ঢাকা, শুক্রবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২১, ০৬:১৬ পূর্বাহ্ন
কাশ্মীরে সংঘর্ষে নিহত বেসামরিক ব্যক্তিদের লাশ ফেরতের দাবিতে বিক্ষোভ
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :

কাশ্মীরে সংঘর্ষে নিহত বেসামরিক ব্যক্তিদের লাশ ফেরতের দাবিতে বিক্ষোভ

জম্মু-কাশ্মীরের হায়দরপোরায় এনকাউন্টারে নিহত আলতাফ আহমেদ ও মুদাসসির গুলের পরিবারের সদস্যরা নিহতদের লাশ হস্তান্তরের দাবি জানিয়েছে। আজ (বুধবার) প্রেস কলোনিতে তাঁরা বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন।

জম্মু-কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি ওই ঘটনার তদন্তের দাবি করেছেন। তিনি বলেন, ‘নিরীহদের মানব ঢাল হিসেবে ব্যবহার করে হত্যা করা হচ্ছে। তারপর নিজেদের সুবিধার্থে তাঁদের ‘সন্ত্রাসীদের সাহায্যকারী’   হিসেবে লেবেল সেঁটে দেওয়া রুটিন হয়ে দাঁড়িয়েছে প্রশাসনের। এ ধরনের ঘটনার অবসান ঘটাতে বিচার বিভাগীয় তদন্ত হওয়া প্রয়োজন।’ 

আজ হিন্দি গণমাধ্যম এবিবি লাইভ ডটকমে প্রকাশ,  গত (সোমবার) শ্রীনগরের শহরতলীতে নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে একটি সংঘর্ষে চারজন নিহত হয়। জম্মু-কাশ্মীর পুলিশ জানিয়েছে, নিহত চারজনের মধ্যে দু’জন ছিল সন্ত্রাসী। একজনকে মুদাসসির গুল হিসেবে শনাক্ত করা হয়েছে, যে একজন সন্ত্রাসী সহযোগী এবং অন্যজন একটি বাণিজ্যিক ভবনের মালিক।  

নিহতদের পরিবার পুলিশের দাবিকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে বলেছেন, তারা নিরপরাধ নাগরিক এবং সন্ত্রাসবাদের সাথে তাদের কোনো সম্পর্ক নেই।      

গণমাধ্যমে প্রকাশ, নিহত ব্যবসায়ী আলতাফ আহমেদ ভাট এবং দন্ত চিকিৎসক ও ব্যবসায়ী মুদাসসির গুলের পরিবারের সদস্যরা সিটি সেন্টারে বিক্ষোভ করেন এবং লাশ ফেরতের দাবি জানান। মুদাসসির গুল এবং আলতাফ ভাটকে উত্তর কাশ্মীরের কুপওয়াড়া জেলার হান্দওয়াড়া কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। এই কবরস্থানটি এনকাউন্টারে নিহত সন্ত্রাসীদের জন্য সংরক্ষিত। আলতাফ আহমেদের এক আত্মীয় গণমাধ্যমকে বলেন, আমরা এখানে লাশ ফেরত ও বিচারের দাবিতে আন্দোলন করছি। 

তিনি বলেন,  ‘পুলিশ স্বীকার করেছে যে আলতাফ আহমেদ একজন বেসামরিক লোক, আমরা অবাক হচ্ছি যে, কেন তার লাশ দাফনের জন্য আমাদের কাছে ফেরত দেওয়া হয়নি?  লাশ ফেরত না দিলে আমরা আন্দোলন চালিয়ে যাব।’ এ ছাড়া বেসামরিক হত্যাকাণ্ড বন্ধেরও দাবি জানিয়েছেন বিক্ষোভকারীরা।

বিক্ষোভের সময় মুদাসসির গুলের স্ত্রী হুমাইরা গুলও বিক্ষোভস্থলে উপস্থিত ছিলেন। তিনি বলেন, তার স্বামী সন্ত্রাসী ছিলেন না। হুমাইরা বলেন, ‘আমার স্বামী সন্ত্রাসী ছিলেন না, কিন্তু তারা তাকে হত্যা করেছে। আমাদের সুবিচার পাওয়া উচিত, তাদের দু’বছরের মেয়ে ইনায়ার ন্যায় বিচার পাওয়া উচিত।’  ‘আমার মেয়ে তার বাবার জন্য কাঁদছে এবং আমার কাছে তার কোনো উত্তর নেই। আমি লেফটেন্যান্ট গভর্নর মনোজ সিনহাকে অনুরোধ করছি আমার মেয়েকে তার বাবাকে শেষবারের মতো দেখতে দেওয়ার অনুমতি দিন।’  

জম্মু-কাশ্মীর পুলিসের আইজিপি বিজয় কুমার বলেন, আলতাফ ও মুদাসসিরের শেষকৃত্যে যোগ দিতে তাঁদের পরিবারকে বলা হয়েছিল। কিন্তু তাঁরা লাশ ফেরত দেওয়ার দাবিতে অনড় থাকেন। তাদের মৃত্যুর তদন্তে বিশেষ তদন্ত টিম ‘সিট’ গঠন করেছে প্রশাসন।খবর পার্সটুডে/২০২১/এনবিএস/একে 

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি: