ঢাকা, শুক্রবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২১, ০৭:৪৫ পূর্বাহ্ন
কনভয় আসার খবর পেয়েই মাইন পুঁতেছিল, দুই জঙ্গিকে পাকড়াও করল অসম রাইফেলস
এনবিএস ওয়েবডেস্ক :


কনভয় আসার খবর পেয়েই মাইন পুঁতেছিল, দুই জঙ্গিকে পাকড়াও করল অসম রাইফেলস

 সেনা কনভয় আসার খবর পেয়েই মাটিতে মাইন পুঁতেছিল। কর্নেলের গাড়ি লক্ষ্য করে এলোপাথাড়ি গুলি চালিয়েছিল। মণিপুরে অসম রাইফেলসের (Assam Rifles) কনভয়ে হামলা চালানোয় জড়িত দুই জঙ্গি ধরা পড়ল। মঙ্গলবার রাতভর অভিযান চালিয়ে দুই জঙ্গিকে পাকড়াও করে সেনা ও পুলিশের যৌথ বাহিনী।


গোপন সূত্রে খবর পেয়ে মঙ্গলবার রাতে মণিপুর পুলিশের সঙ্গে যৌথ অভিযান চালায় অসম রাইফেলস বাহিনী। বিষ্ণুপুর জেলা থেকে পিপলস লিবারেশন আর্মির (পিএলএ) এক সক্রিয় সদস্য ও পূর্ব ইম্ফল জেলা থেকে কাঙ্গলেইপাক কমিউনিস্ট পার্টির (কেসিপি) এক জঙ্গিকে গ্রেফতার করা হয়। এর আগে ১৪ নভেম্বর পিএলএ ও কেসিপি গোষ্ঠীর দুই জঙ্গিকে পাকড়াও করেছিল অসম রাইফেলস। থৌবল ও উত্তর ইম্ফল থেকে গ্রেফতার করা হয়েছিল তাদের। সেবার বড় নাশকতার ছক বানচাল করে দিয়েছিল সেনাবাহিনী।

গত ১৩ নভেম্বর মণিপুরে অসম রাইফেলসের কনভয়ে ভয়ঙ্কর হামলা চালায় জঙ্গিরা। ঘটনায় সেনার এক কম্যান্ডিং অফিসার সহ ৬ জনের মৃত্যু হয়। কর্নেলের পরিবারও ছিল সেই কনভয়ে। সেনা অফিসারের গাড়িতে এলোপাথাড়ি গুলি চালাতে থাকে জঙ্গিরা। ঝাঁঝরা হয়ে যান কর্নেল। তাঁর স্ত্রী ও ছেলেও ছিলেন সেই গাড়িতে। হামলায় তাঁদেরও মৃত্যু হয়।


অসম রাইফেলসের কর্নেল বিপ্লব ত্রিপাঠি মায়ানমার সীমান্ত থেকে একটি কনভয়ে ফিরছিলেন। সেই কনভয়ে কুইক রেসপন্স টিমের অফিসার সহ অন্যান্য সেনা জওয়ানরাও ছিলেন। চুরাচন্দ্রপুর এলাকায় আচমকাই কনভয়ে হামলা চালায় জঙ্গিরা। সেনা সূত্র জানাচ্ছে, ওই পথ দিয়ে কনভয় যাবে তা আগে থাকতেই খবর পেয়েছিল জঙ্গিরা। কনভয় যাওয়ার ঠিক আগেই মাটিতে মাইন পুঁতে রাখা হয়েছিল। সেনার গাড়ি দেখেই গুলি চালাতে থাকে জঙ্গিরা। সেনা পাল্টা জবাব দেওয়ার আগেই জঙ্গিদের গুলিতে প্রাণ যায় জওয়ানদের।

মণিপুর এবং সন্নিহিত এলাকায় বিভিন্ন সশস্ত্র গোষ্ঠীর উপদ্রব নতুন নয়। বিশেষত এনএসসিএন (খাপলাং) গোষ্ঠীর নেতৃত্বে কেসিপি, কেওয়াইকেএল, ‘প্রেপাক’, পিএলএ এবং ইউএনএলএফ-এর মতো সংগঠনগুলি মহাজোট হিসাবে কাজ করে। নাগাল্যান্ড ও মণিপুরের, এবং উপত্যকা ও পার্বত্য অঞ্চলের স্বতন্ত্র ও পরস্পরবিরোধী বিচ্ছিন্নতাবাদী গোষ্ঠীগুলি বহুদিন থেকেই মাথা চাড়া দিয়েছে। নাগাল্যান্ড-মণিপুরের বিচ্ছিন্নতাবাদী গোষ্ঠীগুলি মায়ানমারের সীমান্তবর্তী স্বশাসিত প্রদেশগুলিকে ঘাঁটি হিসাবে ব্যবহার করে। এর আগেও বহুবার মণিপুরে অসম রাইফেলসের কনভয়ে হামলার ঘটনা ঘটেছে। খবর দ্য ওয়ালের/২০২১/এনবিএস/একে 

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি: