পরে নিখোঁজ চিনের টেনিস তারকা

 চিনের কমিউনিস্ট পার্টির উচ্চপদস্থ এক নেতার বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থার অভিযোগ তুলেছিলেন টেনিস তারকা পেং শুয়াই (Peng)। এর আগে ‘মি টু’ আন্দোলনে তোলপাড় হয়েছে বিভিন্ন দেশ। যৌন হেনস্থার বিরুদ্ধে ওই আন্দোলন শুরু হয় আমেরিকা থেকে। ভারতেও ‘মি টু’ ঝড়ে কাবু হন অনেক সেলিব্রিটি। চিনে টেনিস তারকার অভিযোগকে কেন্দ্র করেই ‘মি টু’ আন্দোলনের সূচনা হল বলে অনেকে মনে করেছিলেন। কিন্তু তিনি নিখোঁজ হওয়ায় উদ্বেগ বেড়েছে নানা মহলে। সোমবারও চিন সরকার এসম্পর্কে মুখ খুলতে চায়নি।


গত রবিবার চিনের উইমেনস টেনিস অ্যাসোসিয়েশন দাবি করে, পেং-এর অভিযোগ নিয়ে পুরোদস্তুর তদন্ত করতে হবে। তদন্ত হওয়া উচিত স্বচ্ছ। সেখানে কেউ যেন হস্তক্ষেপ না করে। উইম্বলডন ও ফেঞ্চ ওপেনে ডাবলসে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিলেন পেং। তাঁর হয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় মুখ খোলেন বেশ কয়েকজন টেনিস খেলোয়াড়। সোমবার এসম্পর্কে প্রশ্ন করলে চিনের বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ান বলেন, “ওই খেলোয়াড় সম্পর্কে আমার কিছু জানা নেই”। পরে ঝাও বলেন, তিনি কেবল কূটনীতি সংক্রান্ত প্রশ্নের জবাব দেবেন। টেনিস তারকাকে নিয়ে কোনও প্রশ্নের জবাব দেবেন না।

নভেম্বরের শুরুতে পেং অভিযোগ করেন, চিনের প্রাক্তন উপ প্রধানমন্ত্রী ঝাং গাওলি তাঁকে যৌন হেনস্থা করেছেন। চিনের জাতীয় টেনিস অ্যাসোসিয়েশন এসম্পর্কে কোনও মন্তব্য করেনি। ডব্লুটিএ-র চেয়ারম্যান স্টিভ সাইমন বলেন, পেং যেভাবে নিখোঁজ হয়েছেন, তা গভীর উদ্বেগের বিষয়। তিনি অত্যন্ত গুরুতর অভিযোগ করেছিলেন। তা নিয়ে তদন্ত হওয়া উচিত। এক বিবৃতিতে সাইমন বলেন, “আমরা প্রত্যেক খেলোয়াড়ের নিরাপত্তার দিকে নজর রাখি। পেং যাতে ন্যায়বিচার পান, সেজন্যই আমরা মুখ খুলেছি।”


১৮ টি গ্র্যান্ড স্লাম বিজয়ী ক্রিস এভার্টও পেং-এর সমর্থনে সরব হয়েছেন। তাঁর টুইটার হ্যাশট্যাগে লেখা হয়েছে, ‘হোয়ার ইজ পেং শুয়াই’। ক্রিস বলেন, পেং-এর বয়স যখন ১৪, তখন থেকেই আমি তাঁকে চিনি। তার সমর্থনে আমাদের সকলেরই মুখ খোলা উচিত। আমি জানতে চাই, সে কোথায়? সে কি নিরাপদে আছে? তার সম্পর্কে কি কারও কিছু জানা আছে?

নভেম্বরের শুরুতে ৩৫ বছর বয়সী পেং চিনের নিজস্ব সোশ্যাল মিডিয়া ওয়েইবো-তে লেখেন, ঝাং তাঁকে যৌন হেনস্থা করেছিলেন। দ্রুত তাঁর বক্তব্য ওয়েইবো থেকে মুছে দেওয়া হয়। তারপর থেকেই পেং-এরও খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না।খবর দ্য ওয়ালের /এনবিএস/২০২১/একে

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *