ঢাকা, শনিবার ২৯ জানুয়ারী ২০২২, ০৭:৪৬ পূর্বাহ্ন
কোভিডে মৃতের সংখ্যা সংশোধন করল কেরল, বিহার
Reporter Name

কোভিডে মৃতের সংখ্যা সংশোধন করল কেরল, বিহার

 রবিবার সকালে জানা যায়, তার আগের ২৪ ঘণ্টায় ভারতে কোভিডে মারা (Covid Death) গিয়েছেন ২৭৯৬ জন। ২০২০ সালের জুলাই মাসের পরে একইদিনে দেশে কখনও এত বেশি সংখ্যক মানুষ মারা যাননি। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক অবশ্য জানিয়েছে, বিহার ও কেরলে আগে মৃতের সংখ্যা কম দেখানো হয়েছিল। পরে সেই সংখ্যা সংশোধন করা হয়েছে। তাই কোভিডে মৃতের সংখ্যা বেশি দেখাচ্ছে। কোভিড অতিমহামারী শুরু হওয়ার পরে ভারতে মারা গিয়েছেন ৪ লক্ষ ৭৩ হাজার ৩২৬ জন। শনিবার জানানো হয়, তার আগের ২৪ ঘণ্টায় দেশে মারা গিয়েছেন ৩৯১ জন।

এর আগে ২১ জুলাই মহারাষ্ট্র সরকার মৃতের সংখ্যা সংশোধন করে। ওইদিন দেশে কোভিডে মৃতের সংখ্যা ছিল ৩৯৯৮ জন। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক জানিয়েছে, রবিবার যে ২৭৯৬ জনের মৃত্যুর কথা জানানো হয়েছে, তাঁদের মধ্যে ২৪২৬ জন আগেই মারা গিয়েছিলেন। তাঁদের সংখ্যা যুক্ত হওয়াতেই এদিন মৃতের সংখ্যা বেড়েছে।

কেরল সরকার গত কয়েকদিন ধরেই মৃতের সংখ্যা সংশোধন করছে। শনিবার কেরল মৃতের তালিকায় ২৬৩ টি নাম যোগ করে। তাঁরা আগেই মারা গিয়েছিলেন।

কোভিড অতিমহামারীতে ভারতে সবচেয়ে বেশি মানুষ মারা গিয়েছেন মহারাষ্ট্রে। সারা দেশে মারা গিয়েছেন মোট ৪ লক্ষ ৭৩ হাজার ৩২৬ জন। তাঁদের মধ্যে ১ লক্ষ ৪১ হাজার ১৬৩ জন ছিলেন মহারাষ্ট্রের বাসিন্দা। কেরলে মারা গিয়েছেন ৪১ হাজার ৪৩৯ জন। স্বাস্থ্যমন্ত্রকের দাবি, মৃতদের ৭০ শতাংশের শরীরে কো-মরবিডিটি ছিল।

স্বাস্থ্যমন্ত্রকের ওয়েব সাইটে বলা হয়েছে, বিভিন্ন রাজ্য মৃতের যে সংখ্যা জানিয়েছে, তা পরীক্ষা করে দেখা হবে। শনিবার ভারতে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৮৮৯৫ জন। অতিমহামারী শুরু হওয়ার পরে দেশে করোনায় আক্রান্ত হলেন মোট ৩ কোটি ৪৬ লক্ষ ৩৩ হাজার ২৫৫ জন। গত ১৬১ দিন ধরে দেশে দৈনিক সংক্রমণ ৫০ হাজারের নীচে রয়েছে। বর্তমানে দেশে অ্যাকটিভ রোগী আছেন ৯৯,১৫৫ জন। অর্থাৎ মোট যতজন সংক্রমিত হয়েছেন, তাঁদের ০.২৯ শতাংশ এখন অ্যাকটিভ রোগী। ২০২০ সালের মার্চের পরে শতাংশের বিচারে এই প্রথমবার অ্যাকটিভ রোগীর সংখ্যা এত কম হয়েছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রক জানিয়েছে, কোভিড রোগে সুস্থ হয়ে ওঠার হার এখন ৯৮.৩৫ শতাংশ। খবর দ্য ওয়ালের/২০২১/এনবিএস/একে

ইউটিউবে এনবিএস-এর সব খবর দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি: