ঢাকা, শনিবার ২৯ জানুয়ারী ২০২২, ০৭:৩৪ পূর্বাহ্ন
পেগাসাস কাণ্ডে সাক্ষ্য দিতে অভিষেক, প্রশান্ত কিশোর, রাহুল গান্ধীকে নোটিস রাজ্যের তদন্ত কমিশনের
Reporter Name

পেগাসাস কাণ্ডে সাক্ষ্য দিতে অভিষেক, প্রশান্ত কিশোর, রাহুল গান্ধীকে নোটিস রাজ্যের তদন্ত কমিশনের

 পেগাসাস (pegasus) আড়ি পাতা কাণ্ডের (snooping) তদন্তে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের তৈরি প্যানেল (state panel) হাজিরার নোটিস (notice) দিল রাহুল গান্ধী, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়, দিল্লির পুলিশ কমিশনার রাকেশ আস্থানা, প্রশান্ত কিশোর, রাজ্যের মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী সহ ৩১ জনকে। ইতিমধ্যে প্যানেলের কাছে ভার্চুয়ালি সাক্ষ্য (testify) দিয়েছেন ৩ জন। একজন নয়াদিল্লি থেকে সশরীরে হাজিরা দেন প্যানেলের সামনে। পেগাসাস কাণ্ডে চরবৃত্তির শিকার বলে অভিযোগ করা আরও  কয়েকজনের ঠিকানা  জোগাড় করা  হচ্ছে। তাদের কাছেও হাজিরার নোটিস যাবে। ২১ ডিসেম্বর পর্যন্ত সাক্ষ্য নথিভুক্ত করার প্রক্রিয়া চলবে। কমিশন এমন আরও অনেককে সাক্ষ্য পেশ করার অনুমতি দিয়েছে যাঁদের দাবি, তাঁদের ফোনে আড়ি পাতা হয়েছে পেগাসাস যন্ত্রে। তাঁরা সেই আড়ি পাতা ফোন (phone) জমা দেবেন।

গত ২৬ জুলাই  মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ওই প্যানেল গঠন করেন।  মমতা এই ইস্যু হাতিয়ার করে লাগাতার কেন্দ্রের মোদী সরকারকে ফোনে আড়ি পাতার অভিযোগে  কাঠগড়ায় তুলেছেন। পশ্চিমবঙ্গই প্রথম রাজ্য যারা এ ব্যাপারে তদন্তের উদ্যোগ নিয়েছে। সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি মদন বি লোকুর, কলকাতা হাইকোর্টের অবসরপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি জ্যোতির্ময় ভট্টাচার্য্যকে দিয়ে কমিশন গঠন করে রাজ্য সরকার। ভারতে বিশিষ্ট লোকজন, বিরোধী রাজনৈতিক নেতা সহ বহু লোকের ফোনে ইজরায়েলি আড়িপাতা প্রযুক্তির সাহায্যে নজরদারি চালানো হয়েছে, কমিশনকে এই দাবির সত্যতা তদন্ত করে দেখতে বলা হয়। গত ৩ আগস্ট নানা সংবাদপত্রে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে আমজনতার কাছ থেকেও ৩০ দিনের মধ্যে এব্যাপারে তথ্য থাকলে জমা দিতে বলা হয়।

প্রসঙ্গত, গত জুলাইয়ে কয়েকটি মিডিয়া সংগঠনের আন্তর্জাতিক জোট বিস্ফোরক দাবি করে, ইজরায়েলি সাইবার সংস্থা এনএসও তৈরি আড়িপাতা যন্ত্র  পেগাসাস ব্যবহার করে দুনিয়াজুড়ে অসংখ্য লোকের ফোন হ্যাক করে চরবৃত্তি চালানো হয়েছে।  ভারতে অন্ততঃ ১৭৫ জনের ফোন হ্য়াক করা হয়েছে বলে চাঞ্চল্যকর দাবি করে সংবাদমাধ্যম। তালিকায় রাজনীতিক, বিচারক, আমলা, সাংবাদিক, সমাজকর্মীরা আছেন। এনএসও গোষ্ঠীর দাবি, তারা একমাত্র ‘অনুমোদিত সরকারগুলিকেই’ পেগাসাস প্রযুক্তি বিক্রি করেছে। ভারত সরকার পেগাসাস জোগাড় করার কথা স্বীকার বা অস্বীকার, কোনওটাই করেনি।

সুপ্রিম কোর্টেও একগুচ্ছ পিটিশন পেশ করে তদন্ত দাবি করা হয়। সুপ্রিম কোর্ট চরবৃত্তির অভিযোগ খতিয়ে দেখতে নিজস্ব স্বাধীন তদন্ত কমিটি গঠন করে। খরব দ্য ওয়ালের /২০২১/এনবিএস/একে

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি: