ঢাকা, শনিবার ২৭ নভেম্বর ২০২১, ০৬:০৬ পূর্বাহ্ন
শিশু পর্নোগ্রাফি চক্রে আন্তর্জাতিক যোগ, ইন্টারনেটে ঘুরছে বাচ্চাদের উপর যৌন নিগ্রহের ভয়ঙ্কর ছবি-ভিডিও
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :

শিশু পর্নোগ্রাফি চক্রে আন্তর্জাতিক যোগ, ইন্টারনেটে ঘুরছে বাচ্চাদের উপর যৌন নিগ্রহের ভয়ঙ্কর ছবি-ভিডিও

সুপ্রিম কোর্টের নিষেধাজ্ঞা, পর্নসাইটে তালা, কোনও কিছুতেই শিশু পর্নোগ্রাফির (Child Porn) উপর লাগাম টানা যাচ্ছে না। দেশেরই নানা প্রান্তে রমরমিয়ে চলছে শিশুদের নিয়ে নীল ছবির ব্যবসা। কেরলে শিশু পর্নোগ্রাফির বড় চক্র ফাঁস হয়েছিল গত বছরই। এবার দেশজুড়ে তল্লাশি চালিয়ে চাইল্ড পর্নোগ্রাফি চক্রের বড় পর্দা ফাঁস করল সিবিআই। তদন্তে উঠে এসেছে চাঞ্চল্যকর তথ্য। দেশে শুধু নয়, শিশুদের ওপর যৌন নির্যাতনের ভয়ঙ্কর সব ছবি ও ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে পাকিস্তান, বাংলাদেশ, কানাডা, আমেরিকা, শ্রীলঙ্কা, নাইজেরিয়া, মালয়েশিয়া, ইয়েমেন সহ একাধিক দেশে।


সিবিআই জানাচ্ছে, দেশ ও বিদেশে অন্তত ৫০টি চক্র শিশুদের নিয়ে নীল ছবির ব্যবসা করছে। এই সাইবার অপরাধের সঙ্গে জড়িত পাঁচ হাজারের বেশি। দেশেরই ১৪টি রাজ্যের ৭৭টি জায়গায় তল্লাশি চালিয়ে ১০ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তদন্তকারীরা বলছেন, ধৃতেরা শিশুদের উপর যৌন নিপীড়ণ, অত্যাচার, ধর্ষণের ছবি, ভিডিও তথা ‘চাইল্ড সেক্সুয়াল অ্যাবিউজ মেটিরিয়াল’ (সিএসএএম) অনলাইনে আপলোড করা এবং শিশুদের নিয়ে নীল ছবি বানানোর বড়সড় চক্রের সঙ্গে জড়িত। অন্ধ্রপ্রদেশ, দিল্লি, উত্তরপ্রদেশ, পাঞ্জাব, বিহার, তামিলনাড়ু, রাজস্থান, মহারাষ্ট্র, গুজরাট, হরিয়ানা, ছত্তীসগড়, মধ্যপ্রদেশ ও হিমাচল প্রদেশে তল্লাশি চালিয়ে এদের গ্রেফতার করা হয়েছে। এই চক্রে জড়িত শতাধিক। তাদের খোঁজ করছে পুলিশ।

তদন্তকারীরা বলছেন, অসংখ্য হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ, টেলিগ্রাম ও ফেসবুক প্রোফাইল রয়েছে যেগুলি পর্নোগ্রাফি ভিডিও ছড়িয়ে দিচ্ছে দেশ-বিদেশের নানা প্রান্তে। সিবিআই জানিয়েছিল বেশ কিছু হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে অদ্ভুত ধরনের কথাবার্তা চলছে, যা যথেষ্ট সন্দেহজনক। তদন্তে নেমে সিবিআই জানতে পারে ওই হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে শিশু পর্নোগ্রাফি সংক্রান্ত আলোচনা চলে। আদানপ্রদান হয় শিশুদের আপত্তিকর ছবি ও ভিডিও। ভারতে চাইল্ড পর্নোগ্রাফির ওয়েবসাইটগুলি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। তাই বিভিন্ন সফটওয়্যার অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করে এই ধরনের ছবি ও ভিডিও আপলোড করার কাজ চলছে।  কী ধরনের সফটওয়্যাল টুল ব্যবহার করা হচ্ছে সেটা খতিয়ে দেখছেন সাইবার বিশেষজ্ঞরা। বেশ কিছু আইপি অ্যাড্রেস বার করা হয়েছে যেখান থেকে চাইল্ড পর্নোগ্রাফি মেটিরিয়াল অনলাইনে আপলোড হয়েছে।

ন্যাশনাল ক্রাইম রেকর্ড ব্যুরোর একটি সমীক্ষা বলেছিল, প্রতিদিন ১০৯ জন শিশু যৌন হেনস্থার শিকার হয় এদেশে। তাদের পরিসংখ্যাণ দেখে শিউরে উঠেছিল দেশ। তথ্যের রিপোর্ট বলেছিল, ২০০৮ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত  এই ১০ বছরে শিশুদের উপর যৌন নির্যাতনের ঘটনা প্রায় ৬ গুণ বেড়েছে। চাইল্ড পর্নোগ্রাফির ক্ষেত্রেও ২০১৮ সালের পরিসংখ্যাণ আঁতকে ওঠার মত। ৭৮১টি এই ধরণের মামলা রুজু হয়েছিল পকসো আইনে। তারপর থেকে ক্রমান্বয়ে এই সংখ্যা বেড়েই চলেছে। সাম্প্রতিক লকডাউনের সময় শিশু পর্নোগ্রাফির চাহিদা ও অনলাইনে চাইল্ড পর্নোগ্রাফি মেটিরিয়ালের সংখ্যা সাঙ্ঘাতিকভাবে বেড়ে গেছে।

প্রসঙ্গ উল্লেখ্য, শিশু নির্যাতন, ধর্ষণ, যৌন হেনস্থায় কড়া শাস্তি দিতে পকসো সংশোধনী বিল পাশ হয়েছে রাজ্যসভায়। ‘শিশু যৌন নির্যাতন প্রতিরোধ আইন, ২০১২’ (পকসো) অনুযায়ী, ১২ বছরের কম বয়সি শিশুদের উপর যৌন নির্যাতনের ঘটনা ঘটলে সর্বোচ্চ যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও কমপক্ষে সাত বছরের সাজার বিধান ছিল। পকসো সংশোধনী বিলে বলা হয়েছে হয়েছে, শিশুদের উপর যৌন নির্যাতনে দোষী সাব্যস্ত হলে কমপক্ষে ২০ বছরের কারাদণ্ড হবে। সর্বোচ্চ সাজা মৃত্যুদণ্ড। ওই বিলে শিশু পর্নোগ্রাফি রোখার সংস্থানও রাখা হয়েছে। খবর দ্য ওয়ালের/২০২১/এনবিএস/একে 

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *