ঢাকা, শনিবার ২৯ জানুয়ারী ২০২২, ০৫:১০ অপরাহ্ন
সুগন্ধি ব্যবহারের নিয়ম জেনে নিন
Reporter Name

সুগন্ধি ব্যবহারের নিয়ম জেনে নিন

সুগন্ধির ঘ্রাণ হালকা ও চড়া উভয়ই হয়। সময় অনুযায়ী দিনের বেলা চড়া এবং রাতের বেলা হালকা সুগন্ধি ব্যবহার করা ভালো। এতে ঘ্রাণে পরিমিতি থাকে।

শরীরের দুর্গন্ধ দূর করা থেকে মন-মেজাজ ফুরফুরে রাখা- সব কাজেই সুগন্ধির ব্যবহার জনপ্রিয়। পৃথিবীতে বিভিন্ন রকম সুগন্ধি রয়েছে। আর এসবের ব্যবহারে রয়েছে কিছু নির্দিষ্ট নিয়ম। সেসব না জেনে সুগন্ধি মাখলে পুরোপুরি কার্যকারিতা পাওয়া যায় না। তাই অতিরিক্ত ব্যবহারের চাইতে নিয়ম মেনে পরিমাণমতো সুগন্ধি ব্যবহার করা উচিত। চলুন উইকিহাউ অবলম্বনে সুগন্ধি ব্যবহারের নিয়মগুলো জেনে নেয়া যাক-

গোসলের পর

গোসলের কারণে শরীর ভেজা থাকার ফলে শরীরের লোমকূপ উন্মুক্ত অবস্থায় থাকে। ফলে অন্যান্য সময়ের চেয়ে এই সময় সুগন্ধি স্প্রে করলে সুবাস দীর্ঘস্থায়ী হয়। তাই সুগন্ধি ব্যবহারের আগে গোসল করে নিতে চেষ্টা করুন।

পালস পয়েন্ট

শরীরে কিছু পালস পয়েন্ট থাকে। পালস পয়েন্ট হলো- যেখানে নারিস্পন্দন টের পাওয়া যায়। শরীরের এই জায়গাগুলো সব সময় উষ্ণ থাকার ফলে বেশি সুগন্ধ ছড়ায়। এ ছাড়াও এসব স্থান বেশির ভাগ সময় আবৃত থাকে। তাই সুগন্ধ একেবারে ছড়িয়ে না গিয়ে ধীরে ধীরে ছড়ায়। তাই পালস পয়েন্ট দেখে সুগন্ধি ব্যবহার করুন।

ঘষবেন না

সুগন্ধি ব্যবহারের পর অনেকেই ঘসে ফেলেন। অনেকেই মনে করেন এতে সুগন্ধ বেশি ছড়ায়। এটি একটি ভুল ধারণা। ঘষে ফেলার কারণে সুগন্ধির গঠন নষ্ট হয়ে যায়। তাই লাগানোর পর না ঘষে নাড়াচাড়া করার চেষ্টা করুন।

চুলে ব্যবহার

চুলে সুগন্ধি ব্যববহার করলে ঘ্রাণ দীর্ঘস্থায়ী হয়। বড় চুল হলে তো কথাই নেই। বেশির ভাগ সুগন্ধিতে অ্যালকোহল থাকে, যা চুল শুষ্ক রাখে। তাই কোথাও বের হওয়ার আগে চুলে অল্প পরিমাণ সুগন্ধি স্প্রে করে নিতে পারেন। তবে স্প্রে করার চেয়ে চিরুনিতে স্প্রে করে চুল আঁচড়ানো বেশি কার্যকর।

যেসব জায়গা আদর্শ

সুগন্ধি ব্যবহারের জন্য শরীরের কিছু আদর্শ জায়গা রয়েছে। সেগুলো হলো- হাতের কবজি, কনুইয়ের ভেতরের অংশ, কলার বোন, হাঁটুর পেছনে, পায়ের গোড়ালি, নাভির কাছে ও কানের পেছনে। এসব জায়গায় সুগন্ধি লাগালে ঘ্রাণ বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়।

দিন ও রাত

সুগন্ধির ঘ্রাণ হালকা এবং চড়া উভয়ই হয়। সময় অনুযায়ী দিনের বেলা চড়া এবং রাতের বেলা হালকা সুগন্ধি ব্যবহার করা ভালো। এতে ঘ্রাণে পরিমিতি থাকে।

ময়েশ্চারাইজার

সুগন্ধি ব্যবহারের আগে হাত ও পায়ে ময়েশ্চারাইজার মেখে নিন। কারণ খসখসে ত্বকে ঘ্রাণ বেশিক্ষণ স্থায়ী হয় না। ময়েশ্চারাইজারের ব্যবহারের ফলে ত্বক মশৃণ ও নরম হয়। যার ঘ্রাণ স্থায়ী করতে ভূমিকা রাখে।

কাপড় না ত্বক

কাপড়ের ওপর সুগন্ধি ব্যবহার করবেন না। কারণ এতে থাকে নানা রকম পদার্থ। যা কাপড়ে দাগ ফেলে দেয়। সুগন্ধি সব সময় ত্বকে ব্যবহার করুন।

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি: